বাঁচতে ৯৯৯-এ ফোন করে নিজেই ধরা

প্রকাশ: ২৩ আগস্ট ২০১৯

নান্দাইল (ময়মনসিংহ) প্রতিনিধি

মোবাইল ফোনে রং নম্বরে পরিচয়। সেই পরিচয়ের পথ ধরে নান্দাইলের এক স্কুলছাত্রীকে ফুসলিয়ে ময়মনসিংহ নগরীতে নিয়ে আসে প্রেমিকরূপী যুবক। তবে মেয়ের বাবা তাদের খুঁজে বের করে দু'জনকেই নিয়ে আসেন নিজের বাড়ি। বিয়ে করতে বলেন মেয়েটিকে। তাতে রাজি না হয়ে ওই যুবক বাঁচার জন্য ফোন করে ৯৯৯-এ। পুলিশ তাকে উদ্ধারে এলে বেরিয়ে পড়ে স্কুলছাত্রীকে তার পরিকল্পিত অপহরণের ঘটনা। শেষ পর্যন্ত তার জায়গা হয়েছে থানাহাজতে। ওই যুবকের নাম রিয়াদ। তিনি নান্দাইলের উলুহাটি গ্রামের আ. রাজ্জাকের ছেলে। রিয়াদ বিবাহিত বলে জানা গেছে।

গতকাল বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় নান্দাইল মডেল থানায় গিয়ে দেখা যায়, একটি কক্ষে স্কুলছাত্রী বসে আছে। সঙ্গে তার মা-বাবা। অন্যদিকে রিয়াদকে রাখা হয়েছে হাজতখানায়। জানতে চাইলে ছাত্রী জানায়, সে একটি স্কুলের অষ্টম শ্রেণির ছাত্রী। রিয়াদের (২২) সঙ্গে সম্প্রতি তার মোবাইল ফোনের রং নম্বরে পরিচয় ঘটে। প্রতিদিনই দু'জনের মোবাইলে কথাবার্তা থেকে ভালোলাগা তৈরি হয়। বুধবার রিয়াদ তাকে ময়মনসিংহে তার এক আত্মীয়ের বাসায় নিয়ে যায়। তবে ছাত্রীটি সেখানে

গিয়ে বুঝতে পারে, সে রিয়াদের ফাঁদে পড়েছে। এদিকে মেয়েকে খুঁজে না পেয়ে তার বাবা রিয়াদকে আটক করে। রিয়াদের কথামতো ওই বাসা থেকে তাকে উদ্ধার করে বাড়িতে নিয়ে আসে। এ ঘটনায় ছাত্রীর বাবা নিজের সম্মান ক্ষুণ্ণ হওয়ার কথা ভেবে মেয়েকে বিয়ে করার জন্য রিয়াদকে প্রস্তাব দেয়। কিন্তু রিয়াদ বিয়ে করতে অস্বীকৃতি জানালে স্কুলছাত্রীর পরিবার তাকে ঘরে আটকে রাখে। এ সময় রিয়াদ তার মোবাইল দিয়ে ৯৯৯-এ ফোন করে উদ্ধারের অনুরোধ জানায়।

খবর পেয়ে নান্দাইল উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আ. রহিম সুজন পুলিশ নিয়ে মেয়ের বাড়িতে গিয়ে রিয়াদকে উদ্ধার করে। পুলিশ থানায় নিয়ে আসে তাকে।

নান্দাইল মডেল থানার ওসি (তদন্ত) আবুল হাসেম জানান, এ ঘটনায় ছাত্রীর পিতা বাদী হয়ে রিয়াদকে আসামি করে থানায় অপহরণ মামলা দায়ের করেছেন।