সিলেট বিএনপিকে সমাবেশের জন্য সময় দিতে নারাজ কেন্দ্র

প্রকাশ: ১০ সেপ্টেম্বর ২০১৯

সিলেট ব্যুরো

বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে সিলেটে বিভাগীয় সমাবেশ আয়োজনে 'বাড়তি সময়' দিতে নারাজ কেন্দ্র। সার্বিক পরিস্থিতিতে সমাবেশ সফলে আরেকটু সময় চেয়েছিলেন সিলেট বিএনপির কয়েকজন নেতা। গতকাল সোমবার বিকেল সাড়ে ৫টায় নগরীর মীরাবাজারে একটি হোটেলে কেন্দ্রীয় প্রতিনিধি দলের সঙ্গে মতবিনিময় সভায় এই অনুরোধ জানানো হয়। তবে দলের হাইকমান্ডের ইচ্ছার কথা স্মরণ করিয়ে আগামী ২১ থেকে ২৫ সেপ্টেম্বরের মধ্যে সমাবেশ আয়োজনের নির্দেশ দেন কেন্দ্রীয় প্রতিনিধি দলের নেতা ডা. এ জেড এম জাহিদ হোসেন। কারান্তরীণ খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে নতুন কর্মসূচি অনুযায়ী ২১ সেপ্টেম্বর সিলেটে বিভাগীয় সমাবেশ করতে চায় বিএনপির হাইকমান্ড।

মতবিনিময় সভায় বিএনপির কেন্দ্রীয় সহসভাপতি ও সিলেট বিভাগীয় সমন্বয়কারী জাহিদ হোসেন বলেন, আগামী ৩০ সেপ্টেম্বরের মধ্যে সারাদেশে বিভাগীয় সমাবেশ আয়োজনের সিদ্ধান্ত হয়েছে। এ অনুযায়ী ২১ থেকে ২৫ সেপ্টেম্বরের মধ্যে সুবিধা মতো দিনে সমাবেশ করতে হবে। বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যানের নির্দেশের কথা উল্লেখ করে তিনি বলেন, নগরীর আলিয়া মাদ্রাসা মাঠে এই সমাবেশ করতে চায় বিএনপি। আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী অনুমতি না দিলে নেতাকর্মীদের নিয়ে পুরো নগরীকে সমাবেশস্থল বানানোর নির্দেশ দেন তিনি।

সিলেট জেলা বিএনপির সভাপতি আবুল কাহের চৌধুরী শামীমের সভাপতিত্বে এ সভায় স্থানীয় নেতাদের কয়েকজন  সমাবেশ পেছানোর অনুরোধ করেন। এ ক্ষেত্রে আগামী কয়েকদিন সিলেটের বিরূপ আবহাওয়ার পাশাপাশি ১৪ সেপ্টেম্বর ছাত্রদলের কেন্দ্রীয় কাউন্সিলের কথা উল্লেখ করা হয়। এ ছাড়া আগামী ১২ সেপ্টেম্বর কেন্দ্র ঘোষিত মানববন্ধন আয়োজনের পাশাপাশি বিভাগীয় সমাবেশ আয়োজনে আরেকটু সময় প্রয়োজন বলে একাধিক বক্তা কেন্দ্রীয় প্রতিনিধি দলের প্রতি আহ্বান জানান। এ প্রসঙ্গে প্রতিনিধি দলের নেতা ডা. জাহিদ হোসেন বলেন, সিলেট তারেক রহমানের শ্বশুরবাড়ি। তিনি সিলেটে সফল সমাবেশ প্রত্যাশা করেন। আশা করি সবাই মিলে কাজ করলে তা সম্ভব হবে।

সিলেট জেলা বিএনপির ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক মাহবুবুর রব চৌধুরী ফয়সল ও মহানগরের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট শামীম সিদ্দিকীর পরিচালনায় মতবিনিময় সভায় বিশেষ অতিথি ছিলেন বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা অ্যাডভোকেট ফজলুল হক আসপিয়া, এম এ হক, ড. এনামুল হক মোহাম্মদ, খন্দকার আব্দুল মুক্তাদির, কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পদক ডা. সাখাওয়াত হোসেন জীবন, সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক দিলদার হোসেন সেলিম ও কলিম উদ্দিন মিলন, সিলেটের মেয়র ও কেন্দ্রীয় সদস্য আরিফুল হক চৌধুরী, কেন্দ্রীয় সহ-ক্ষুদ্রঋণবিষয়ক সম্পাদক আব্দুর রাজ্জাক, সমবায়বিষয়ক সম্পাদক জি কে গৌছ, সদস্য শফি আহমদ চৌধুরী, কেন্দ্রীয় সদস্য মিজানুর রহমান মিজান ও সিলেট মহানগর সভাপতি নাসিম হোসাইন।