পবা ও বারসিকের সংলাপে বক্তারা বস্তিতে আগুন লাগার কারণ খতিয়ে দেখতে হবে

প্রকাশ: ২৩ আগস্ট ২০১৯

সমকাল প্রতিবেদক

বস্তিবাসীর জন্য হাইকোর্টের রুল জারি থাকলেও প্রতিবছর বস্তিতে আগুন লাগে আর বস্তি উচ্ছেদ হয়। কেন বস্তি পুড়ে তা খতিয়ে দেখা জরুরি। এর জন্য একটি পৃথক কমিশন গঠন করতে হবে। সব অগ্নিকাণ্ডের কারণ অনুধাবন করে বস্তিবাসীর আবাসনের ব্যবস্থা করতে হবে। গতকাল বৃহস্পতিবার জাতীয় প্রেস ক্লাবে পরিবেশ বাঁচাও আন্দোলন (পবা) ও বেসরকারি গবেষণা প্রতিষ্ঠান বারসিকের উদ্যোগে আয়োজিত সংলাপে বক্তারা এসব কথা বলেন।

পবার চেয়ারম্যান আবু নাসের খানের সভাপতিত্বে ও সম্পাদক ফেরদৌস আহমেদ উজ্জলের সঞ্চালনায় এতে বক্তব্য দেন ঐক্য ন্যাপের সভাপতি পঙ্কজ ভট্টাচার্য, ট্রেড ইউনিয়ন কেন্দ্রের সাধারণ সম্পাদক ডা. ওয়াজেদুল ইসলাম খান, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সমাজবিজ্ঞান বিভাগের সহকারী অধ্যাপক দেবাশীষ কুমার কুণ্ডু, পবার সাধারণ সম্পাদক প্রকৌশলী আব্দুস সোবহান, গবেষক ও লেখক পাভেল পার্থ, বস্তিবাসী নেতা কুলসুম বেগম, রাফেজা বেগম প্রমুখ। এতে ধারণাপত্র উপস্থাপন করেন পবার প্রকল্প সমন্বয়ক জাহাঙ্গীর আলম।

সংলাপে বক্তারা বলেন, 'বস্তিবাসী আজ সমাজে গালি হিসেবে ব্যবহূত হচ্ছে। কিন্তু ঢাকা শহরের নিম্ন আয়ের এসব মানুষ যদি একদিন কাজ না করে, শহর অচল হয়ে যাবে। অথচ কী অদ্ভুতভাবে নিয়মিত বিরতিতে আমাদের এই বস্তিগুলোকে পুড়তে দেখতে হয়।' বক্তারা সব অগ্নিকাণ্ডের প্রকৃত রহস্য উদ্ঘাটন ও ক্ষতিপূরণের দাবি জানান।

বস্তিবাসী নেতারা বলেন, 'প্রধানমন্ত্রী বস্তিবাসীর জন্য যে ঘোষণা দিয়েছিলেন, তা বাস্তবায়ন করা হোক। আর এই বস্তিবাসী ও নিম্ন আয়ের মানুষ যেন আবাসন অধিকার পায়।'