পাবজি গেম খেলে ১৭ লাখ টাকা জয়ের সুযোগ

প্রকাশ: ১৯ আগস্ট ২০২০   

সমকাল প্রতিবেদক

টেনসেন্ট গেমস ও পাবজি কর্পোরেশন বাংলাদেশ দ্বিতীয়বারের মত আয়োজন করছে ওপেন-টু-অল-ফ্ল্যাগশিপ টুর্নামেন্ট ' পাবজি মোবাইল বাংলাদেশ চ্যালেঞ্জ-২০২০'। এ প্রতিযোগিতায় নিবন্ধনের মাধ্যমে অংশগ্রহণ করে ১৭ লাখ টাকার পুরস্কার জয়ের সুযোগ পাবেন গেমাররা। গেমটি চালু হওয়ার পর থেকে ইস্পোর্টস ইকোসিস্টেমের একটি অংশ হিসেবে চিহ্নিত হওয়ায় বাংলাদেশের সকল প্লেয়ারদের দক্ষতাকে কাজে লাগানোর পাশাপাশি টুর্নামেন্টের দ্বিতীয় এডিশন চালু করার মাধ্যমে প্লেয়ারদেরকে আরেকটি নতুন সুযোগ সৃষ্টি করে দিচ্ছে পাবজি মোবাইল।

ইতোমধ্যে পাবজি মোবাইল বাংলাদেশ চ্যালেঞ্জ এডিশনটি, দেশের বেশ কয়েকটি পেশাদার ইস্পোর্ট ক্যারিয়ারের চূড়ান্ত মাধ্যম হিসাবে প্রমাণিত হয়েছে। প্রতিযোগিতায় অংশ নিতে আগামী ১৯ আগস্টের মধ্যে নিবন্ধন করতে হবে। ২১ থেকে ২৫ আগস্ট পর্যন্ত ইন গেম কোয়ালিফায়ার, ৩০ আগস্ট থেকে সেপ্টেম্বর পর্যন্ত প্রি-বাছাইপর্ব- অনলাইন পেল্গ অফ (রাউন্ড ১), ৪ থেকে ৭ সেপ্টেম্বর বাছাইপর্ব - অনলাইন প্লে অফ ( রাউন্ড ২) অনুষ্ঠিত হবে। এরপর সেরা গেমারদের নিয়ে ১১ ও ১২ সেপ্টেম্বর গ্রান্ড ফিনালে আয়োজিত হবে।

ফরমেট'স অ্যান্ড রাউন্ড

সকলের জন্য উম্মুক্ত এই গেমটির প্রতিযোগীদের নির্ধারণ করতে অনলাইনের মাধ্যমে অনুষ্ঠিত হবে ইন-গেম-এর বাছাইপর্ব। এ বছর গেমটিতে নতুনত্ব নিয়ে আসতে, প্রতিটি নিবন্ধিত দলকে (২১ আগস্ট থেকে ২৫ আগস্ট পর্যন্ত) পাঁচ দিনের ব্যবধানে ১০ টি ক্লাসিক মোড ম্যাচ খেলতে হবে। যার মধ্যে ৮টি সেরা খেলাকে অনলাইন প্লে অফ এর জন্য নির্বাচন করা হবে। ইন-গেম বাছাইপর্বে নির্বাচিত হওয়ার জন্য স্কোয়াডের মানদ-লো প্লেসমেন্ট পয়েন্ট ও কিল পয়েন্টের উপর নির্ভর করবে। এছাড়া এটি ওভারল্যাপের ক্ষেত্রে কম্বিনেশন নাম্বার অফ কিল'স, টোটাল ড্যামেজ ও নাম্বার অফ হেডশট-এর সমন্বয় দলের ভাগ্য নির্ধারণ হবে।

অনলাইন প্লে অফের প্রথম রাউন্ডে মোট ২৫৬ টি দল প্রতিযোগিতা করবে, যার মধ্যে শীর্ষে থাকা ২৫২ টি দল ইন-গেমের বাছাইপর্বের এবং অন্য ৪ টি দল সরাসরি আমন্ত্রিত হিসেবে আসবে। আমন্ত্রিত দলগুলো হচ্ছে পাবজি মোবাইল বাংলাদেশের পরিচিত কিছু তারকা যেমন, টিম আরটুভি, টিম এনআরএক্স, মোজা স্কোয়াড ও পাবজি এক্সের সম্বনয়ে গঠিত হবে।

প্রতিযোগিতার জন্য এসব দলকে ১৬টি গ্রুপে বিভক্ত করা হবে। এর প্রত্যেকটি দলই ২টি করে ম্যাচ খেলবে। গেমাররা প্লেসমেন্ট পয়েন্ট ও কিল পয়েন্ট অর্জনের মাধ্যমে লিডার বোর্ড ডমিনেট করার চেষ্টা করবে। প্রতিটি গ্রুপের শীর্ষ ৩ টি স্লট সর্বোচ্চ সংখ্যক পয়েন্ট নিয়ে পেল্গ-অফের দ্বিতীয় রাউন্ডে যাওয়ার জন্য যোগ্য বিবেচিত হবে। এই বিশেষ রাউন্ডের যুদ্ধক্ষেত্র হবে ইরাঙ্গেল ও স্যানহক, যা সকল প্লেয়ারদের জন্য ক্লাসিক শোডাউন হিসেবে বিবেচিত হয়।

বাছাইপর্বের দ্বিতীয় রাউন্ডে আমন্ত্রিত ৮টি দল থাকবে। এই আমন্ত্রিত দলগুলো পিএমসিও এসএ এবং পিএমবিসি ২০১৯ -এর মত শীর্ষস্থানীয় কয়েকটি দল থেকে গঠন করা হবে। দলগুলো শীর্ষ ১৬টি স্টস্নট দখল করার জন্য ৪ দিনের জন্য লড়াই করবে। যারা এই স্লট দখল করতে পারবে তারা ২০২০ সালের ১১ ও ১২ সেপ্টেম্বরের নির্ধারিত গ্র্যান্ড ফিনালে'তে পৌঁছে যাবে।

দেশের উচ্চাকাঙক্ষী দলগুলোকে একটি সুযোগ দেওয়ার জন্য পাবজি মোবাইল ২৪ আগস্ট থেকে ২৬ আগস্ট পর্যন্ত স্ক্রিমের আয়োজন করেছে। নিবন্ধিত দলগুলি প্রতিদিন ৪ ঘন্টার জন্য ভারত, পাকিস্টত্মান ও বাংলাদেশের শীর্ষস্থানীয় কিছু প্রতিভাবান খেলোয়াড়ের খেলা দেখার এবং শেখার সুযোগ পাবে। এর আগে, স্ক্রিমস এর প্রো-টিমগুলো ২৮,০০০ টাকার পুরস্কার জেতার সুযোগ পাবে। ৩২টি দলকে দুইটি গ্রুপের ভাগ করা হবে, প্রতিটি গ্রুপের ১৬টি দলই প্রতিদিন ৪ টি করে ম্যাচ খেলবে। প্রতিটি গ্রুপের শীর্ষে থাকা ৮টি দল স্ক্রিমস ফাইনালে খেলার সুযোগ পাবে।

পয়েন্ট ডিস্ট্রিবিউশন ও প্রাইজ পুল

বরাবরের মতই, পয়েন্ট ডিস্ট্রিবিউশন হবে দুই ভাগে- সর্বাধিক কিলস ও পেস্নসমেন্ট পয়েন্ট উপর ভিত্তি করে। প্রতিটি কিলের উপর ভিত্তি করে ১ পয়েন্ট থাকবে এবং প্রতিটি প্লেসমেন্টের নিজস্ব একটি স্কোর মান থাকবে।

বাংলাদেশ চ্যালেঞ্জ এর মাধ্যমে প্লেয়ারদের ১৭ লাখ টাকার পুরস্কার দেবে পাবজি মোবাইল। চ্যাম্পিয়ন দল পাবে ৬ লাখ টাকা, দ্বিতীয় স্থান অর্জনকারী আড়াই লাখ, তৃতীয় স্থান অর্জনকারী দেড় লাখসহ ১৬তম স্থান অর্জনকারী দল পাবে সর্বনিম্ন ১০ হাজার টাকা।

বিষয় : প্রযুক্তি