ডাকসুর স্মারক বক্তৃতা অনুষ্ঠানে উপাচার্য অন্তর্ভুক্তিমূলক উন্নয়নের রূপকার ছিলেন বঙ্গবন্ধু

প্রকাশ: ২৩ আগস্ট ২০১৯

বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিবেদক

জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে অন্তর্ভুক্তিমূলক উন্নয়নের রূপকার হিসেবে অভিহিত করে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য মো. আখতারুজ্জামান বলেছেন, তিনি দেশের সুবিধাবঞ্চিত ও প্রান্তিক জনগোষ্ঠীকে উন্নয়নের মূলধারায় সম্পৃক্ত করেছিলেন। এদেশের গরিব ও দুঃখী মানুষের অর্থনৈতিক মুক্তি নিশ্চিত করাই ছিল তার রাজনীতির প্রধান লক্ষ্য।

স্বাধীনতার মহান স্থপতি বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৪তম শাহাদাতবার্ষিকী উপলক্ষে গতকাল বৃহস্পতিবার বিকেলে বিশ্ববিদ্যালয়ের মোজাফ্‌ফর আহমেদ চৌধুরী মিলনায়তনে ডাকসু আয়োজিত স্মারক বক্তৃতা অনুষ্ঠানে সভাপতির বক্তব্যে উপাচার্য এসব কথা বলেন।

অনুষ্ঠানে বাংলাদেশ ব্যাংকের সাবেক গভর্নর অধ্যাপক ড. আতিউর রহমান 'বঙ্গবন্ধুর অর্থনৈতিক ভাবনা' শীর্ষক স্মারক বক্তৃতা দেন। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় সামাজিক বিজ্ঞান অনুষদের ডিন ড. সাদেকা হালিম, ডাকসুর জিএস গোলাম রাব্বানী ও এজিএস মো. সাদ্দাম হোসাইন আলোচনায় অংশ নেন।

স্মারক বক্তৃতায় ড. আতিউর রহমান বলেন, প্রধানমন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব গ্রহণের পর বঙ্গবন্ধু প্রশাসনিক ব্যবস্থার পুনর্গঠন, সংবিধান প্রণয়ন, যোগাযোগ ব্যবস্থার উন্নয়ন, শিক্ষা ব্যবস্থার সম্প্রসারণ, ৪০ হাজার প্রাথমিক স্কুল সরকারীকরণ, মুক্তিযোদ্ধা কল্যাণ ট্রাস্ট গঠন, কৃষি ঋণ বিতরণসহ যুদ্ধবিধ্বস্ত দেশ গঠনে বিভিন্ন কর্মসূচি গ্রহণ করেন। তার দেখানো পথ ধরেই

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বর্তমান সরকার দেশকে সমৃদ্ধি ও উন্নতির দিকে এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছে।