পাঁচ জেলায় দুই শিশুসহ ছয়জন ধর্ষণের শিকার

প্রকাশ: ২৮ জুলাই ২০১৯      

সমকাল ডেস্ক

পাঁচ জেলায় দুই শিশুসহ ছয়জন ধর্ষণের শিকার হয়েছে। এর মধ্যে চাঁপাইনবাবগঞ্জে ৬ বছর ও ভোলার চরফ্যাসনে ৭ বছরের ২ শিশুকে ধর্ষণ করেছে দুই বৃদ্ধ। নোয়াখালীতে এক কলেজছাত্রী ও একই জেলার হাতিয়ায় এক দাখিল পরীক্ষার্থী ধর্ষিত হয়েছে। এ ছাড়া বগুড়ার শেরপুরে এক স্কুলছাত্রী ও গাজীপুরের কালিয়াকৈরে এক কিশোরী ধর্ষণের ঘটনা ঘটেছে।

চাঁপাইনবাবগঞ্জ :পৌর শহরের স্টেশন সংলগ্ন রেলবাগান এলাকায় ৬ বছরের শিশুকে ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে ৬০ বছরের এক বৃদ্ধের বিরুদ্ধে। এ ঘটনায় শুক্রবার রাতে শিশুটির মা বাদী হয়ে সদর থানায় মামলা দায়ের করেছেন। তবে এখন পর্যন্ত অভিযুক্ত সফিকুল ইসলামকে গ্রেফতার করতে পারেনি পুলিশ। সদর থানার পরিদর্শক (তদন্ত) কবির হোসেন জানান, এ ঘটনায় শিশুটির মা বাদী হয়ে সফিকুলের বিরুদ্ধে ধর্ষণ মামলা করেছেন। গতকাল শনিবার চাঁপাইনবাবগঞ্জ সদর হাসপাতালে শিশুটির ডাক্তারি পরীক্ষা হয়েছে। অভিযুক্তকে গ্রেফতারে অভিযান চলছে।

চরফ্যাসন (ভোলা) :চরফ্যাসনের হাজারীগঞ্জ ইউনিয়নে ৭ বছরের শিশু ধর্ষণের ঘটনা ঘটেছে। শুক্রবার দুপুরের এ ঘটনায় শিশুটির বাবা একজনকে আসামি করে শশীভূষণ থানায় মামলা করেছেন। এ ঘটনায় পুলিশ আসামি ফজলুল হক দফাদারকে (৬০) গ্রেফতার করে গতকাল আদালতে সোপর্দ করেছে।

শিশুরটির বাবা এজাহারে দাবি করেন, ঘটনার দিন দুপুরে তার মেয়ে বাড়ি সংলগ্ন রাস্তায় খেলছিল। এ সময় ফজলুল হক দফাদার তাকে চকলেট দেওয়ার প্রলোভন দিয়ে পাশের বাগানে নিয়ে ধর্ষণ করে। ওসি মনিরুল ইসলাম জানান, শিশুটিকে ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য ভোলা সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

নোয়াখালী :নোয়াখালী সদরে এক কলেজ শিক্ষার্থী ও জেলার হাতিয়া উপজেলায় এক দাখিল পরীক্ষার্থী ধর্ষণের শিকার হয়েছে। এ দুটি ঘটনায় থানায় অভিযোগ দায়ের হলে পুলিশ অভিযান চালিয়ে গতকাল শনিবার সকালে দুই ধর্ষককে গ্রেফতার করে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠিয়েছে।

জানা যায়, নোয়াখালী সরকারি কলেজের এক শিক্ষার্থীর সঙ্গে অরুণ চন্দ্র সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের দপ্তরি মাশায়েফ উদ্দিন রাজুর পরিচয় ছিল। এর সূত্র ধরে ওই শিক্ষার্থীকে অরুণ চন্দ্র স্কুল ছুটির পর দেখা করার কথা বলে। মেয়েটি এলে রাজু বিদ্যালয়ের একটি কক্ষে তাকে ধর্ষণ করে।

এদিকে নোয়াখালীর দ্বীপ উপজেলা হাতিয়ার চরকিং ইউনিয়নের একটি গ্রামে বিয়ের প্রলোভনে এক দাখিল পরীক্ষার্থীকে তার ঘরে ঢুকে ধর্ষণ করার অভিযোগ উঠেছে মেয়েটির প্রেমিক নুশাদ উদ্দিনের বিরুদ্ধে। সে চরকিং ইউনিয়নের উত্তর বোয়ালীয়া গ্রামের ফারুক উদ্দিনের ছেলে।

শেরপুর (বগুড়া) :বগুড়ার শেরপুর উপজেলায় এক স্কুলছাত্রী গণধর্ষণের শিকার হয়েছে। ওই ছাত্রী উপজেলার একটি বিদ্যালয়ে সপ্তম শ্রেণির ছাত্রী। এ ঘটনায় অভিযান চালিয়ে দুই ধর্ষককে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। তারা হলো- উপজেলার বিশ্বা পূর্বপাড়া গ্রামের দীজেন্দ্রনাথ তালুকদারের ছেলে দীপক কুমার তালুকদার ও গিরেন্দ্রনাথ তালুকদারের ছেলে পীযূষ তালুকদার।

মামলার এজাহার সূত্রে জানা যায়, গত ১৭ জুলাই বিকেলে এক বান্ধবীর বাড়ির উদ্দেশে নিজ বাড়ি থেকে বের হয় ওই স্কুলছাত্রী। পথে সবুজ কুমার তালুকদার তাকে ডেকে কৌশলে দীপকের বাড়িতে নিয়ে যায়। এ সময় তার বাড়িতে কেউ ছিল না। এই সুযোগে তিনজন মিলে ওই ছাত্রীকে ধর্ষণ করে। মামলার পর দুইজনকে গ্রেফতার করতে পারলেও পুলিশ সবুজকে গ্রেফতার করতে পারেনি।

কালিয়াকৈর (গাজীপুর) :গাজীপুরের কালিয়াকৈরে এক কিশোরীকে ধর্ষণের অভিযোগে শনিবার সকালে পুলিশ দীন ইসলাম নামে এক যুবককে গ্রেফতার করেছে। ওই কিশোরী তার মায়ের সঙ্গে কালিয়াকৈরের বড়ইছুটি এলাকায় বেড়াতে এসে গত শুক্রবার বিকেলে ধর্ষণের শিকার হয়। গতকাল মেয়ের মা থানায় মামলা করেন।