‘একাত্তরের শপথ ছিল ঘর ছাড়ার, এবার ঘরে থাকার’

প্রকাশ: ২৬ মার্চ ২০২০     আপডেট: ২৬ মার্চ ২০২০   

অনলাইন ডেস্ক

ছবি: ফাইল

ছবি: ফাইল

করোনাভাইরাস মোকাবেলায় সচেতন হওয়া জরুরি। দেশের সরকার, স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞদের পাশাপাশি তাই করোনাভাইরাস প্রতিরোধে সচেতনার সৃষ্টি করে যাচ্ছেন বিভিন্ন অঙ্গনের তারকারা। বাংলাদেশ জাতীয় দলের ক্রিকেটাররা করোনার বিরুদ্ধে লড়াইয়ে দিয়েছেন অর্থ অনুদান।

এছাড়া তামিম, মুশফিক, সাকিব, মাশরাফি ও অন্যারা নিয়মিতই দিচ্ছেন বিভিন্ন বার্তা। বাংলাদেশ ওয়ানডে ক্রিকেট দলের সদ্য সাবেক অধিনায়ক মাশরাফি বিন মর্তুজা যেমন ‍বৃহস্পতিবারই জনসচেতনায় দিলেন দারুণ দুটি বার্তা।

তিনি ২৬ মার্চ স্বাধীনতা দিবস উপলক্ষে নিজের ভেরিফাইড ফেসবুক পেজে লেখেন, ‘২৬শে মার্চ, ১৯৭১: শপথ ছিল ঘর থেকে বের হবার। ২৬ শে মার্চ, ২০২০: এবারের শপথ ঘরে থাকার। ঘরে থাকুন, সুস্থ থাকুন। সংক্রমণ প্রতিরোধে সহায়তা করুন। খেলার স্বাধীনতা যদি আবার ফিরে পেতে চাই, এখন তাহলে উত্তম কিন্তু ঘরে থাকাটাই।’

মাশরাফির ফেসবুক থেকে নেওয়া ছবি

এর আগের এক পোস্টে তিনি মনে করিয়ে দিয়েছেন, ‘আমি’ এবং ‘আপনি’ শুধু এ যুদ্ধ জিততে পারি। রাতে মাশরাফি নিজের একটি ছবির ওপর ইংরেজিতে লেখা ‘ভি-আর-এস’ লেখা একটি বার্তা পোস্ট করেন। তার নিচে ছোট করে লেখা ‘ওনলি “আই” অ্যান্ড “ইউ” ক্যান ব্রেক দ্য চেইন’। ক্যাপশনে দিয়েছেন, ‘রিমেম্বার, ওনলি “আই” অ্যান্ড “ইউ” ক্যান উইন দ্য ব্যাটল’।

বাংলায় যার অর্থ দাঁড়ায়, মনে রাখবেন শুধু আপনি এবং আমি এ বাধা ভাঙতে পারি, আপনি এবং আমিই পারি এ যুদ্ধে (করোনা) জিততে। মাশরাফির ছবির ওপর ‘ভি-আর-এস’ লেখার অর্থ ইংরেজিতে ‘ভাইরাস’ শব্দের বানানে ভি-র পরে আই এবং আরের পর ইউ হয়।

নিজের ফেসবুক পেজে মাশরাফির পোস্ট করা ছবি।

অর্থাৎ ‘ভাইরাস’ শব্দের ‘আই’ মানে ‘আমি’ ও ‘ইউ’ মানে ‘আপনি’ যুদ্ধ জিততে পারি বুঝিয়েছেন মাশরাফি। এর আগে বুধবার করোনার বিপক্ষে লড়তে বিসিবির কেন্দ্রীয় চুক্তিতে থাকা ১৭ ক্রিকেটার এবং জাতীয় দলে খেলা অন্য ১০ ক্রিকেটার তাদের বেতনের অর্ধেক অনুদান হিসেবে বিসিবির ফান্ডে দেওয়ার উদ্যোগ নেন, যা থেকে প্রায় ৩১ লাখ টাকা আসবে। কর বাদ দিলে থাকবে প্রায় ২৬ লাখ টাকা।