বাড্ডায় 'বন্দুকযুদ্ধে' নিহত অমিতের লাশ নিয়ে গেছে পরিবার

প্রকাশ: ০৭ জুলাই ২০১৮      

সমকাল প্রতিবেদক

রাজধানীর বাড্ডা এলাকায় ডিবি পুলিশের সঙ্গে 'বন্দুকযুদ্ধে' নিহত দুই সন্ত্রাসীর মধ্যে একজনের লাশ নিয়ে গেছেন স্বজনরা। গতকাল শুক্রবার ঢাকা মেডিকেল কলেজ মর্গে মাহবুব আলম অমিতের লাশ শনাক্ত করেন তার বাবা ফিরোজ আহমেদ ও স্ত্রী যূথী। তাদের গ্রামের বাড়ি মুন্সীগঞ্জের লৌহজং উপজেলার মীরের হাওলায়। অন্যদিকে আরেক সন্ত্রাসী নুরুল ইসলাম সানির লাশ শনাক্ত করতে গতকাল সন্ধ্যা পর্যন্ত স্বজনরা মর্গে যাননি।

অমিতের বাবা ফিরোজ আহমেদ জানান, মিরপুর-১১ নম্বর সেকশনে পরিবার নিয়ে থাকত অমিত। সে একটি বেসরকারি কোম্পানিতে চাকরি করত। গত বুধবার সন্ধ্যায় বাসা থেকে বের হওয়ার পর সে নিখোঁজ ছিল। গতকাল ময়নাতদন্ত শেষে অমিতের লাশ গ্রামের বাড়ি নেওয়া হয়।

গত ১৫ জুন দুপুরে জুমার নামাজ শেষে বাড্ডার বায়তুস সালাম জামে মসজিদ থেকে বের হওয়ার পর আওয়ামী লীগ নেতা ফরহাদ আলীকে গুলি করে দুর্বৃত্তরা। ফরহাদ হত্যার সন্দেহভাজন আসামি ছিল নুরুল ও অমিত। বৃহস্পতিবার ভোরে বাড্ডার সাঁতারকুলে প্রজাপতি গার্ডেনের পাশে ডিবির সঙ্গে 'বন্দুকযুদ্ধে' তারা নিহত হয়।