বগুড়ায় হত্যা মামলায় বাবা ও দুই ছেলেসহ পাঁচজনের মৃত্যুদণ্ড

প্রকাশ: ১৯ এপ্রিল ২০১৯

বগুড়া ব্যুরো

বগুড়ায় পূর্ববিরোধের জের ধরে ইয়াছিন আলী মোল্লা নামে এক মুক্তিযোদ্ধাকে কুপিয়ে হত্যার দায়ে বাবা, দুই ছেলে ও চাচাসহ পাঁচজনকে মৃত্যুদণ্ড দিয়েছেন আদালত। গতকাল বৃহস্পতিবার বগুড়া জেলা ও দায়রা জজ নরেশ চন্দ্র সরকার এ রায় দেন।

মৃত্যুদণ্ডাদেশপ্রাপ্তরা হলেন- বগুড়ার গাবতলী উপজেলার বাহাদুরপুর গ্রামের ইসমাইল হোসেন, তার দুই ছেলে মামুন ও টুটুল, ইসমাইলের ছোট ভাই আব্দুর রহিম এবং একই এলাকার ময়েন মোল্লার ছেলে সিরাজুল ইসলাম। এ ছাড়া শিপন ও শাহজাহান আলী নামে দু'জনকে ৭ বছর করে কারাদণ্ড এবং রওশন আলী নামে একজনকে এক বছরের কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছে। অভিযোগ প্রমাণ না হওয়ায় অন্যদের বেকসুর খালাস দেওয়া হয়।

মামলা সূত্রে জানা যায়, ২০০৬ সালের ৩ জুন বাহাদুরপুর গ্রামে 'আশার আলো' নামে একটি সঞ্চয় সমিতির বার্ষিক

হিসাব-নিকাশের সময় টাকা ছিনিয়ে নিতে হানা দেয় দুর্বৃত্তরা। এতে বাধা দিলে নিহত ইয়াসিন আলী মোল্লার ভাই শফিকুল ইসলাম মিন্টুকে ছুরিকাঘাত করা হয়। এ ঘটনায় ইয়াসিন আলী বাদী হয়ে ৯ জনের বিরুদ্ধে মামলা করেন। মামলার আসামিরা ১৩ জুন আদালত থেকে জামিনে বের হন। তারা বিষয়টি নিয়ে ইয়াসিন আলীর ওপর ক্ষিপ্ত হয়ে ওঠেন। ১৭ জুন সন্ধ্যায় ২০-২৫ জন বাড়িতে হামলা চালিয়ে ইয়াসিন আলীকে কুপিয়ে হত্যা করে। এ ঘটনায় ইয়াসিন আলীর স্ত্রী আনোয়ারা বেগম বাদী হয়ে

১৯ জনের নাম উল্লেখসহ অজ্ঞাত ৬ জনের নামে থানায় মামলা করেন। পুলিশ ১২ জনকে গ্রেফতার করে। মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা ৩ মাস পর ৯ সেপ্টেম্বর আদালতে ১৪ জনের বিরুদ্ধে চার্জশিট দেন। দীর্ঘ ১৩ বছর ধরে বিচার প্রক্রিয়া শেষে গতকাল রায় ঘোষণা করা হয়।

মামলায় দণ্ডাদেশপ্রাপ্ত সবাই জেলহাজতে আছেন। সরকার পক্ষে মামলাটি পরিচালনা করেন পিপি অ্যাডভোকেট আব্দুল মতিন।