লাবুশেনের ডাবলের পর কিউইদের দৃঢ়তা

প্রকাশ: ০৪ জানুয়ারি ২০২০     আপডেট: ০৪ জানুয়ারি ২০২০      

অনলাইন ডেস্ক

ছবি: ক্রিকবাজ

লেগস্পিনার হিসেবে দলে আসা মার্নস ল্যাবুশেনের ব্যাটে যেন রানের বান ডেকেছে! সর্বশেষ সাত ইনিংসে চারটি সেঞ্চুরি করেছেন তিনি। নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে তিন ম্যাচের টেস্ট সিরিজের শেষটায় প্রথম দিন অপরাজিত ছিলেন ১৩০ রানে। তার কল্যাণেই বড় সংগ্রহের ভিত গড়ে অস্ট্রেলিয়া। দ্বিতীয় দিন সিডনিতে ক্যারিয়ারের প্রথম ডাবল সেঞ্চুরি তুলে নিলেন এই অজি ব্যাটসম্যান। থামলেন ২১৫ রানে।

পরে ইনিংস শুরু করে কোন উইকেট না হারিয়ে ৬৩ রান করে দিন শেষ করেছে কিউইরা। টম ব্যান্ডেল ৩৪ এবং টম ল্যাথাম ২৬ রানের সিডনি টেস্টের তৃতীয় দিন শুরু করবেন।

এই টেস্টের কপালে কি খেলা আছে বলা কঠিন। তবে মার্নাস লাবুশেনের কাছে এটি বিশেষ এক টেস্ট। ঘরোয়া ক্রিকেটে ব্যাটিংয়ে দাপট দেখালেও ২০১৮ সালের অক্টোবরে দুবাইয়ে পাকিস্তানের বিপক্ষে মার্নস ল্যাবুশেনের টেস্ট অভিষেক হয়েছিল লেগস্পিনার হিসেবে। এর চার মাস পর শ্রীলংকার বিপক্ষে তার ব্যাটিং দৃঢ়তাও দেখা যায়। এরপরও আসা-যাওয়ার মধ্যে ছিলেন দক্ষিণ আফ্রিকান বংশোদ্ভূত এই অস্ট্রেলিয়ান। তার কপালটা খোলে সর্বশেষ অ্যাশেজে লর্ডসে স্মিথের 'কনকাশন বদলি' হিসেবে নামার পর।

ওই সুযোগ কাজে লাগিয়ে অ্যাশেজে চার হাফ সেঞ্চুরি করে টেস্ট দলে জায়গাটা পাকা করে নেন ল্যাবুশেন। স্টিভেন স্মিথকে হটিয়ে তিনে জায়গা করে নেন তিনি। এরপর ঘরের মাঠে শুরু হয় তার ব্যাটের দাপট। পাকিস্তানের বিপক্ষে জোড়া সেঞ্চুরির পর কিউইদের বিপক্ষেও তিন অঙ্ক দিয়েই শুরু করেন। এরপর দুটি হাফ সেঞ্চুরি ও ১৯ রানে রানআউট হয়েছিলেন।

সিডনি টেস্টে সেঞ্চুরি দিয়ে শুরু করেন। থামেন ডাবল সেঞ্চুরি করে। নিউজিল্যান্ড আগের দুই টেস্টে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে হেরেছে। এই টেস্টেও তাদের সুযোগ কম। ড্র তাদের জন্য হতে পারে ভালো ফল। দলের নিয়মিত অধিনায়ক কেন উইলিয়ামসন না থাকায় ড্র করে সিডনি টেস্ট শেষ করাও কঠিন হবে কিউইদের জন্য।