হঠাৎ পেওনিয়ার বন্ধ, সংকটে ফ্রিল্যান্সাররা

প্রকাশ: ২৭ জুন ২০২০   

সমকাল প্রতিবেদক

যুক্তরাজ্য সরকারের ফিন্যান্সিয়াল কনডাক্ট অথরিটি’র (এফসিএ) নিষেধাজ্ঞার কারণে অনলাইনে লেনদেনের অন্যতম নির্ভরযোগ্য জনপ্রিয় মাধ্যম পেওনিয়ার মাস্টারকার্ডের ব্যবহার সাময়িকভাবে বন্ধ হয়ে গেছে। এর ফলে বিপদে পড়েছেন তথ্যপ্রযুক্তি খাতের বাংলাদেশি ফ্রিল্যান্সাররা। 

ফ্রিল্যান্সাররা নিজেদের ফেসবুক পোস্টে সমস্যাগুলো তুলে ধরে লিখে যাচ্ছেন। পেওনিয়ার সংকট সমাধানের আশ্বাস দিলেও কতো দিনের মধ্যে সমাধান হবে তা বলতে পারছে না। 

বাংলাদেশের ফ্রিল্যান্সাররা জানান, বাংলাদেশের বেশিরভাগ ফ্রিল্যান্সাররা এখন পেওনিয়ার ব্যবহার করেন। অনলাইন সাবস্ক্রিপসন, টাকা তোলা থেকে শুরু করে নানা ধরনের কাজে মূল্য পরিশোধও করেন পেওনিয়ারের মাধ্যমে। হঠাৎ করে পেওনিয়ার বন্ধ হওয়ার কারণে অনলাইনে ফ্রিল্যান্সারদের কার্যক্রম প্রায় বন্ধ হওয়ার পথে। একাধিক ফ্রিল্যান্সার এ নিয়ে ফেসবুক পোস্ট দিয়েছেন। তাদের ভাষ্য হচ্ছে, দেশে আন্তর্জাতিক পেমেন্ট গেটওয়ে হিসেবে পেওনিয়ারই ছিল মূল ভরসা। অধিকাংশই এই গেটওয়ে ব্যবহার করেন। এখন এটা বন্ধ থাকার কারণে কেউ কোনো টাকা আর আনতে পারছেন না। বিদেশি অনেক সেবার সাবস্ক্রিপশন ফি কিন্তু এই কার্ডে পরিশোধ করা হতো। সেই মূল্য পরিশোধও এখন বন্ধ। এটা এমন একটা সময় হলো যখন মাসের শেষ। অর্থাৎ অনেকেই এই সময়টাতে বিদেশি ক্লায়েন্টদের বিল পান। ফলে এই সময়ে পেওনিয়ার বন্ধ হওয়ার কারণে বড় সমস্যায় পড়েছেন তারা। 

ফ্রিল্যান্সাররা আরও জানান, পেওনিয়ার বন্ধের ফলে অনেকের নতুন প্রোজেক্ট আটকে যাবার আশঙ্কা তৈরি হয়েছে। অনেকেই নতুন প্রোজেক্ট নিয়ে হয়তো কাজ শুরু করতে চেয়েছিলেন, কিন্তু সেটার জন্য যে ধরনের আর্থিক লেনদেন করা দরকার ছিল সেটা এখন আর করা যাচ্ছে না। ফলে ফ্রিল্যান্সাররা এখন নতুন প্রজেক্ট করতেও পারছেন না। শুধু লেনদেন স্থগিত হওয়াটাই সমস্যা নয়, পাশাপাশি যারা এই মাস্টারকার্ড দিয়ে গুগল অ্যাডসেন্স, আলি এক্সপ্রেস, অ্যামাজনসহ বিভিন্ন কার্যক্রমে যুক্ত,  যারা ডোমেইন হোস্টিং এক্সটেন্ড এবং অনলাইন টুলস অ্যাক্টিভেশন বা আপগ্রেডসনের কাজে পেওনিয়ার ইউজ করছেন তারাও বড় সমস্যায় পড়ে গেছেন। 

তথ্যপ্রযুক্তি খাতে ফ্রিল্যান্সিং এর জন্য সুপরিচিত হাসিন হায়দার তার ফেসবুক পোস্টে অন্য এক ধরনের আশংকার কথা তুলে ধরে লিখেছেন, ‘পেওনিয়ারের ইস্যুটা অ্যালার্মিং। প্রথম যে কাজটা আপাতত আপনাকে করতে হবে সেটা হল আপনার যত সাবস্ক্রিপশন কেনা আছে সেগুলোর রিনিউয়াল ডেট চেক করা এবং সেগুলোর জন্য ব্যাকআপ পেমেন্ট মেথড অ্যাড করা। কারণ আপনার সাবস্ক্রিপশন এর সময় ট্রানজেকশন যদি বাউন্স করে তাহলে ইমিডিয়েটলি আপনার সাবস্ক্রিপশন অফ হয়ে যাবে। যারা গান বাজনার সাবস্ক্রিপশন কিনে রেখেছেন, তাদের জন্য হয়তো প্রবলেম নাই – কিন্তু হোস্টিং/সার্ভার রিলেটেড গুলো অনেক ক্রুশিয়াল। আর এরপরে যেটা করতে হবে, যদি ব্যাকআপ পেমেন্ট মেথড অ্যাড করতে পারেন বা নাও পারেন, এখনই আপনার হোস্টিং/সাইট এর ফুল ব্যাকআপ নিয়ে নিন যাতে হোস্টিং ক্যানসেল হয়ে গেলেও অ্যাটলিস্ট পরে আপনি রিস্টোর করতে পারেন (খুবই খুবই ইম্পর্ট্যান্ট)। টাকা গেলে টাকা আবার আসবে। কিন্তু ডেটা লস হলে ডেটা পাবেন না।’

বিষয়টি নিয়ে পেওনিয়ার গত শুক্রবার রাতে নিজেদের ব্লগপোস্টে জানিয়েছে, ব্যবহারকারীদের অবস্থার কথা চিন্তা করে সেবাটি স্বাভাবিক করতে চেষ্টা করে যাচ্ছে। খুব শিগগিরই সেবাটি আবার ফিরে আসবে বলে আশা প্রকাশ করছেন তারা।