নতুন পায়ে ঘুরে দাঁড়ানোর স্বপ্ন রাসেলের

প্রকাশ: ১৯ এপ্রিল ২০১৯

নিজস্ব্ব প্রতিবেদক, সাভার

'এক বছর আগের কথা মনে পড়লে গা শিউরে ওঠে। তখন মনে হয়েছিল যেন মরে যাই। পা লাগানোর পর আবার আগের জীবনের কথা মনে পড়ছে। আজ থেকে আমি আগের মতো হাঁটতে পারব। আশা করি আমি আবার উপার্জন করতে পারব। নিজের কাজের জায়গায় আবার ফিরে যেতে চাই, যদি আমাকে সুযোগ দেওয়া হয়।' গতকাল বৃহস্পতিবার সাভারের পক্ষাঘাতগ্রস্তদের পুনর্বাসন কেন্দ্রে (সিআরপি) কৃত্রিম পা সংযোজনের পর এভাবেই অনুভূতি প্রকাশ করেন রাসেল। গত বছরের ২৮ এপ্রিল গ্রিন লাইন পরিবহনের বাসের চাপায় তিনি একটি পা হারান। তবে কৃত্রিম পা লাগানোর পর জীবনে ঘুরে দাঁড়ানোর স্বপ্ন দেখছেন তিনি। গতকাল সকালে রাসেলের কৃত্রিম পা সংযোজন করেন সিআরপির কৃত্রিম অঙ্গ সংযোজন বিভাগের প্রধান মোহাম্মদ শফিক। নতুন পা লাগানোর পর ক্রাচ ছাড়া উঠে দাঁড়ান রাসেল। ওই সময় তিনি বলেন, সিআরপিতে এসে তিনি আগের জীবন খুঁজে পেয়েছেন। তিনি সিআরপি ও সংস্থার সব কর্মকর্তা-কর্মচারীকে ধন্যবাদ জানান।

চিকিৎসক মোহাম্মদ শফিক বলেন, রাসেলকে সিআরপির পক্ষ থেকে বিনামূল্যে সুইজারল্যান্ডের প্রযুক্তির পা লাগিয়ে দেওয়া হয়েছে। কয়েকদিন আগে তার পা পরীক্ষা করে দেখা হয়েছে। পরীক্ষা-নিরীক্ষা শেষে তার কৃত্রিম পা সংযোজন করা হলো। তিনি আরও বলেন, কৃত্রিম পা নিয়ে স্বাভাবিক জীবনে ফিরে আসতে রাসেলের প্রায় চার সপ্তাহ সময় লাগবে। এ সময়ে নতুন পা দিয়ে তার চলাফেরাসহ দৈনন্দিন কাজের বিষয়গুলো অনুশীলন করানো হবে।

সিআরপির নির্বাহী পরিচালক শফিকুল ইসলাম বলেন, রাসেলের দুর্ঘটনায় সবার মতো সিআরপিও এগিয়ে এসেছে। তাকে এখানকার সব সুবিধা দেওয়া হবে।