দুর্যোগ মোকাবেলায় উদ্ভাবনী ল্যাবের ১০ ধারণা

প্রকাশ: ১৯ এপ্রিল ২০১৯

দুর্যোগ মোকাবেলায় দশটি উদ্ভাবনী ধারণা তুলে ধরেছে উদ্ভাবনী ল্যাব বাংলাদেশ। গতকাল বৃহস্পতিবার সকাল ১০টায় ঢাকা ক্লাবের স্যামসন এইচ চৌধুরী হল প্রাঙ্গণে তারা প্রদর্শনীর মাধ্যমে ধারণাগুলো তুলে ধরে।

উদ্ভাবনী ল্যাব বাংলাদেশের যাত্রা শুরু হয় ২০১৭ সালের ১৭ অক্টোবর। প্রতিষ্ঠানটি স্বাস্থ্য, নির্মিত পরিবেশ, যোগাযোগ ব্যবস্থা ও সামাজিক উদ্যোগ খাতে উদ্ভাবনী ধারণার খোঁজে- নিরাপদ সমাজের জন্য উদ্ভাবন- শিরোনামে একটি ক্যাম্পেইন শুরু করে। ২০১৭ সালের ২৫ ডিসেম্বর থেকে ২০১৮ সালের ৩১ জানুয়ারি পর্যন্ত চলে এই ক্যাম্পেইন। এরপর বিভিন্ন প্রক্রিয়ার মাধ্যমে নির্ধারণ করা হয় বাছাইকৃত সেরা ১২ উদ্ভাবনী ধারণা। সেখান থেকে ১০টি ধারণা চূড়ান্ত করা হয়। উদ্ভাবনী ল্যাব বাংলাদেশের ব্যবস্থাপক ডা. ফুয়াদুল ইসলাম জানান, চূড়ান্ত বাছাইকৃত ১০ জন উদ্ভাবককে তাদের প্রকল্প বাস্তবায়নে গবেষণা ও অন্যান্য কাজের জন্য আর্থিক ও কারিগরি সহায়তা দেওয়া হয়েছে।

গতকাল অনুষ্ঠানে সংসদ সদস্য সাবের হোসেন চৌধুরী বলেন, দুর্যোগ ব্যবস্থাপনার অবকাঠামোর উন্নয়ন এবং জনগণকে দুর্যোগের প্রকোপ থেকে রক্ষার জন্য এ ধরনের উদ্ভাবনী ল্যাবের প্রতিষ্ঠা ও উদ্ভাবনী ধারণা বাংলাদেশের জন্য অত্যন্ত আবশ্যক।

এ সময় অন্যদের মধ্যে বক্তব্য দেন দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা বিভাগের পরিচালক মো. আবু সায়েদ মোহাম্মাদ হাসিম, ঢাকা কমিউনিটি হাসপাতাল ট্রাস্টের চেয়ারম্যান অধ্যাপক কাজী কামরুজ্জামান প্রমুখ।

ঢাকা কমিউনিটি হাসপাতাল, ভারতের সিডস টেকনিক্যাল সার্ভিস, বেলজিয়ামের সেন্টার ফর রিসার্চ অন দি এপিডেমোলোজি, অস্ট্রেলিয়ার ইউনিভার্সিটি অব নিউ সাউথ ওয়েলস এবং এশিয়ান ডিজাস্টার রিডাকশন অ্যান্ড রেসপন্স নেটওয়ার্ক এই পাঁচ সহযোগী প্রতিষ্ঠানের সম্মিলিত উদ্যোগে গঠিত উদ্ভাবনী ল্যাব বাংলাদেশ। এটি ইউকেএইডের অর্থায়নে এবং স্মার্ট নেটওয়ার্ক ও সিডিএসি নেটওয়ার্কের সহ ব্যবস্থাপনায় পরিচালিত গ্লোবাল ল্যাবের একটি অংশ। সংবাদ বিজ্ঞপ্তি।