ইরাবের অভিষেক অনুষ্ঠানে শিক্ষামন্ত্রী

শিক্ষা খাতে শৃঙ্খলা ফিরে এসেছে

প্রকাশ: ০৯ সেপ্টেম্বর ২০১৯

সমকাল প্রতিবেদক

 শিক্ষা খাতে শৃঙ্খলা ফিরে এসেছে

শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি রোববার ইরাবের অভিষেক অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্য দেন - পিআইডি

শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি বলেছেন, বর্তমান আওয়ামী লীগ সরকার শিক্ষাকে শুরু থেকেই অধিক গুরুত্ব দিয়ে যাচ্ছে। আর এ কারণে শিক্ষার গুণগতমানও বৃদ্ধি পাচ্ছে। আগের চেয়ে সাক্ষরতার হার বেড়েছে। সব মিলিয়ে শিক্ষায় শৃঙ্খলা ফিরে এসেছে। কিন্তু কিছু অসাধু ব্যক্তি সরকারের কার্যক্রমকে প্রশ্নবিদ্ধ করে তুলতে চায়। শিক্ষা খাতের সকল অনিয়ম-দুর্নীতি নির্মূল করা হবে বলে তিনি জানান।

গতকাল রোববার রাজধানীর আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা ইনস্টিটিউট মিলনায়তনে 'এডুকেশন রিপোর্টার্স অ্যাসোসিয়েশন, বাংলাদেশ' (ইরাব)-এর 'অভিষেক-২০১৯' অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে মন্ত্রী এসব কথা বলেন। ইরাবের নবনির্বাচিত সভাপতি মুসতাক আহমদ অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন।

সমকালের বিশেষ প্রতিনিধি ও ইরাবের কার্যনির্বাহী সদস্য সাব্বির নেওয়াজের সঞ্চালনায় এতে শিক্ষামন্ত্রী আরও বলেন, 'আমাদের ও শিক্ষা সাংবাদিকদের উদ্দেশ্য একই। আমরা সবাই আলোচনা ও সমালোচনার মাধ্যমে দেশের শিক্ষা ব্যবস্থার উন্নয়নে কাজ করি। কিন্তু কিছু গণমাধ্যমের সংবাদ আমাদের বিব্রত  করে, কেননা ওইসব সংবাদের কোনো বস্তুনিষ্ঠতা থাকে না।'

তিনি সাংবাদিকদের প্রতি বস্তুনিষ্ঠ সংবাদ পরিবেশনের আহ্বান জানিয়ে বলেন, দেশের শিক্ষার আমূল পরিবর্তন হয়েছে। এ জন্য আমরা নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছি।

অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্যে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা প্রতিমন্ত্রী জাকির হোসেন বলেন, 'দেশে সাক্ষরতার হার আগের তুলনায় বেশ খানিকটা বেড়েছে। আমরা নিরলস কাজ করে যাচ্ছি। গণমাধ্যমকর্মীদের সঙ্গে নিয়ে আমরা এগিয়ে যেতে চাই।'

অপর বিশেষ অতিথি শিক্ষা উপমন্ত্রী ব্যারিস্টার মহিবুল হাসান চৌধুরী বলেন, বর্তমান সরকার শিক্ষা খাতকে অগ্রাধিকার দিয়ে বিশেষ বরাদ্দ দিচ্ছে। তবে সে অনুযায়ী আমরা এখনও সফলতা অর্জন করতে পারিনি। তবে বর্তমান সরকারের হাত ধরেই শিক্ষা খাতে আমূল পরিবর্তন এসেছে।

বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশনের চেয়ারম্যান ড. কাজী শহীদুল্লাহ বলেন, একসময় দেশে হাতেগোনা কয়েকটি বিশ্ববিদ্যালয় ছিল। এখন দেড়শ'র বেশি বিশ্ববিদ্যালয়। বিশ্ববিদ্যালয়ের সংখ্যা ও শিক্ষার্থী বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে শিক্ষার মানের দিকেও খেয়াল রাখতে হবে।

মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা বিভাগের সিনিয়র সচিব সোহরাব হোসাইন বলেন, দীর্ঘদিন শিক্ষা মন্ত্রণালয়ে আছি। শিক্ষা সাংবাদিকদের সঙ্গে আমার সবসময়ই যোগাযোগ ছিল। তারা আমাদের কাজে অনেক সহযোগিতা করেন। তাদের প্রতি অনেক কৃতজ্ঞ।

অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য দেন সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক নিজামুল হক। আরও উপস্থিত ছিলেন শিক্ষা মন্ত্রণালয়, প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়, মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদপ্তকর (মাউশি), প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তর, ইউজিসি, এনটিআরসিএ, অবসর ও কল্যাণ বোর্ড, ঢাকা ও অন্যান্য বোর্ডসহ দেশের বিভিন্ন শিক্ষক সংগঠনের নেতারা।