আর্থিক খাতকে আমূল পাল্টে দিতে পারে আরপিএ

প্রকাশ: ০৮ সেপ্টেম্বর ২০২০   

অনলাইন ডেস্ক

আর্থিক খাতের পাশাপাশি অন্যান্য খাতের ডিজিটাল রূপান্তরে রোবটিক প্রসেস অটোমেশন (আরপিএ) এর ব্যবহার শুরু হয়েছে। গার্টনারের মতে, ২০২২ সাল নাগাদ বার্ষিক এক বিলিয়ন ডলার আয়ের কোম্পানিগুলোর মধ্যে ৮৫ শতাংশ কোম্পানি বিভিন্নভাবে আরপিএ বাস্তবায়ন করবে। 

ইউআইপাথের মতে, অটোমেশনের মাধ্যমে একঘেয়ে ও সময়সাপেক্ষ কাজগুলোর প্রতিবন্ধকতা দূর করে ৭৫ শতাংশ কার্যক্ষমতা বাড়ানো সম্ভব। ব্যাংক ও নন-ব্যাংকিং আর্থিক প্রতিষ্ঠানগুলো তাদের ক্রেডিট সিদ্ধান্ত, আর্থিক ঝুঁকি ব্যবস্থাপনা ও গ্রাহক অভিজ্ঞতা উন্নত করার চেষ্টা করে যাচ্ছে।এক্ষেত্রে অটোমেশন অগ্রণী ভূমিকা পালন করতে পারে।

গত শনিবার সফটওয়্যার কোম্পানি ইজেনারেশন এবং গার্টনার ম্যাজিক কুয়াড্রান্ট, এভারেস্ট, ফরেস্টার, নেলসল ইত্যাদি শীর্ষস্থানীয় বিশ্লেষক প্রতিষ্টান কর্তৃক স্বীকৃত বিশ্বের শীর্ষ আরপিএ/হাইপার অটোমেশন প্লাটফর্ম ও ১০.২ বিলিয়ন ডলার ভ্যালুয়েশনের দ্রুতবর্ধনশীল এন্টারপ্রাইজ সফটওয়্যার কোম্পানি ইউআইপাথ যৌথভাবে এক ওয়েবিনারের আয়োজন করে।

ইজেনারেশনের চেয়ারম্যান শামীম আহসান বলেন, রোবটিক প্রসেস অটোমেশনের মাধ্যমে অফিসে বারবার সংঘটিত কাজগুলোকে স্বয়ংক্রিয় করা সম্ভব। ফলে মানুষেরা তাদের মানবিক কাজগুলোতে বেশি সময় দিতে পারবে। 

মিউচুয়াল ট্রাস্ট ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক সৈয়দ মাহবুবুর রহমান বলেন, লকডাউনের সময় প্রযুক্তি কতোটা গুরুত্বপূর্ণ সেটি কোভিড-১৯ আমাদের বুঝিয়ে দিয়েছে। দেশের ৬০টি ব্যাংকের প্রথম এবং প্রধান উদ্দেশ্য হলো গ্রাহক অভিজ্ঞতা উন্নত করা যা আরপিএ প্রয়োগের মাধ্যমে অর্জন করা সম্ভব। 

ব্র্যাক ব্যাংক লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক সেলিম আর. এফ হোসেন বলেন, দক্ষ জনবল অন্য খাতে চলে যাওয়ায় গত কয়েক বছর ধরে ব্যাংকিং খাতে জনবলের অভাব সৃষ্টি হয়েছে এবং সেটি খরচ বাড়িয়ে তুলছে। এছাড়া, মহামারির কারণে আয় কমে যাওয়া ও প্রতিবন্ধকতা তৈরি হয়েছে। এই পরিস্থিতিতে প্রক্রিয়া উন্নয়ন জোরালোভাবে আবশ্যক হয়ে পড়েছে। আমি ব্যাংকগুলোকে আরপিএ প্রয়োগের পরামর্শ দেব, যার মাধ্যমে ডিজিটালাইজেশনের পথে যাত্রা শুরু হবে।

প্রাইম ব্যাংক লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা রাসেল আহমেদ বলেন, ডিজিটাল রূপান্তর এখন আর ভবিষৎ নয়, এটি বর্তমান। যেহেতু সামনে অনেক প্রক্রিয়ায় আসছে তাই আমরা ডিজিটাল রূপান্তর, আর্টিফিশিয়াল ইন্টেলিজেন্স এবং রোবটিক্সের মাধ্যমে প্রক্রিয়াকে স্বয়ংক্রিয় করতে চাচ্ছি। 

ইউআইপাথের সিনিয়র ফাংশনাল আর্কিটেক্ট নিতিন পারওয়ার বলেন, ব্যাংকগুলোকে শুধুমাত্র অন-বোর্ডিং ধাপেই গ্রাহকসেবা দেয়া নয়, ব্যাংকের সাথে গ্রাহকের পুরো যাত্রাতেই গ্রাহকসেবাকে প্রাধান্য দিতে হবে। আমি মনে করি, বড় এবং প্রতিষ্ঠিত ব্যাংকগুলো নতুন এবং সামনে আসতে যাওয়া ব্যাংকের ডিজিটালাইজেশন কৌশলের সাথে পাল্লা দিয়ে এগিয়ে যাচ্ছে। 

ইউনাইটেড কমার্শিয়াল ব্যাংক লিমিটেডের উপ-ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও সিওও আবদুল্লাহ আল মামুন বলেন, আমি মনে করে ডিজিটাল রূপান্তরের অন্যতম সহায়ক আরপিএ। এটি ব্যাংকিং খাতে যে পরিবর্তন আনছে তা অদমনীয়, আর আমরা যদি সত্যিকারভাবে তা বাস্তবায়ন করতে পারি তাহলেই ডিজিটাল রূপান্তর ত্বরান্বিত হবে।

নগদের ভারপ্রাপ্ত সিইও এবং সিএফও মোহাম্মাদ আমিনুল হক বলেন, ফিনটেক ও ব্যাংক উভয় খাতেই বর্তমানে আরপিএ গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করছে। এখনই যথাযথ সময় আমাদের পুরো ইকোসিস্টেমকে পুনরায় বিবেচনা করার, কারণ আমাদের দেশের পুরো লেনদেনের ৯০ শতাংশই ক্যাশের মাধ্যমে হয়ে থাকে এবং অনেকেরই ফিনটেক ওয়ালেট নেই। 

উজ্জীবন স্মল ফিন্যান্স ব্যাংকের সিওও জয়া জনার্ধন বলেন, আরপিএ সকল প্রতিষ্ঠানের জন্য আবশ্যক, কারণ এটি বিভিন্ন ব্যবসায় প্রক্রিয়াকে স্বয়ংক্রিয় করছে। আমি মনে করি যে যত দ্রুত আরপিএ গ্রহণ কবে সেটি তাদের জন্য তত ভালো হবে। এছাড়া অটোমেশনের ক্ষেত্রে প্রতিষ্ঠানগুলোর কী করণীয়, কীভাবে করতে হবে এবং কোন কার্যক্রমকে স্বয়ংক্রিয় করা দরকার সেগুলো চিহ্নিত করাও জরুরি।

ইজেনারেশনের অপারেশন্স ও বিক্রয় বিভাগের পরিচালক এমরান আবদুল্লাহ বলেন, বর্তমান যুগ অটোমেশনের যুগ এবং ইজেনারেশন ইউআইপাথের সাথে যৌথভাবে বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানকে তাদের প্রযুক্তিগত উদ্ভাবন এবং রূপান্তরের এই তাৎপর্যপূর্ণ সময়ে সাফল্য ও সমৃদ্ধি অর্জনে সহায়তা করতে পারে। বিজ্ঞপ্তি।