একই দিনে দুদকের দুই অফিসে তলব বিআইডব্লিউটিএর সিবিএ নেতাকে

প্রকাশ: ১৯ এপ্রিল ২০১৯

সমকাল প্রতিবেদক

বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌপরিবহন কর্তৃপক্ষের (বিআইডব্লিউটিএ) সিবিএর সাধারণ সম্পাদক রফিকুল ইসলামকে একই দিনে ঢাকা ও চট্টগ্রাম কার্যালয়ে হাজির হতে বলেছে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)। প্রতিষ্ঠানটির ঢাকা-১ সমন্বিত জেলা কার্যালয় ও চট্টগ্রাম-১ সমন্বিত জেলা কার্যালয় রফিকুল ইসলামের বিরুদ্ধে পৃথক অভিযোগ অনুসন্ধান করছে।

সূত্রমতে, ঢাকা-১ সমন্বিত জেলা কার্যালয় ও চট্টগ্রাম-১ সমন্বিত জেলা কার্যালয় থেকে পাঠানো পৃথক দুটি পত্রেই বিআইডব্লিউটিএর নারায়ণগঞ্জ নদীবন্দরের টোল আদায়কারী রফিকুল ইসলামকে ২৩ এপ্রিল প্রয়োজনীয় কাগজসহ উপস্থিত হতে বলা হয়েছে। তবে দুই অফিসেই তাকে সকাল ১০টায় হাজির হতে বলা হয়। এ অবস্থায় একই দিন ও একই সময়ে তিনি দুটি পৃথক স্থানে কীভাবে উপস্থিত হবেন- সেটি নিয়ে প্রশ্ন উঠেছে।

রফিকুলকে পাঠানো দুদকের চিঠি পর্যালোচনায় দেখা গেছে, ৮ এপ্রিল দুদকের চট্টগ্রাম-১ সমন্বিত জেলা কার্যালয় সহকারী পরিচালক ও অনুসন্ধানকারী কর্মকর্তা জাফর আহমেদ স্বাক্ষরিত চিঠিতে রফিকুলকে ২৩ এপ্রিল সকাল ১০টায় হাজির হতে বলা হয়েছে। ওই চিঠিতে বলা হয়েছে, নারায়ণগঞ্জে দেড় কোটি টাকা ব্যয়ে বাড়িসহ জমি ক্রয় ও মানিকগঞ্জে জমি ক্রয়সহ অবৈধ সম্পদ অর্জনের অভিযোগের অনুসন্ধান চলছে। ওই অনুসন্ধানের অংশ হিসেবেই রফিকুলকে স্ত্রী ও তার আয়কর নথির অনুলিপি ও সংশ্নিষ্ট দলিল নিয়ে ওইদিন চট্টগ্রাম কার্যালয়ে উপস্থিত হতে হবে।

অন্যদিকে রফিকুল ইসলামের বিরুদ্ধে দুদকের প্রধান কার্যালয়ে আরেকটি অভিযোগেরও অনুসন্ধান চলছে। এ অনুসন্ধানের অংশ হিসেবে ১৬ এপ্রিল দুদকের ঢাকা-১ সমন্বিত জেলা কার্যালয়ের উপ-সহকারী পরিচালক মোহাম্মদ নুর আলম সিদ্দিকী স্বাক্ষরিত চিঠিতে তাকে ২৩ এপ্রিল সকাল ১০টায় কার্যালয়ে হাজির হতে বলা হয়। চিঠিতে বলা হয়, সামান্য কর্মচারী হয়েও কোটি কোটি টাকার অবৈধ সম্পদ অর্জনের অভিযোগ রয়েছে তার বিরুদ্ধে।

এই চিঠিতে আরও বলা হয়, এর আগেও রফিকুলকে দুদকে হাজির হয়ে বক্তব্য দিতে চিঠি দেওয়া হলেও তিনি হাজির হননি। ১৩ ফেব্রুয়ারি তাকে সম্পদ বিবরণী জমা দেওয়ার জন্য নোটিশ দেওয়া হয়।