রোহিঙ্গা ক্যাম্পে বিক্ষোভের মুখে মিয়ানমার প্রতিনিধিরা

প্রকাশ: ২৮ জুলাই ২০১৯      

কক্সবাজার অফিস, উখিয়া ও টেকনাফ প্রতিনিধি

রোহিঙ্গা ক্যাম্পে বিক্ষোভের মুখে মিয়ানমার প্রতিনিধিরা

মিয়ানমার প্রতিনিধি দলের সদস্যরা শনিবার কক্সবাজারের উখিয়ার কুতুপালং ক্যাম্প পরিদর্শনকালে বিভিন্ন দাবিতে রোহিঙ্গাদের বিক্ষোভ- সমকাল

বাংলাদেশ সফররত মিয়ানমারের প্রতিনিধি দলটি কক্সবাজারের উখিয়ায় রোহিঙ্গা ক্যাম্প পরিদর্শন করেছেন। এ সময় প্রতিনিধি দলের সদস্যরা রোহিঙ্গাদের সঙ্গে কথা বলেন এবং তাদের মিয়ানমারে ফিরে যাওয়ার আহ্বান জানান। তবে রোহিঙ্গারা জানিয়েছেন, মিয়ানমারে তাদের নাগরিক অধিকার দেওয়া না হলে এবং মৌলিক অধিকার নিশ্চিত না হলে তারা ফিরে যাবেন না। মিয়ানমার প্রতিনিধি দলের পরিদর্শনকালে রোহিঙ্গারা বিক্ষোভ প্রদর্শন করেছেন।

মিয়ানমারের পররাষ্ট্র সচিব মিন্ট থোয়ের নেতৃত্বে ১৯ সদস্যের প্রতিনিধি দল গতকাল শনিবার সকালে বিমানে কক্সবাজার পৌঁছেন। প্রতিনিধি দলটি দুপুরে কুতুপালং ক্যাম্পে যান। মিয়ানমার প্রতিনিধি দলটি প্রথমে রোহিঙ্গা-সংশ্নিষ্ট সরকারি কর্মকর্তাদের সঙ্গে বৈঠক করেন। এরপর রোহিঙ্গাদের একটি গ্রুপের সঙ্গে কথা বলেন। যেখানে সাত রোহিঙ্গা নারী ও ২৮ জন পুরুষ ছিলেন।

রোহিঙ্গাদের এক নেতা পরে সাংবাদিকদের জানিয়েছেন, মিয়ানমারের প্রতিনিধিরা রোহিঙ্গাদের নিজ দেশে ফিরে যেতে আহ্বান জানিয়েছেন। সেখানে কী রকম সুযোগ- সুবিধা পাবেন সে সম্পর্কে ধারণা দেন প্রতিনিধি দলের নেতা পররাষ্ট্র সচিব মিন্ট থোয়ে। এ সময় রোহিঙ্গাদের পক্ষে নানা দাবি উত্থাপন করা হয়। ওই রোহিঙ্গা নেতা বলেন, মিয়ানমারে ফিরে গেলে তাদের নাগরিক অধিকার এবং স্বাধীনভাবে চলাফেরা করার সুযোগ দেওয়ার দাবি জানিয়েছেন তারা। তবে এ ব্যাপারে মিয়ানমার প্রতিনিধি দলের নেতা কোনো আশ্বাস দেননি।

জানা গেছে, প্রত্যাবাসন ইস্যুতে বাংলাদেশে আশ্রয় নেওয়া রোহিঙ্গাদের সঙ্গে যৌথ সংলাপে বসতে সম্মত হয়েছে সফররত মিয়ানমারের প্রতিনিধি দল। তবে কখন এ সংলাপ অনুষ্ঠিত হবে তা নিশ্চিত করা হয়নি।

মিয়ানমারের প্রতিনিধি দলের উখিয়া কুতুপালং ক্যাম্প পরিদর্শনকালে রোহিঙ্গারা শান্তিপূর্ণভাবে বিক্ষোভ প্রদর্শন করেন। এ সময় রোহিঙ্গারা বিভিন্ন প্ল্যাকার্ড বহন করেন। সেখানে তাদের নানা দাবির কথা লেখা ছিল। বিক্ষোভে অংশ নেওয়া নুর আলম ও আমির হোসেন বলেন, মিয়ানমার প্রতিনিধি দল নাটক করতে এসেছে। আমরা অবশ্যই নিজ দেশে ফিরে যেতে চাই, তবে ফেরত পাঠানোর আগে মিয়ানমারে তাদের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে সেখানে জাতিসংঘ বাহিনী মোতায়েন, রোহিঙ্গা পরিচয়ে তাদের নাগরিকত্ব, নিজ বাড়ি, জমি ও গ্রামে ফেরার নিশ্চয়তা, মিয়ানমারের অন্য জাতিগোষ্ঠীর মতো সমান মর্যাদা দেওয়া এবং হত্যা, ধর্ষণ ও জাতিগত নিধনের বিচার চাই। তারা বলছে, এসব দাবি না মানলে তারা যাবে না।

সংশ্নিষ্ট সূত্র জানিয়েছে, ক্যাম্প পরিদর্শনকালে রোহিঙ্গাদের বিক্ষোভের মুখে পড়লেও মিয়ানমার প্রতিনিধি দলের সদস্যরা এ বিষয়ে কোনো মন্তব্য করেনি। বরং হাসিমুখে তারা রোহিঙ্গাদের সঙ্গে কথা বলেন। প্রতিনিধি দলটির আজ রোববারও রোহিঙ্গা ক্যাম্প পরিদর্শন করার কথা রয়েছে। সংশ্নিষ্ট সূত্র জানিয়েছে, আজ রোববার তারা উখিয়ায় আশ্রয় নেওয়া তিন শতাধিক হিন্দু পরিবারের ক্যাম্প পরিদর্শন করবেন। মিয়ানমারের প্রতিনিধি দল এ নিয়ে তৃতীয়বারের মতো রোহিঙ্গা ক্যাম্প পরিদর্শন করল।

এদিকে, দুপুরে একই সঙ্গে দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার আঞ্চলিক জোট আসিয়ানের দুর্যোগ ব্যবস্থাপনাবিষয়ক আহা

সেন্টারের একটি প্রতিনিধি দলও উখিয়ায় রোহিঙ্গা শিবির পরিদর্শন করে। প্রতিনিধি দলের সদস্যরা রোহিঙ্গাদের সঙ্গে কথা বলেন।

কুতুপালং ক্যাম্পের রোহিঙ্গা নেতা মুহিব উল্লাহ বলেছেন, আসিয়ান প্রতিনিধি দলকে তারা জানিয়েছেন মিয়ানমারে তাদের নাগরিক অধিকারসহ মৌলিক অধিকার না পেলে রোহিঙ্গারা ফিরে যাবে না। রোহিঙ্গাদের ওপর মিয়ানমার সেনাবাহিনীর গণহত্যার বর্ণনা দেওয়া হয়েছে আসিয়ান প্রতিনিধি দলকে। রোববার সকালে আবারও রোহিঙ্গাদের সঙ্গে বৈঠকে বসার কথা রয়েছে আহা সেন্টারের প্রতিনিধি দলের।

শরণার্থী ত্রাণ ও প্রত্যাবাসন কমিশনার মো. আবুল কালাম বলেছেন, রোহিঙ্গাদের রাখাইনে ফেরাতে আলোচনার মাধ্যমে তাদের বোঝানোর লক্ষ্য নিয়ে মিয়ানমার প্রতিনিধি দল ক্যাম্প পরিদর্শন করছে। মিয়ানমার সরকার সেখানে রোহিঙ্গাদের জন্য যেসব কাজ করছে, সেগুলো রোহিঙ্গাদের কাছে তুলে ধরেন প্রতিনিধি দলের সদস্যরা।