নবীনগরে বিরোধ নিষ্পত্তির উদ্যোগ প্রশাসনের

প্রকাশ: ০৭ জুলাই ২০১৮

নবীনগর (ব্রাহ্মণবাড়িয়া) প্রতিনিধি

ব্রাহ্মণাড়িয়ার নবীনগর উপজেলার কৃষ্ণনগর ইউনিয়নের দক্ষিণ লক্ষ্মীপুর গ্রামে গ্রাম্য আধিপত্য বিস্তার নিয়ে বিবদমান দুই গ্রুপের বিরোধ নিষ্পত্তি ও শান্তির লক্ষ্যে বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। স্থানীয় সাংসদ ফয়জুর রহমান বাদলের নির্দেশনায় উপজেলা প্রশাসন এ উদ্যোগ নিয়েছে। সভায় দুই গ্রুপের মধ্যে দাঙ্গার কারণ ও এর সমাধানে বিভিন্ন দিক তুলে ধরা হয়।

বৃহস্পতিবার দক্ষিণ লক্ষ্মীপুর গ্রামের মাদ্রাসা প্রাঙ্গণে এ বৈঠকে সভাপতিত্ব করেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও আইন-শৃঙ্খলা কমিটির সভাপতি মোহাম্মদ মাসুম। সভায় জেলা পুলিশ সুপারের ঘোষণা অনুযায়ী আজ ৭ জুলাইয়ের মধ্যে এসব কাজে ব্যবহূত উপকরণ প্রশাসনের কাছে জমা দেওয়ার নির্দেশ দেওয়া হয়। এর মধ্যে জমা না দিলে চিরুনি অভিযানে মাদক ও দাঙ্গা নিরসনে কার্যকর পদক্ষেপ গ্রহণ করার হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করা হয়।

আধিপত্য বিস্তার নিয়ে আলাউদ্দিন আলম খান বাড়ি ও আতশ আলী মেম্বার বাড়ি গোষ্ঠীর মধ্যে প্রায় প্রতিবছরই ঝগড়া সৃষ্টি হয়। এ নিয়ে উভয়পক্ষের মধ্যে বেশ কয়েকটি পাল্টাপাল্টি মামলা চলছে। গত ২ মার্চ রাতে গ্রামে একটি তুচ্ছ ঘটনা নিয়ে আতশ আলী মেম্বার বাড়ির গোষ্ঠীর লোক হুমায়নের সঙ্গে আলম খান বাড়ি গোষ্ঠীর লোক জিল্লুর রহমানের কথা কাটাকাটি হয়। এর জের ধরে এলাকায় উত্তেজনা সৃষ্টি হলে রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষ বাঁধে। মধ্যরাতে আতশ আলী মেম্বার গোষ্ঠীর লোক দুলাল মিয়াকে প্রতিপক্ষের লোকজন একা পেয়ে কুপিয়ে নির্মমভাবে হত্যা করে। এ হত্যাকাণ্ডের ঘটনায় মামলা হলে গ্রেফতার আতঙ্কে গ্রামটি পুরুষশূন্য হয়ে পড়ে। শুরু হয় লুটতরাজ।

বৈঠকের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী গ্রামে আর কোনো ধরনের দাঙ্গা সৃষ্টি হবে না মর্মে দু'পক্ষের ২০ জন অঙ্গীকারনামায় স্বাক্ষর করেন। সভায় বক্তব্য দেন অতিরিক্ত পুলিশ সুপার চিত্তরঞ্জন পাল, ওসি আসলাম সিকদার, আওয়ামী লীগ নেতা জহির উদ্দিন চৌধুরী শাহান, মো. জসিম উদ্দিন, মো. মলাই মিয়া, দুপ্রক সভাপতি আবু কামাল খন্দকার,

প্রেস ক্লাব সভাপতি মাহাবুব আলম লিটন প্রমুখ।