পুলিশের তাড়া খেয়ে নদীতে ঝাঁপ যুবকের মৃত্যু

প্রকাশ: ০৭ জুলাই ২০১৯      

নাটোর প্রতিনিধি

নাটোরের বাগাতিপাড়ায় পুলিশের তাড়া খেয়ে বড়াল নদীতে ঝাঁপ দিয়ে আজিজুল ইসলাম (২৮) নামে এক যুবকের মৃত্যু হয়েছে। শনিবার দুপুরে দয়ারামপুর ইউনিয়নের চন্দ্রখইর এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। আজিজের মৃতদেহ পাশের বড়াইগ্রাম উপজেলার রামাগাড়ি এলাকা থেকে উদ্ধার করা হয়। তবে পুলিশ দাবি করছে, তাড়া খেয়ে নয়, নদীর শেওলায় জড়িয়ে তার মৃত্যু হয়েছে। আজিজ উপজেলার চন্দ্রখইর গ্রামের সিরাজুল ইসলাম সেখের ছেলে।

নিহতের পরিবার ও এলাকাবাসী সূত্রে জানা যায়, শনিবার দুপুর ২টার দিকে চন্দ্রখইর এলাকায় পুলিশ মাদকবিরোধী অভিযান চালানোর সময় আজিজ পাশের বিদ্যুৎনগর বাজার থেকে ওই পথ দিয়ে বাড়ি ফিরছিলেন। এ সময় পুলিশ মাদক ব্যবসায় জড়িত থাকার বিষয়ে তাকে চ্যালেঞ্জ করে। কথোকথনের একপর্যায়ে আজিজ দৌড়ে পালনোর চেষ্টা করেন এবং বড়াল নদীতে ঝাঁপ দেন।

নিহতের বড় ভাই রাশিদুল ইসলাম জানান, বাগাতিপাড়া থানা পুলিশের এসআই সাজ্জাদ ও তার সঙ্গে থাকা  অপর একজন কনস্টেবল তার ছোট ভাই আজিজুলকে তাড়া দিয়েছিল। ওই তাড়া খেয়েই তার ছোট ভাইয়ের মৃত্যু হয়েছে। এ বিষয়ে তারা মামলার প্রস্তুতি নিচ্ছেন বলে জানান।

দয়ারামপুর ফায়ার স্টেশনের লিডার রওশন আলী জানান, তারা ঘটনাস্থলে যাওয়ার আগেই স্থানীয়রা আজিজের মৃতদেহ উদ্ধার করে।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, এ ঘটনায় এলাকায় উত্তেজনা সৃষ্টি হয়। স্থানীয় জনতা পুলিশের বিরুদ্ধে বিক্ষোভ প্রদর্শন করে। পরিস্থিতি সামাল দিতে নাটোর থেকে অতিরিক্ত পুলিশ এনে ঘটনাস্থলে মোতায়েন করা হয়।

বাগাতিপাড়া থানার ওসি সিরাজুল ইসলাম পিপিএম জানান, মরদেহ ময়নাতদন্তের জন্য নাটোর আধুনিক হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে। নদী পারাপারের সময় শেওলায় আটকে আজিজুল ইসলামের মৃত্যু হয়েছে বলে প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে। নদীর যে স্থান থেকে আজিজের লাশ উদ্ধার করা হয়েছে, সেখানে এর আগেও গরু-মহিষ শেওলায় আটকে মারা গেছে।

পুলিশের তাড়া খেয়ে মৃত্যুর বিষয়ে জানতে চাইলে ওসি বলেন, তদন্ত শেষে বিস্তারিত জানা যাবে।