বাবার মন্তব্য

মিন্নি হয়তো আর জীবিত ফিরবে না

প্রকাশ: ২৮ জুলাই ২০১৯      

বরগুনা প্রতিনিধি

বরগুনায় রিফাত শরীফ হত্যায় গ্রেফতার নিহতের স্ত্রী আয়শা সিদ্দিকা মিন্নির বাবা অভিযোগ করেছেন, জেলখানায়ও তিনি মেয়ের সঙ্গে মন খুলে কথা বলতে পারছেন না। সেখানেও সাদা পোশাকে গোয়েন্দা পুলিশ অবস্থান নেয়। মিন্নির পরিবারকে সার্বক্ষণিক নজরদারিতে রাখছে গোয়েন্দা পুলিশ। সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলতে গেলেও তারা কাছে গিয়ে দাঁড়িয়ে থাকেন।

গতকাল শনিবার সকালে কারাগারে মিন্নির সঙ্গে সাক্ষাৎ শেষে এসব অভিযোগ করেন তার বাবা মোজাম্মেল হোসেন কিশোর। তবে পুলিশ এসব অভিযোগ অস্বীকার করেছে। শারীরিক অসুস্থতার কারণে মিন্নির জীবন নিয়ে শঙ্কাও প্রকাশ করেন মোজাম্মেল। সাক্ষাৎ শেষে তিনি সাংবাদিকদের বলেন, 'মিন্নির শারীরিক অবস্থা ভালো না। আমি হয়তো মেয়েকে আর জীবিত অবস্থায় পাব না। সে ভারসাম্যহীন হয়ে পড়েছে।'

এ বিষয়ে বরগুনা পুলিশ সুপার মারুফ হোসেন বলেন, এটা সম্পূর্ণই জেল সুপারের ব্যাপার। গোয়েন্দারা মিন্নির পরিবারকে সার্বক্ষণিক নজরদারিতে রাখছেন কি-না জানতে চাইলে তিনি বলেন, পুলিশ পেশাগত দায়িত্ব পালন করছে। বরগুনা জেলা কারাগারের সুপার আনোয়ার হোসেন বলেন, মিন্নির  পরিবারকে আধা ঘণ্টা সময় দেওয়া হয়েছে কথা বলার জন্য এবং তারা কথা বলেছেন। তবে কারাগারের বাইরে গোয়েন্দা পুলিশ থাকবে কি-না এটা তাদের ব্যাপার নয়। জেল সুপার বলেন, মিন্নি বর্তমানে সুস্থই আছেন। তবে তার পরিবারের সদস্যরা সাক্ষাৎ করতে এসে বিভিন্ন কথা শিখিয়ে দেওয়ার চেষ্টা করেন।

রিফাত হত্যার প্রধান সাক্ষী মিন্নিকে গত ১৬ জুলাই নাটকীয়ভাবে গ্রেফতার করে পুলিশ। পরে তাকে রিমান্ডে নেওয়া হয়। এরপর তিনি ১৬৪ ধারায় জবানবন্দি দেন। তবে মিন্নির পরিবারের দাবি, পুলিশ জিজ্ঞাসাবাদের নামে মিন্নিকে শারীরিক ও মানসিক নির্যাতন করেছে। এমনকি ভয়ভীতি ও চাপ প্রয়োগ করে আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিতে বাধ্য করেছে। পুলিশ এসব অভিযোগ নাকচ করে দিয়েছে।