নিউজিল্যান্ড ক্রিকেট বোর্ডের কেন্দ্রীয় চুক্তি থেকে নিজেকে সরিয়ে নিলেন নিউজিল্যান্ডের তারকা পেসার ট্রেন্ট বোল্ট। নিজেই বোর্ডকে অনুরোধ করেছিলেন যাতে তাকে অব্যাহতি দিয়ে দেওয়া হয়।

৩৩ বছরের বোল্ট বর্তমানে পরিবারের সঙ্গে বেশি করে সময় কাটাতে চাইছেন। ঘরোয়া ক্রিকেটে মনোনিবেশ করার ইচ্ছে রয়েছে। সেন্ট্রাল কনট্র্যাক্ট শেষ হওয়ার অর্থ হল, তার সময় অনুযায়ী নির্বাচকরা বোল্টকে জাতীয় দলের জন্য নির্বাচন করতে পারবে। কেন্দ্রীয় চুক্তি থেকে নিজেকে সরিয়ে নিলেও ক্রিকেট থেকে অবসরের মতো কোনো সিদ্ধান্ত নেননি এই কিউই ফাস্ট বোলার।

ভবিষ্যৎ পরিকল্পনা এবং কেন্দ্রীয় চুক্তি থেকে সরে যাওয়া নিয়ে বোল্ট বলেন, 'এটা আমার জন্য অনেক কঠিন সিদ্ধান্ত। তবে নিউজিল্যান্ড ক্রিকেটকে অনেক ধন্যবাদ আমার পয়েন্ট বোঝার জন্য। দেশের হয়ে খেলা আমার শৈশবের স্বপ্ন ছিল এবং আমি গত ১২ বছর ধরে নিউজিল্যান্ডের জার্সিতে যা অর্জন করেছি সেসবের জন্য গর্বিত। আসলে এই সিদ্ধান্ত আমার স্ত্রী জার্ট এবং তিন ছেলের জন্য নিয়েছি। পরিবার সবসময় আমার জন্য সবচেয়ে বড় অনুপ্রেরণার জায়গা এবং আমি এটাকে প্রথম প্রায়োরিটি দিতে চাই। এছাড়াও ক্রিকেটের পরবর্তী জীবনের জন্য নিজেদের প্রস্তুত করতে চাই।'

বোল্ট বুঝতে পারছেন, তার এই সিদ্ধান্ত নিউজিল্যান্ডের হয়ে খেলার ওপর প্রভাব ফেলবে। এই পেসার বলেছেন, 'আমার দেশের হয়ে খেলার তীব্র ইচ্ছা এখনও আছে এবং আন্তর্জাতিক পর্যায়ে দেওয়ার মতো দক্ষতাও আছে বলে মনে করি। কিন্তু জাতীয় চুক্তিতে না থাকা আমাকে দলে নেওয়ার ক্ষেত্রে প্রভাব ফেলবে, এই বিষয়টিকে আমি সম্মান করি। আগেও বলেছি, একজন ফাস্ট বোলার হিসেবে আমার ক্যারিয়ারের দৈর্ঘ্য সীমিত এবং আমি মনে করি পরের ধাপে যাওয়ার জন্য এখনই সঠিক সময়।'

বোল্টের সিদ্ধান্ত নিয়ে নিউজিল্যান্ড ক্রিকেটের প্রধান ডেভিড হোয়াইট বলেন, 'আমাদের বেশকিছু আলোচনা হয়েছে এবং আমি জানি দল নির্বাচনের ক্ষেত্রে ট্রেন্ট আমাদের অবস্থান বুঝতে পেরেছে। নিউজিল্যান্ড ক্রিকেট সবসময় নিজেদের কেন্দ্রীয় এবং ঘরোয়া চুক্তিতে থাকা ক্রিকেটারদের ক্ষেত্রে গুরুত্ব দেবে।'

এখন পর্যন্ত কিউই জার্সিতে তিন ফরম্যাট মিলিয়ে ২১৫ ম্যাচ খেলেছেন বোল্ট। তিনি কিউই ক্রিকেটারের চার বোলারের একজন যিনি দলটির হয়ে টেস্ট ফরম্যাটে তিনশ' এর বেশি (৩১৭) উইকেট নিয়েছেন। এছাড়াও ওয়ানডেতে ১৬৯টি এবং টি-টোয়েন্টিতে ৬২ উইকেট শিকার করেছেন বোল্ট। বর্তমানে ওয়ানডে ফরম্যাটে বোলারদের র‍্যাঙ্কিংয়ের শীর্ষে আছেন এই কিউই পেসার।