লিথিয়াম আয়ন ব্যাটারির উন্নয়ন করে রসায়নে নোবেল

প্রকাশ: ১০ অক্টোবর ২০১৯      

সমকাল ডেস্ক

লিথিয়াম আয়ন ব্যাটারির উন্নয়ন ঘটিয়ে এবার নোবেল জিতেছেন তিন বিজ্ঞানী। গতকাল বুধবার রয়্যাল সুইডিশ একাডেমি অব সায়েন্সেস বিজয়ীদের নাম ঘোষণা করে। তারা হলেন- যুক্তরাষ্ট্রের বিজ্ঞানী জন বি গুডএনাফ ও এম স্ট্যানলি হুইটিংহ্যাম এবং জাপানের আকিরা ইয়োশিনো। খবর এএফপি ও বিবিসির।

নোবেল পুরস্কারের ৯০ লাখ সুইডিশ ক্রোনার ভাগ করে নেবেন তারা। ১০ ডিসেম্বর সুইডেনের রাজধানী স্টকহোমে আনুষ্ঠানিকভাবে তাদের হাতে পুরস্কার তুলে দেওয়া হবে। এবার একটু ব্যতিক্রম ঘটনা ঘটেছে। নোবেলের ইতিহাসে সবচেয়ে বেশি বয়সে পুরস্কার পেয়েছেন ৯৬ বছর বয়সী জন বি গুডএনাফ।

নোবেল কমিটি টুইটে বলেছে, লিথিয়াম আয়ন ব্যাটারি মানুষের জীবনে বৈপ্লবিক পরিবর্তন এনেছে। এই ব্যাটারি এখন মোবাইল ফোন থেকে শুরু করে ল্যাপটপ এবং গাড়িতে পর্যন্ত ব্যবহার হচ্ছে।

সত্তরের দশকে প্রথম ব্যবহারযোগ্য লিথিয়াম ব্যাটারির উন্নয়ন ঘটান হুইটিংহ্যাম। এরপর ওই ব্যাটারির ক্ষমতাকে দ্বিগুণ করে তোলেন গুডএনাফ। আকিরা ইয়োশিনো ওই ব্যাটারি থেকে খাঁটি লিথিয়াম দূর করে লিথিয়াম আয়ন প্রযুক্তির উন্নয়ন ঘটান। এই প্রযুক্তি খাঁটি লিথিয়াম থেকে বেশি নিরাপদ। এর ফলেই দৈনন্দিন জীবনে এই ব্যাটারির ব্যবহার সহজ হয়েছে।

আজ বৃহস্পতিবার সাহিত্য, পরদিন শুক্রবার শান্তি ও আগামী সোমবার অর্থনীতিতে নোবেল পুরস্কার পাওয়া ব্যক্তি বা প্রতিষ্ঠানের নাম ঘোষণা করা হবে।

এক জুরির স্বামীর বিরুদ্ধে ওঠা যৌন নিপীড়নের অভিযোগ নিয়ে বিতর্কের মধ্যে রয়্যাল সুইডিশ একাডেমি গত বছর সাহিত্যের নোবেল পুরস্কার স্থগিত করে। এবার তাই চলতি বছরের সঙ্গে ২০১৮ সালের নোবেল বিজয়ীদের নাম ঘোষণা করা হবে।

এ পর্যন্ত ১৮১ জনকে রসায়নে নোবেল পুরস্কার দেওয়া হয়েছে। গত বছর রসায়ন শাস্ত্রে অবদানের জন্য পুরস্কার জেতেন যুক্তরাষ্ট্রের বিজ্ঞানী ফ্রান্সেস এইচ আরনল্ড, জর্জ পি স্মিথ এবং যুক্তরাজ্যের বিজ্ঞানী স্যার গ্রেগরি পি উইন্টার।