সবাইকে মাস্ক পরতে হবে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা

প্রকাশ: ০৭ জুন ২০২০

সমকাল ডেস্ক

মুখে মাস্ক পরার ক্ষেত্রে নতুন পরামর্শ দিয়েছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডব্লিউএইচও)। সংস্থাটি বলছে, কভিড-১৯ বা নতুন করোনাভাইরাসের বিস্তার রোধে জনসমক্ষে সবাইকে অবশ্যই মাস্ক পরতে হবে। মাস্ক পরেই বাইরে চলাচল করতে হবে। শুক্রবার এ নতুন নির্দেশনা দিয়েছে জাতিসংঘের স্বাস্থ্য বিষয়ক সংস্থাটি। এর আগে সুস্থ মানুষের মাস্ক না পরলেও চলবে বলে পরামর্শ দিয়েছিল সংস্থাটি।

একইদিনে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা ফের মনে করিয়ে দিয়েছে যে, 'মহামারি এখনও শেষ হয়নি।' সদর দপ্তর জেনেভায় এক সংবাদ সম্মেলনে সংস্থাটির মুখপাত্র মার্গারেট হ্যারিস বলেন, 'উত্তর, মধ্য ও দক্ষিণ আমেরিকার দেশগুলো, বিশেষ করে যুক্তরাষ্ট্র এখনও ভাইরাস সংক্রমণের মূলকেন্দ্র হয়ে আছে। এরই মধ্যে ইউরোপসহ অনেক দেশ লকডাউন শিথিল করেছে বা তুলে নিয়েছে। সাধারণ মানুষ মনে করছে, তাহলে হয়তো সব ঠিক হয়ে গেছে। আসলে কিছুই ঠিক হয়নি, মহামারি শেষ হয়নি। যেদিন বিশ্বের কোথাও ভাইরাস আক্রান্তের সন্ধান পাওয়া যাবে না, শুধু সেদিন বলা যাবে মহামারি শেষ হয়েছে।'

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা জানিয়েছে, নতুন তথ্যে দেখা গেছে, মাস্ক 'সম্ভাব্য সংক্রামক ড্রপলেটের' জন্য বাধা হিসেবে কাজ করতে পারে। যেখানে সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখা সম্ভব হয় না, যেমন গণপরিবহন, বিপণিকেন্দ্র, শরণার্থী শিবিরের মতো জায়গা- এসব ক্ষেত্রে কাপড়ের মাস্ক দিয়ে অবশ্যই মুখ ঢাকতে হবে। যাতে সংক্রমণের বিস্তার না ঘটে। যাদের বয়স ষাটের বেশি কিংবা স্বাস্থ্য ঝুঁকি আছে, তাদের সুরক্ষার জন্য মেডিকেল গ্রেড মাস্ক পরার পরামর্শ দিয়েছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা।

অবশ্য বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার এ পরামর্শের আগে থেকেই বেশিরভাগ দেশ নাগরিকদের চলাচলের ক্ষেত্রে মাস্ক পরা বাধ্যতামূলক করেছে। যদিও এর আগে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা যুক্তি দিয়েছিল, 'সুস্থ মানুষের মাস্ক পরতে হবে, এমন পর্যাপ্ত প্রমাণ নেই।' সেই পরামর্শ থেকে সরে এসে এখন সংস্থাটির করোনাবিষয়ক প্রযুক্তি বিশেষজ্ঞ ডা. মারিয়া ফন খেরকভ বলেন, 'সাধারণ মানুষকে মাস্ক পরতে উৎসাহ দেওয়ার জন্য আমরা সরকারগুলোর প্রতি পরামর্শ দিচ্ছি।' তিনি আরও বলেন, 'সাধারণ মানুষের জন্য পরামর্শ হলো ফেব্রিক মাস্ক বা কাপড়ের মাস্ক অর্থাৎ একটি নন মেডিকেল মাস্ক পরতে হবে।'

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা সতর্ক করে বলেছে, করোনা সংক্রমণের ঝুঁকি কমাতে ব্যবহার করা যেতে পারে, এমন সরঞ্জামের মধ্যে মাস্ক একটি। এটি যেন মিথ্যা সুরক্ষাকবচের ধারণা তৈরি না করে। এ ব্যাপারে সংস্থাটির প্রধান ডা. টেড্রোস আধানম গেব্রেয়েসুস বলেন, 'মাস্ক আপনাকে করোনাভাইরাস থেকে রক্ষা করবে না। এটি কেবল সংক্রমণ ঝুঁকি কমাতে পারে।' বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা অবশ্য সব সময় পরামর্শ দিয়ে আসছে যে, মেডিকেল ফেস মাস্ক অসুস্থ মানুষ এবং তাদের সেবাযত্নে নিয়োজিতদের পরা উচিত। সূত্র :বিবিসি ও রয়টার্স