কবরস্থানে রেখে আসা হয়েছিল তাকে

প্রকাশ: ২৩ আগস্ট ২০১৯

চৌদ্দগ্রাম (কুমিল্লা) প্রতিনিধি

কবরস্থানে রেখে আসা হয়েছিল তাকে

কুমিল্লার চৌদ্দগ্রামের পাঠানপাড়া কবরস্থানে কে বা কারা রেখে আসে বৃদ্ধ খুরশিদা বেগমকে। বৃহস্পতিবার তাকে উদ্ধারের পর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে পুলিশ সমকাল

কুমিল্লার চৌদ্দগ্রামের ধোড়করা-চাঁনকার দীঘি সড়কের পাশে পাঠানপাড়ার একটি কবরস্থানে চার দিন আগে রেখে আসা হয় এক বৃদ্ধাকে। তবে সড়ক থেকে ওই নারীকে স্পষ্টভাবে দেখা না যাওয়ায় ঘটনা জানাজানি হয়নি। গতকাল বৃহস্পতিবার বিকেলে সাংবাদিকদের মাধ্যমে খবর পেয়ে চৌদ্দগ্রাম থানার ওসি আবদুল্লাহ আল মাহফুজের নির্দেশে তাকে উদ্ধার করে পুলিশের একটি দল। উদ্ধারের পর খুরশিদা বেগম নামের ওই নারীকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়। ৬৮ বছর বয়সী খুরশিদাকে পরিবারের সদস্যরাই কবরস্থানে রেখে আসে বলে ধারণা করছে পুলিশ ও স্থানীয়রা।

স্থানীয়রা জানায়, কে বা কারা চার দিন আগে ওই বৃদ্ধাকে কবরস্থানে রেখে যায়। এ সময় তার পাশেই খাবারের চারটি প্যাকেট, চারটি পানির বোতল, একটি কয়েল ছিল। তবে কথা বলতে পারলেও তিনি নিজের গ্রাম বা বিস্তারিত পরিচয় বলেননি। বৃদ্ধাকে তার সন্তানদের বিষয়ে জিজ্ঞেস করলে তিনি ক্ষিপ্ত হয়ে বলেন, 'ক্যান্টনমেন্ট (কুমিল্লা) এলাকার মেহেরাজের জামাই রায়হান ও বিজয়পুরের সবুজের বাপে জানে।' এ কথা বলার পর কিছুই বলেননি তিনি।

গত চার দিন আশপাশের নারীরা খাবার

নিয়ে এলে তিনি নেন এবং সময়মতো খান। গতকাল বিকেলে খবর পেয়ে চৌদ্দগ্রাম

থানার ওসির নির্দেশে কনকাপৈত পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের এএসআই কামাল হোসেন বৃদ্ধাকে উদ্ধার করেন।

এ ব্যাপারে এএসআই কামাল হোসেন বলেন, বৃদ্ধাকে উদ্ধার করে চৌদ্দগ্রাম উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। তার বিষয়ে বিস্তারিত জানার চেষ্টা চলছে।