দুদক-টিআইবি সমঝোতা চুক্তি হচ্ছে নতুন করে

প্রকাশ: ২৮ জুলাই ২০১৯      

সমকাল প্রতিবেদক

দুর্নীতি প্রতিরোধমূলক কার্যক্রম জোরদার করতে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক) ও ট্রান্সপারেন্সি ইন্টারন্যাশনাল বাংলাদেশের (টিআইবি) মধ্যে নতুন করে সমঝোতা চুক্তি হতে যাচ্ছে। বৃহস্পতিবার টিআইবি নির্বাহী পরিচালক ড. ইফতেখারুজ্জামান দুদক চেয়ারম্যান ইকবাল মাহমুদের সঙ্গে সাক্ষাৎ করে চুক্তি নবায়নের কথা তুলে ধরেন। কমিশনের চেয়ারম্যান উভয় প্রতিষ্ঠানের চুক্তি নবায়নের বিষয়ে ইতিবাচক মনোভাব প্রকাশ করেন এ সময়।

রাজধানীর সেগুনবাগিচায় দুদকের প্রধান কার্যালয়ে দুদক চেয়ারম্যানের অফিস কক্ষে উভয়ের সাক্ষাৎ অনুষ্ঠিত হয়। এ সময় দুদক ও টিআইবির প্রতিনিধিরা উপস্থিত ছিলেন।

জানা গেছে, দুর্নীতি প্রতিরোধমূলক কার্যক্রম জোরদার করতে সমঝোতা চুক্তির মাধ্যমে দুদক-টিআইবি অনেক ক্ষেত্রে যৌথভাবে কার্যক্রম পরিচালনা করছে। উভয় প্রতিষ্ঠানের এই চুক্তির মেয়াদ প্রায় শেষ পর্যায়ে। এ অবস্থায় টিআইবি নতুন করে সমঝোতা চুক্তি করতে চায়।

ওই সাক্ষাৎ অনুষ্ঠানে দুদক চেয়ারম্যান ইকবাল মাহমুদ বলেন, 'শুধু টিআইবি নয়, কমিশন সরকারি-বেসরকারি সব প্রতিষ্ঠানের সহযোগিতা চায়। ঐক্যবদ্ধ প্রচেষ্টার মাধ্যমে দুর্নীতি প্রতিরোধ করতে হবে। সারাদেশের তরুণ শিক্ষার্থীদের নিয়ে যে ২৮ হাজার সততা সংঘ গঠন করা হয়েছে, তাদের মাঝে দুর্নীতিবিরোধী সচেতনতার জন্য বিতর্ক, রচনা প্রতিযোগিতাসহ বিভিন্ন কার্যক্রম পরিচালনা করা হচ্ছে। এসব কর্মসূচি বাস্তবায়নে সবার সহযোগিতা প্রয়োজন। টিআইবি এসব কার্যক্রমের ওপর গবেষণা করে ইমপ্যাক্ট অ্যাসেসমেন্ট করতে পারে। যাতে আমরা বুঝতে পারি, আসলে কী ঘটছে বা শিক্ষার্থীদের মনোজগতে এই প্রয়াসে কোনো ইতিবাচক পরিবর্তন ঘটছে কি-না, তা জানা দরকার। কারণ আমরা তাদের পেছনে যে অর্থ ব্যয় করছি, তা জনগণের অর্থ।'

টিআইবি নির্বাহী পরিচালক ড. ইফতেখারুজ্জামান বলেন, 'দুদকের সঙ্গে তাদের নাড়ির সম্পর্ক রয়েছে। প্রতিষ্ঠানটির সৃষ্টি থেকেই পাশে ছিল টিআইবি। দুদককে আরও শক্তিশালী করতে একসঙ্গে কাজ করতে চাই আমরা।' তিনি আরও বলেন, এটি বলা অত্যুক্তি হবে না যে, টিআইবি বর্তমান কমিশনের কাছ থেকে সর্বোচ্চ সহযোগিতা পাচ্ছে। বর্তমান চেয়ারম্যানের অকপটতা ও অন্তর্ভুক্তিমূলক কার্যক্রম প্রশংসনীয়।