রামরুর সেমিনারে বক্তারা রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসনে যথেষ্ট আন্তর্জাতিক চাপ সৃষ্টি করা যায়নি

প্রকাশ: ৩০ নভেম্বর ২০১৭      

বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিবেদক

রোহিঙ্গাদের প্রত্যাবাসনে আরও বাস্তবসম্মত কূটনৈতিক প্রচেষ্টা চালানো প্রয়োজন। এ নিয়ে যথেষ্ট আন্তর্জাতিক চাপ সৃষ্টি করা যায়নি। রোহিঙ্গা সংকট নিরসনে মিয়ানমারের স্টেট কাউন্সেলর অং সান সু চি যথেষ্ট আন্তরিকতা দেখাননি। রিফিউজি অ্যান্ড মাইগ্রেটরি মুভমেন্টস রিসার্চ ইউনিট, রামরু আয়োজিত সেমিনারে এসব মত দিয়েছেন বক্তারা।

গতকাল বুধবার ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের নবাব নওয়াব আলী চৌধুরী সিনেট ভবনে রোহিঙ্গা গণহত্যা নিয়ে দিনব্যাপী এ সেমিনারের আয়োজন করা হয়। সকালে সেমিনার উদ্বোধন করেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত উপাচার্য অধ্যাপক মো. আখতারুজ্জামান। বিভিন্ন সেশনে বক্তৃতা করেন ইমেরিটাস অধ্যাপক সিরাজুল ইসলাম চৌধুরী, গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের প্রতিষ্ঠাতা ড. জাফরুল্লাহ চৌধুরী, বিচারপতি ড. সৈয়দ রিফাত আহমেদ, জার্নাল অব পিজান্ট স্টাডিসের পরামর্শক অধ্যাপক স্বপন আদনান, বাংলাদেশ বৌদ্ধ কৃষ্টি প্রচার সংঘের সভাপতি সংঘনায়ক শুদ্ধানন্দ মহাথেরো, যুক্তরাষ্ট্রের অরেঞ্জ কোস্ট কলেজের অধ্যাপক ইউ কিই উইন, মিয়ানমারের মানবাধিকার কর্মী ড. মং জার্নি, রোহিঙ্গা বংশোদ্ভূত আইনজীবী রাজিয়া সুলতানা, রামরুর প্রতিষ্ঠাতা প্রধান অধ্যাপক তাসনিম সিদ্দিকী, অধ্যাপক সিআর আবরার, অস্ট্রেলিয়ার তাসমানিয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের ড. ন্যান্সি হাডসন রড, ড. হেলেন জার্বিস, নেপালের মানবাধিকার কর্মী তপন বোস, ভারতের আইনজীবী চেরিল সুজা, ইউরো-বার্মা অফিসের হার্ন ইয়াঙ্গি এবং মুক্তিযুদ্ধ জাদুঘরের মফিদুল হক প্রমুখ।

বক্তারা বলেন, রোহিঙ্গা সংকট শুধু বাংলাদেশের জন্যই সংকট নয়, এটি বিশ্বমানবতার সংকট। মিয়ানমার যে দাবি করছে, রোহিঙ্গারা বাঙালি, তা যদি সত্যিও হয় তারপরও এমন নৃশংস হত্যাকাণ্ড চালাতে পারে না। এটা পরিস্কার গণহত্যা, জাতিগত নিধন। ইতিহাস বলে রোহিঙ্গারা আরাকানেরই অধিবাসী।

বক্তারা আরও বলেন, রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসনে মিয়ানমারের ওপর আন্তর্জাতিক চাপ সৃষ্টিতে আরও বাস্তবসম্মত ও কার্যকর কূটনৈতিক তৎপরতা চালাতে হবে। কারণ এখন পর্যন্ত মিয়ানমারের ওপর যথেষ্ট চাপ সৃষ্টি করা যায়নি। বাংলাদেশের নিরাপত্তার জন্য দ্রুত এ সংকট সমাধান জরুরি। রোহিঙ্গাদের আরাকানে ফিরিয়ে নিতে আরও জোরালোভাবে আন্তর্জাতিক চাপ দিতে হবে।

বক্তারা বলেন, সু চির কিছু করার নেই, এ ধারণা ভুল। তার যে ক্ষমতা রয়েছে তার মাধ্যমেই এ সংকট সমাধান সম্ভব। কিন্তু দুঃখের বিষয়, সু চি এ ব্যাপারে ব্যবস্থা নিতে যথেষ্ট আন্তরিক নন।
চিটাগংয়ের পাহাড় টপকাতে পারল না খুলনা

চিটাগংয়ের পাহাড় টপকাতে পারল না খুলনা

এবারের বিপিএলের সর্বোচ্চ রান তুলেছে চিটাগং ভাইকিংস। সিলেট পর্বের শেষ ...

মেক্সিকোতে তেলের পাইপলাইনে বিস্ফোরণে নিহত ৬৬

মেক্সিকোতে তেলের পাইপলাইনে বিস্ফোরণে নিহত ৬৬

মেক্সিকোর মধ্যাঞ্চলে ফুটো হয়ে যাওয়া একটি তেলের পাইপলাইন থেকে তেল ...

এক মাসে পেঁয়াজের দাম অর্ধেক

এক মাসে পেঁয়াজের দাম অর্ধেক

নতুন পেঁয়াজ বাজারে আসায় দামও কমেছে। এখন বাজারে এক কেজি ...

নারায়ণগঞ্জে প্রবাসীর স্ত্রীকে কুপিয়ে হত্যার পর লাশে আগুন

নারায়ণগঞ্জে প্রবাসীর স্ত্রীকে কুপিয়ে হত্যার পর লাশে আগুন

নারায়ণগঞ্জের বন্দর উপজেলায় প্রবাসীর স্ত্রীকে দিনদুপুরে কুপিয়ে হত্যার পর লাশে ...

হাসপাতালে নির্মমতা, গাছতলায় সন্তান প্রসব

হাসপাতালে নির্মমতা, গাছতলায় সন্তান প্রসব

পঞ্চগড়ে হাসপাতাল থেকে বের করে দেওয়ার পর গাছতলায় সন্তান প্রসব ...

ছেলের মা হলেন টিউলিপ সিদ্দিক

ছেলের মা হলেন টিউলিপ সিদ্দিক

এবার ছেলের মা হলেন ব্রিটিশ পার্লামেন্ট সদস্য, বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ ...

মধ্যপ্রাচ্যে নারীকর্মী পাঠানো নিয়ে নতুন সিদ্ধান্ত আসছে: পরিকল্পনামন্ত্রী

মধ্যপ্রাচ্যে নারীকর্মী পাঠানো নিয়ে নতুন সিদ্ধান্ত আসছে: পরিকল্পনামন্ত্রী

নির্যাতনের অভিযোগ থাকায় ভবিষ্যতে মধ্যপ্রাচ্যে নারী শ্রমিক পাঠানো হবে কি-না, ...

খাগড়াছড়িতে ইউপিডিএফ কর্মীকে গুলি করে হত্যা

খাগড়াছড়িতে ইউপিডিএফ কর্মীকে গুলি করে হত্যা

খাগড়াছড়ি সদর উপজেলায় দুর্বৃত্তের গুলিতে পিপলু বৈষ্ণব ত্রিপুরা ওরফে রনি ...