শিশুর সঙ্গে পাশবিকতা ইমাম গ্রেফতার

রংপুরে ইউপি সদস্যের ছেলের বিরুদ্ধে ধর্ষণের অভিযোগ

প্রকাশ: ১১ আগস্ট ২০১৯      

রংপুর অফিস ও মিরসরাই (চট্টগ্রাম) প্রতিনিধি

চট্টগ্রামের মিরসরাইয়ে ১৭ মাসের শিশুকে ধর্ষণের অভিযোগে মসজিদের ইমামকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। গত শুক্রবার রাতে নোয়াখালী জেলা সদর থেকে শিহাব উদ্দিন নামের ওই ব্যক্তিকে গ্রেফতার করা হয়। এদিকে রংপুরের গঙ্গাচড়া উপজেলায় ইউপি সদস্যের ছেলের বিরুদ্ধে কিশোরীকে ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে।

মিরসরাইয়ের ঘটনায় গ্রেফতার শিহাব উদ্দিন নোয়াখালী জেলা  সদরের মো. ওজিউল্যার ছেলে। মিরসরাই উপজেলার ইছাখালী ইউনিয়নের আবুরহাট বাজারের আশরাফ উদ্দিন জামে মসজিদের ইমাম হিসেবে কর্মরত ছিল সে।

শিশুটির মা জানান, ২ আগস্ট তার শিশু সন্তানকে চকলেটের লোভ দেখিয়ে শিহাব উদ্দিন ধর্ষণ করে। পরে স্থানীয় প্রভাবশালী মহল এ ঘটনায় মামলা করতে বাধা দিয়ে জোরপূর্বক স্থানীয়ভাবে বিষয়টি মীমাংসা করে দেয়। এরপর শিহাব উদ্দিন পালিয়ে যায়। এ ঘটনায় গত শুক্রবার শিশুটির বাবা বাদী হয়ে ওই ইমামের বিরুদ্ধে জোরারগঞ্জ থানায় মামলা করেন। থানার এসআই সিরাজুল ইসলাম জানান, মামলার পর অভিযান চালিয়ে অভিযুক্তকে নোয়াখালী থেকে গ্রেফতার করা হয়।

এদিকে রংপুরের গঙ্গাচড়া উপজেলায় ইউপি সদস্যের ছেলের বিরুদ্ধে কিশোরীকে ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনায় মেয়েটি বাদী হয়ে ইউপি সদস্য ও তার ছেলের বিরুদ্ধে থানায় মামলা করেছে।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, উপজেলার কোলকোন্দ ইউনিয়নের ৭ নম্বর ওয়ার্ডের সদস্য শরিফুল ইসলামের ছেলে মশিউর রহমান বিয়ের প্রলোভনে ওই কিশোরীকে একাধিকবার ধর্ষণ করে। মেয়েটি গত শুক্রবার বিয়ের দাবি নিয়ে মশিউরের বাড়িতে যায়। এ সময় ইউপি সদস্য শরিফুলসহ বাড়ির লোকজন মেয়েটিকে মারধর করে আটকে রাখে। খবর পেয়ে পুলিশ গিয়ে তাকে উদ্ধার করে। বর্তমানে মেয়েটি গঙ্গাচড়া স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসাধীন।

ইউপি সদস্য শরিফুল ইসলাম বলেন, 'ঘটনাটি ষড়যন্ত্রমূলক। আমার সুনাম ক্ষুণ্ণ করার জন্য এ ধরনের ঘটনা ঘটানো হয়েছে।' গঙ্গাচড়া মডেল থানার ওসি মশিউর রহমান বলেন, ধর্ষণের অভিযোগে মামলা হয়েছে। আসামিদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।