রিয়াল মাদ্রিদের সঙ্গে বহু ‘ছলাকলা’ করেছেন কিলিয়ান এমবাপ্পে। শেষ পর্যন্ত লস ব্লাঙ্কোসদের সঙ্গে ‘ছলনা’ করে পিএসজি’র সঙ্গে চুক্তি নবায়ন করেছেন ফ্রান্সম্যান। চুক্তির কারণ হিসেবে বলা হচ্ছে, পিএসজি’র নতুন প্রজেক্টের অংশ হওয়া। নিজ দেশের ক্লাবকে এগিয়ে নেওয়া এবং ইতিহাসের অংশ হওয়া এমবাপ্পের  লক্ষ্য। 

তবে অব্যক্ত ‘সত্য কথা’ হলো রিয়াল মাদ্রিদের চেয়ে আকর্ষণীয় অর্থের প্রস্তাব পেয়েছেন ২৩ বছর বয়সী বিশ্বকাপ জয়ী তারকা এমবাপ্পে। প্যারিসের ক্লাবটি তাকে ১২০ মিলিয়ন ইউরো সাইনিং বোনাস দিচ্ছে। সঙ্গে তিন বছরের চুক্তিতে প্রতি মৌসুমে অন্তত ৫০ মিলিয়ন ইউরো বেতন পাবেন তিনি। 

বেতন এবং মোটা অঙ্কের সাইনিং বোনাসের প্রস্তাব রিয়াল মাদ্রিদও তাকে দিয়েছিল। কিন্তু পার্স দেস প্রিন্সেসে তিনি বাড়তি একটি জিনিস পাচ্ছেন। যেটা রিয়াল মাদ্রিদে পেতেন না। তা হলো ক্ষমতা। চুক্তির শর্ত অনুযায়ী, এমবাপ্পে এখন পিএসজি’র মেইন ম্যান। নেইমার কিংবা মেসি নন সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে কেএমসেভেনের কথা শুনেই। 

তার কথা মতো, নতুন ফুটবলার এনে প্রজেক্ট তৈরি করতে হবে। স্পোর্টিং ডিরেক্টর থেকে শুরু করে কোচ নিয়োগে তার মতামত নেওয়া হবে। ওই আশ্বাস এমবাপ্পেকে দেওয়া হয়েছে। এর বাইরে একটি ফোন কলকে তিনি উপেক্ষা করতে পারেননি। ফ্রান্সের প্রেসিডেন্ট এমানুয়েল মাক্রোঁ তাকে প্যারিসে থেকে যাওয়ার আহ্বান করেন। প্যারিস অনুষ্ঠিত ২০২৪ অলিম্পিক ঘিরে তার ফ্রান্সে থাকা দরকার বলে উল্লেখ করেন। 

এরপরই মূলত পিএসজি থাকার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন এমবাপ্পে। অর্থ এবং ক্ষমতা পেয়ে এমবাপ্পের কথা মতো প্রিন্সেসে শুরু হবে ‘ক্লিনজিং’ বা ছাঁটাই মিশন। ওই মিশন শুরু হতে পারে পিএসজি’র ব্রাজিলিয়ান স্পোর্টিং ডিরেক্টর লিওনার্দোকে দিয়ে। তার জায়গায় আনতে হবে মোনাকোর লুইস কাম্পোসকে। মিশন শেষ হতে পারে ব্রাজিলিয়ান তারকা নেইমারকে দিয়ে। বাতিলের খাতায় পড়তে পারেন কোচ মাউরিসিও পচেত্তিনো ও ডিফেন্ডার সের্গিও রামোস। 

সংবাদ মাধ্যম দাবি করেছে, আর্জেন্টাইন কোচ মাউরিসিও পচেত্তিনোকে ছাঁটাই করবে পিএসজি। তার জায়গায় জিনেদিন জিদানকে দেওয়া হবে দায়িত্ব। জিজুর অধীনে খেলবেন বলেই নাকি প্যারিসে থেকে গেছেন তিনি। এছাড়া বার্সা থেকে ফ্রি এজেন্টে থাকা বন্ধু উসমান ডেম্বেলেকে আনতে হবে প্যারিসে। আগামী মৌসুমে না হোক পরের মৌসুমে ইনজুরি প্রবণ নেইমারকে বিদায় করতে হবে ক্লাব থেকে।