জিমেইলের ঠিকানায় হাজারো ই-মেইল আসায় গুরুত্বপূর্ণ এবং জরুরি মেইলটি অনেক ক্ষেত্রে খুঁজে পেতে ঝামেলায় পড়তে হয়। এমন ঝামেলা এড়াতে জিমেইলের ইনবক্স সাজাতে নানা সুযোগ দিচ্ছে গুগল। ইমেইল শ্রেণীকরণ করতে জিমেইল ব্যবহারকারীকে ফোল্ডারের মতো লেভেল তৈরি সুবিধা যুক্ত করেছে প্রতিষ্ঠানটি। জিমেইল 'লেভেল' হচ্ছে এক ধরনের ট্যাগ যা ইনবক্সে আসা এবং পাঠানো যে কোনো ই-মেইলের সঙ্গে যুক্ত করা যায়। এ ছাড়া ড্রাফটেও যুক্ত করা যায়। লেভেল এবং ফোল্ডার একই, কিন্তু ফোল্ডার বহু লেভেলকে একটি একক মেইলে প্রয়োগ করার সুবিধা দেয়। কিন্তু এ ক্ষেত্রে লেভেল ফোল্ডারের চেয়েও বেশি সুবিধা নিয়ে এসেছে। লেভেল একটি ফোল্ডারের পাশাপাশি এক বা একাধিক সাব ফোল্ডার হিসেবে একত্র করার সুবিধা দেয়।
কয়েকটি পদক্ষেপের অনুসরণ করে সহজে ডেস্কটপে জিমেইল লেভেল (ফোল্ডার) তৈরি করা যায়- শুরুতেই জিমেইল অ্যাকাউন্ট ওপেন করতে হবে। এবার স্ট্ক্রিনের ওপরে ডান পাশের সেটিংস আইকনে যান। এরপর 'সি অল সেটিংস' অপশন ট্যাব করুন। এখন জেনারেল ট্যাবের পাশেই 'লেভেল ট্যাব' দেখতে পাবেন। সেখানে প্রবেশ করুন। স্ট্ক্রল করে নিচে নামলে 'ক্রিয়েট নিউ লেভেল' অপশনটি দৃশ্যমান হবে।
এখানে লেভেলের নাম লিখে প্রবেশ করলে লেভেল (ফোল্ডার) তৈরি হয়ে যাবে। এভাবে লেভেল তৈরি হয়ে গেলে ব্যবহারকারী ই-মেইল যুক্ত করার সুয়োগ পাবেন। এখানে যদি আপনি একটি ই-মেইল যুক্ত করেন, তাহলে সেই ই-মেইলটি র জিমেইলের প্রাইমারি ইনবক্সে দৃশ্যমান হবে। আবার যখন সেই ই-মেইল থেকে লেভেলে মুভ করবেন, তখন প্রধান ইনবক্স থেকে এটি অদৃশ্য হবে। তবে এখনও আপনি সঠিক লেভেলটি নির্বাচন করে এটি পেতে পারেন। আপনি যখন একটি ই-মেইল পাবেন, তখন সেটিকে তখনই লেভেলে মুভ করতে পারবেন। ধরুন আপন কিছু গুরুত্বপূর্ণ ই-মেইল এসেছে, কিন্তু তা এখনই জরুরিভাবে প্রয়োজন নেই। এমন ক্ষেত্রে সেই ই-মেইলগুলো যথাযথ লেভেলে মুভ করে নিতে পারবেন।
নিত্যদিন কাজের প্রয়োজনে কীভাবে জিমেইলের লেভেল আপনাকে সুবিধা দিতে পারে-
ভবিষ্যতে বিশেষ ই-মেইলগুলো খুঁজে পেতে সাহায্য করবে।
একটি লেভেলে থাকা মেসেজ মুছে ফেললে সেটি মুছবে না বরং অন্য একটি লেভেলে থেকে যাবে। এভাবে একাধিক স্থানে মেইল সুরক্ষিত থাকায় আপনি মেইল হারিয়ে যাওয়ার ঝুঁকিমুক্ত হবেন।
প্রতিটি লেভেলের জন্য বিভিন্ন রং বেছে নিতে পারেন, যা একটি লেভেল থেকে আরেকটিকে পৃথক করবে।