নবম ওয়েজবোর্ড

গেজেট প্রকাশে বাধা নেই

প্রকাশ: ২১ আগস্ট ২০১৯      

সমকাল প্রতিবেদক

সংবাদপত্র ও বার্তা সংস্থার কর্মীদের নতুন বেতন কাঠামো নির্ধারণে গঠিত নবম ওয়েজবোর্ডের গেজেট প্রকাশের বিষয়ে হাইকোর্টের দেওয়া স্থিতাবস্থার আদেশ আট সপ্তাহের জন্য স্থগিত করেছেন সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগ। প্রধান বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেনের নেতৃত্বাধীন আপিল বিভাগের চার সদস্যের বেঞ্চ গতকাল মঙ্গলবার এই আদেশ দেন। এর ফলে নবম ওয়েজবোর্ড রোয়েদাদ ঘোষণা ও গেজেট প্রকাশে আইনগত কোনো বাধা নেই বলে জানিয়েছেন সংশ্নিষ্ট আইনজীবীরা।

আদালতে রাষ্ট্রপক্ষে শুনানি করেন অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম। তার সঙ্গে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল বিশ্বজিৎ দেবনাথ ও অমিত তালুকদার। অন্যদিকে সংবাদপত্র মালিকদের সংগঠন নিউজ পেপার ওনার্স অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশের (নোয়াব) পক্ষে শুনানি করেন জ্যেষ্ঠ আইনজীবী এ এফ হাসান আরিফ; তার সঙ্গে ছিলেন আইনজীবী ইউসুফ আলী।

আদেশের পর অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম সাংবাদিকদের বলেন, হাইকোর্টের আদেশ স্থগিত হওয়ার ফলে সরকার এখন নবম ওয়েজবোর্ডের গেজেট প্রকাশ করতে পারবে। গেজেট প্রকাশ হলে মজুরি বাস্তবায়নের জন্য এটা আইন হিসেবে গণ্য হবে। অন্যদিকে নোয়াবের আইনজীবী এ এফ হাসান আরিফ বলেন, হাইকোর্টের আদেশটি আট সপ্তাহের জন্য স্থগিত হওয়ায় সরকার চাইলে এখন ওয়েজ বোর্ডের গেজেট প্রকাশ করতে পারে। তবে হাইকোর্ট এ বিষয়ে গত ৬ আগস্ট যে রুল দিয়েছিলেন তার ওপরও শুনানি হবে। অর্থাৎ বিষয়টি এখনও বিচারাধীন।

গত ২৫ জুলাই সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের সাংবাদিকদের জানান, নবম ওয়েজবোর্ডের সুপারিশ চূড়ান্ত হয়েছে। মন্ত্রিসভা অনুমোদন করলে তা গেজেট আকারে প্রকাশ করা হবে। এরই এক পর্যায়ে গত ৫ আগস্ট নতুন বেতন কাঠামোর সুপারিশ চূড়ান্ত করার প্রক্রিয়া চ্যালেঞ্জ করে হাইকোর্টে রিট করে সংবাদপত্র মালিকদের সংগঠন নোয়াব। পরদিন ওই রিটের প্রাথমিক শুনানি নিয়ে নবম ওয়েজবোর্ডের সুপারিশ বাস্তবায়নে চূড়ান্ত গেজেট প্রকাশে দুই মাসের স্থিতাবস্থা বজায় রাখার নির্দেশ দেন হাইকোর্ট। পাশাপাশি রুলও জারি করা হয়। রুলে শ্রম আইনের ১২৮ বিধি অনুযায়ী অংশীজনদের (মালিক) আপত্তি উত্থাপনের সুযোগ না দিয়ে একতরফাভাবে নবম ওয়েজবোর্ডের চূড়ান্তকরণ এবং গেজেট জারির সুপারিশ করে তা সরকারের কাছে পাঠানো কেন আইনগত কর্তৃত্ববহির্ভূত ও বেআইনি ঘোষণা করা হবে না, তা জানতে চাওয়া হয়। পরে হাইকোর্টের ওই আদেশ স্থগিত চেয়ে তথ্য সচিব, শ্রম সচিব, নবম ওয়েজবোর্ডের চেয়ারম্যান, মন্ত্রিসভা কমিটির আহ্বায়কের পক্ষে সুপ্রিম কোর্টের সংশ্নিষ্ট শাখায় ৮ আগস্ট আবেদন করা হয়। ১৪ আগস্ট ওই আবেদনটি নিষ্পত্তির জন্য প্রধান বিচারপতির নেতৃত্বাধীন আপিল বিভাগে পাঠিয়ে দেন চেম্বার বিচারপতির আদালত। এরই ধারাবাহিকতায় শুনানি শেষে গতকাল আদেশ দেন আপিল বিভাগ।