পিৎজার বাক্সে দস্যু জাহাজ

প্রকাশ: ২৩ আগস্ট ২০১৯

সমকাল ডেস্ক

খাবারের প্যাকেট, ডিমের খোসা, কাচের বোতল, ঘরের কাজে আগে ব্যবহার হওয়া নানা অকেজো জিনিসপত্র আমাদের কাছে ফেলনা জিনিস। কিন্তু যদি আমরা শৈল্পিক দৃষ্টিতে তাকাই, তবে কোনো জিনিসই ফেলনা মনে হবে না। বরং সবই হয়ে উঠবে কাজের জিনিস। অনেকে ভাববেন, এসব হাবিজাবি দিয়ে কী-ই বা করার আছে। হ্যাঁ, করার আছে অনেক কিছু। ফেলে দেওয়া জিনিস থেকে তৈরি হতে পারে অসাধারণ কিছু। অন্য কোনো কাজের জিনিস কিংবা খেলনা-শোপিস!

সৃজনশীল চিন্তা থেকেই পিৎজার বাক্স, ডিমের কার্টন, আঠা পেইন্ট ইত্যাদি দিয়ে একজন তৈরি করেছেন জলদস্যুর জাহাজ। জলদস্যুর জাহাজ- সেটি দিয়ে আবার কী হবে!

ষোড়শ-সপ্তদশ শতাব্দীর মাঝামাঝি সময়ে বাংলার পূর্ব ও দক্ষিণ সীমান্তে সমুদ্রপথে এসে হাজির হতো হার্মাদ জলদস্যুরা।

পর্তুগিজ এ জলদস্যুরা বড় বড় পাল তোলা কাঠের জাহাজ নিয়ে এসে তৎকালীন বাংলায় অবাধ লুটতরাজ, অপহরণ ও নারীদের ওপর অত্যাচার চালাত। হাল আমলে, ভারত মহাসাগরে সোমালিয়ার জলদস্যুদের দেখা যায়- বিভিন্ন দেশের জাহাজে হামলা চালিয়ে লুটপাট ও নাবিকদের জিম্মি করতে। হলিউডের সিনেমা পাইরেটস অব দ্য ক্যারিবিয়ানেও দেখা মেলে জলদস্যুর পালতোলা জাহাজ।

পিজ্জার বাক্সের জাহাজ অবশ্য কোনো সাগরে দস্যুবৃত্তির জন্য নয়। ঘরে সাজিয়ে রাখার জন্য চমৎকার একটি জিনিস হতে পারে জলদস্যুর জাহাজ। সূত্র :বোরডপান্ডা ডটকম।