প্রধানমন্ত্রীর ব্রুনেই সফরে ৬ সমঝোতা স্মারক সই হবে

প্রকাশ: ১৯ এপ্রিল ২০১৯

সমকাল প্রতিবেদক

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ব্র্রুনাই সফরে দেশটির সঙ্গে ছয়টি সমঝোতা স্মারক (এমওইউ) সই হতে পারে। ব্রুনাইয়ের সুলতান হাজি হাসানাল বলকিয়ার আমন্ত্রণে তিন দিনের সফরে রোববার এই সফরে যাচ্ছেন বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী। পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ কে আব্দুল মোমেন গতকাল বৃহস্পতিবার ঢাকায় সংবাদ সম্মেলনে প্রধানমন্ত্রীর এই সফরের তথ্য তুলে ধরেন।

পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, কৃষি, শিল্প ও সংস্কৃতি, যুব ও ক্রীড়া, মৎস্যসম্পদ, প্রাণিসম্পদ ও জ্বালানি খাতে সহযোগিতার বিষয়ে সমঝোতা স্মারকগুলো সই হওয়ার কথা রয়েছে। পাশাপাশি দুই দেশের কূটনীতিক ও সরকারি কর্মকর্তাদের ভিসা ছাড়াই ভ্রমণের সুযোগ দিতে কূটনৈতিক নোট বিনিময় হতে পারে। ব্রুনাই আসিয়ানের সদস্য হওয়ায় মিয়ানমারের ওপর প্রভাব বিস্তারে সক্ষম। তাই প্রধানমন্ত্রীর এই সফরে রোহিঙ্গা সংকট নিয়েও আলোচনা হতে পারে।

পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সচিব (বাইল্যাটারাল) কামরুল আহসান বলেন, ব্রুনাই বিশ্বের অন্যতম বিনিয়োগকারী। বাংলাদেশ দেশটির বিনিয়োগ পাওয়ার বিষয়ে আশাবাদী। ব্রুনাই ও বাংলাদেশের দ্বিপক্ষীয় বাণিজ্য মাত্র ১০ লাখ ডলারের মতো।

সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়, স্থানীয় সময় রোববার বিকেল পৌনে ৩টায় প্রধানমন্ত্রী ব্রুনাইয়ের রাজধানী বন্দর সেরি বেগওয়ানের ব্রুনাই আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে পৌঁছবেন। দেশটির যুবরাজ হাজি আল মুহতাদি বিল্লাহ বিমানবন্দরে তাকে স্বাগত জানাবেন। সেখান থেকে মোটর শোভাযাত্রা

সহকারে প্রধানমন্ত্রীকে নেওয়া হবে অ্যাম্বায়ার হোটেল অ্যান্ড কান্ট্রি ক্লাবে। সফরে এই হোটেলেই অবস্থান করবেন শেখ হাসিনা। প্রথম দিন

ওই হোটেলের বলরুমে প্রবাসী

বাংলাদেশিদের দেওয়া সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে যোগ দেবেন প্রধানমন্ত্রী।

পরে বাংলাদেশ হাইকমিশনারের দেওয়া নৈশভোজে যোগ দেবেন তিনি। দ্বিতীয় দিন সোমবার প্রধানমন্ত্রী সুলতান বলকিয়ার সরকারি বাসভবন ইস্তানা নুরুল ইমানের চেরাদি লায়লা কেনচানায় সুলতান ও রাজপরিবারের সদস্যদের সঙ্গে মিলিত হবেন। এরপর সুলতানের সঙ্গে দ্বিপক্ষীয় বৈঠক করবেন তিনি। শেষে সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষরিত হবে। এ ছাড়া আরও কিছু কর্মসূচি পালন শেষে শেখ হাসিনা মঙ্গলবার ঢাকায় পৌঁছবেন।