পর্যটক বরণে প্রস্তুত রাঙামাটি

প্রকাশ: ১১ আগস্ট ২০১৯      

রাঙামাটি অফিস

ঈদুল আজহা উপলক্ষে সপ্তাহব্যাপী ছুটিতে পর্যটকদের বরণ করতে প্রস্তুত রাঙামাটির হোটেল-মোটেলগুলো। এরই মধ্যে হোটেল-মোটেলের রুমের অধিকাংশ অগ্রিম বুকিং হয়ে গেছে বলে জানিয়েছেন হোটেল ব্যবসায়ীরা।

পর্যটন সংশ্নিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, ইট-পাথরের শহরের যান্ত্রিক জীবনের একঘেয়েমি দূর করতে ভ্রমণপিপাসু মানুষ পাহাড় আর হ্রদঘেরা প্রাকৃতিক সৌন্দর্য উপভোগ করতে ছুটে আসেন রাঙামাটিতে। ঈদের পরদিন থেকেই মূলত পর্যটকরা পরিবার-পরিজন কিংবা বন্ধু-বান্ধব নিয়ে রাঙামাটির পর্যটন স্পটগুলোতে বেড়াতে আসেন। এ ঈদে দীর্ঘ ছুটি থাকায় অধিকাংশ হোটেল-মোটেলের বেশির ভাগ রুম আগাম বুকড হয়েছে।

হোটেল মতিমহলের ম্যানেজার চন্দন দাশ জানান, ঈদের ছুটিতে তার হোটেলে শতকরা ৬০ থেকে ৭০ শতাংশ রুম অগ্রিম বুকড রয়েছে। আশা করা যাচ্ছে, ঈদের পর সব রুম বুকড হবে।

রাঙামাটি সরকারি পর্যটন হলিডে কমপ্লেক্সের ম্যানেজার সৃজন বিকাশ বড়ূয়া জানান, সপ্তাহব্যাপী ঈদের ছুটিতে তার মোটেলের রুম শতকরা ৬০ থেকে ৭০ ভাগ অগ্রিম বুকড হয়েছে। আশা করা যাচ্ছে, আবহাওয়া ভালো থাকলে পর্যটকের আগমন সন্তোষজনক হবে। তিনি আরও জানান, তার হোটেলে এবার ঈদ উপলক্ষে পর্যটকদের জন্য ২০ ভাগ ছাড় দেওয়া হচ্ছে। তবে প্যাকেজের ক্ষেত্রে  দাম একটু বাড়তি হতে পারে।

এদিকে কয়েক দিন আগে বৃষ্টিপাত ও পাহাড়ি ঢলের কারণে আকস্মিকভাবে কাপ্তাই হ্রদের পানির উচ্চতা বেড়ে ঝুলন্ত সেতু ডুবে গিয়েছিল। তবে পানি কমায় আবারও সেতুটি পর্যটকদের চলাচলের জন্য খুলে দেওয়া হয়েছে। ১৯৮৪ সালের দিকে পর্যটন করপোরেশন পর্যটকদের সুবিধার্থে ও মনোরঞ্জনের জন্য দুই পাহাড়ের মাঝখানে তৈরি করা হয় এ আকর্ষণীয় ঝুলন্ত সেতু।

রাঙামাটিতে আকর্ষণীয় স্পটের মধ্যে ঝুলন্ত সেতু ছাড়াও রয়েছে শুভলং ঝর্ণা, রাজবন বিহার, জেলা প্রশাসনের বাংলো, বীরশ্রেষ্ঠ মুন্সী আব্দুর রউফের সমাধিসৌধ, আরণ্যক পর্যটন, আসামবস্তি-কাপ্তাই সড়কের কাপ্তাই হ্রদে গড়ে ওঠা বেসরকারি পর্যটন বেরান্নে, বড়গাঙ, রান্ন্যাতুগুন এবং আদিবাসীদের শান্ত সবুজ গ্রাম ও তাদের জীবনযাত্রা। এ ছাড়াও রাঙামাটি শহরের বাইরে বাঘাইছড়ি উপজেলার সাজেকের মনোরম পর্যটন স্পট, কাপ্তাই উপজেলায় কর্ণফুলী নদীর তীরে গড়ে ওঠা আকর্ষণীয় পর্যটন স্পট, কাপ্তাই পানি বিদ্যুৎকেন্দ্র, কর্ণফুলী পেপার মিলস ও কাপ্তাই জাতীয় উদ্যান ইত্যাদি।

রাঙামাটি ট্যুরিস্ট পুলিশ রাঙামাটি জোনের পরিদর্শক মো. মকছুদ আহমেদ জানান, ঈদের ছুটিতে রাঙামাটিতে বেড়াতে আসা পর্যটকদের বাড়তি নিরাপত্তা ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে। পর্যটন কমপ্লেক্স এলাকায় পর্যটকদের জন্য হেল্প ডেস্ক থাকবে। এ ছাড়া কাপ্তাই হ্রদে পর্যটকদের নিরাপত্তার জন্য টুরিস্ট পুলিশ সার্বক্ষণিক পাহারায় থাকবে।