ফিঞ্চের জুয়ার ফাঁদে পাকিস্তান

প্রকাশ: ১২ জুন ২০১৯     আপডেট: ১২ জুন ২০১৯      

অনলাইন ডেস্ক

ছবি-টুইটার

অ্যারন ফিঞ্চ যে নিখাদ ব্যাটসম্যান সেটা সবারই জানা। তবে বোলার অ্যারন ফিঞ্চকে খুজকে রেকর্ডবুকটা বেশ ঘাটাঘাটি করতে হয়। ওয়ানডেতে বেশ কয়েকবারই হাত ঘুরিয়েছেন ফিঞ্চ। তবে আজকের মতো খুশি মনে হয় অজি এই অধিনায়ক আর কখনো হননি।

মার্কাস স্টয়নিস ইনজুরির কারণে বিশ্বকাপ থেকে ছিটকে গেছেন। স্টয়নিসের জায়গায় পাকিস্তানের বিপক্ষে শন মার্শকে নেওয়া হয়েছে। এশীয় পরাশক্তিদের বিপক্ষে স্টয়নিসকে দারুণ মিস করেছেন ফিঞ্চ। ব্যাট হাতে ধুমধাড়াক্কা ব্যাটিংয়ের পর বোলিংয়েও যে কম যান না স্টয়নিস। 

৩০৭ রানে অলআউট করার পর ব্যাট হাতেও অস্ট্রেলিয়াকে চোখ রাঙাচ্ছিল পাকিস্তান। একটা সময় মনে হচ্ছিল, অস্ট্রেলিয়াকে হারিয়ে পাকিস্তান বুঝি আরেকটা আপসেটের জন্ম দিতে যাচ্ছে। স্টয়নিসের বিকল্প না থাকায় নিজের হাতেই বল তুলে নেন ঞ্চি। ২৫তম ওভার শেষে যখন বল হাতে এলেন পাকিস্তানের রান তখন ৩ উইকেটে ১২৬। ৪৫ রানে অপরাজিত মোহাম্মদ হাফিজ তখন উইকেটে দারুণভাবে সেট। ফিঞ্চের প্রথম বলটাকে হাঁটু গেড়ে সুইপ করে মাঠের বাইরে পাঠিয়ে দিলেন সরফরাজ আহমেদ। 

পরের বলেই উইকেট পেতে পারতেন ফিঞ্চ। বলের লাইন মিস করেছিলেন সরফরাজ। সে যাত্রায় উইকেটরক্ষক ক্যারি বলটা ভালোভাবে গ্লাভসবন্দি করতে পারেননি। তৃতীয় বলে এক রান নিয়ে প্রান্ত বদলান সরফরাজ। পরের দুই বলে আরো দুটি সিঙ্গেল। শেষ বলে লোপ্পা একটা ফুলটস দেন ফিঞ্চ। সেটাকে সীমানা ছাড়া করতে চেয়েছিলেন 'প্রফেসর' হাফিজ। তবে দুরত্ব পাননি। ডিপ মিড উইকেটে লোপ্পা ক্যাচ নেন মিচেল স্টার্ক। 

এখানেই ম্যাচটা হাতছাড়া হয়ে গেল পাকিস্তানের। পরের ওভারে প্যাট কামিন্স ফিরিয়ে দেন শোয়েব মালিককে। ফিঞ্চের দ্বিতীয় ওভারটা ভালোভাবে পার করে পাকিস্তান। কামিন্সকে বসিয়ে এই প্রান্ত থেকে রিচার্ডসনকে নিয়ে আসেন ফিঞ্চ। আসিফ আলীকে ফিরিয়ে দিয়ে ম্যাচে পুরোপুরি চালকের আসনে বসে পড়ে অস্ট্রেলিয়া।