ইউরোপীয় ইউনিয়নের (ইইউ) সদস্য হতে আর মাত্র এক ধাপ দূরে ইউক্রেন! ইইউর প্রভাবশালী নেতারা কিয়েভ সফরের পর জোরদার হয়েছে এ-সংক্রান্ত আলোচনা। দেশটিকে প্রথমে জোটভুক্ত হওয়ার প্রক্রিয়ার জন্য প্রার্থিতা দেওয়া হবে। এরপর কিছু শর্ত পূরণ করতে হবে। এগুলো সন্তোষজনক হলেই দীর্ঘদিনের স্বপ্ন পূরণ হবে যুদ্ধবিধ্বস্ত এ রাষ্ট্রের। গতকাল শুক্রবার ইইউর নির্বাহী প্রধান উরসুলা ভন দের লায়েন বলেন, ফ্রান্সের প্রেসিডেন্ট ইমানুয়েল মাখোঁ, জার্মান চ্যান্সেলর ওলাফ শলৎজ, ইতালির প্রধানমন্ত্রী মারিও দ্রাঘি ইতিবাচক মত দেওয়ার পর ইউক্রেনকে জোটের সদস্য প্রার্থী হিসেবে স্বাগত জানানো উচিত।
আগামী সপ্তাহে ইউরোপীয় জোটের বৈঠক আছে। সেখানে ইউক্রেনকে সদস্য প্রার্থী হিসেবে গ্রহণের ব্যাপারে সিদ্ধান্ত হবে। তবে এর আগেই গতকাল এক দফা আলোচনা করবেন ইইউ নেতারা। এতে এ বিষয়ে মত দেবে সদস্য দেশগুলো। তবে ইউক্রেন ইতিহাসে সবচেয়ে দ্রুত ইইউভুক্ত হওয়ার প্রার্থিতা পেলেও দেশটিকে পূর্ণ সদস্য হতে আরও এক বছর বা এক দশকও অপেক্ষায় থাকতে হতে পারে।

জার্মান চ্যান্সেলর শলৎজ বলেন, ইউক্রেন ইউরোপীয় পরিবারেরই অংশ। দেশটিকে যতদিন প্রয়োজন হয় অস্ত্রসহ সব ধরনের সহায়তা দিয়ে যাবে বার্লিন। কিয়েভের সমর্থনে জোরালো বক্তব্য দিয়েছেন মাখোঁও। তাঁদের আশ্বাসে কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করে ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট ভলোদিমির জেলেনস্কি বলেন, ইইউ জোটের সদস্য হতে একসঙ্গে কাজ করতে প্রস্তুত কিয়েভ।

এদিকে, গত ২৪ ফেব্রুয়ারি ইউক্রেনে হামলা চালানোর পর থেকে রাশিয়ার ওপর দফায় দফায় অবরোধ ও নিষেধাজ্ঞা আরোপ করে যাচ্ছে পশ্চিমারা। এই পদক্ষেপ রুশ অর্থনীতির ওপর কতটা প্রভাব ফেলেছে, সে বিষয়ে ভাষণ দেবেন রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভদ্মাদিমির পুতিন। তবে নিষেধাজ্ঞার জবাবে ইউরোপের বিরুদ্ধে জ্বালানিকে 'অস্ত্র' হিসেবে ব্যবহার করছে মস্কো। দেশটির প্রাকৃতিক গ্যাস রপ্তানিকারক কোম্পানি গ্যাজপ্রম একের পর এক দেশে সরবরাহ বন্ধ করে দিচ্ছে, যা ইউরোপকে বেশ ভোগাচ্ছে। এই কৌশলের তীব্র নিন্দা জানিয়ে আসছেন ইউরোপীয় নেতারা। গতকাল ইতালির প্রধানমন্ত্রী বলেন, রাশিয়া গম ও জ্বালানিকে রাজনৈতিক উদ্দেশ্যে ব্যবহার করছে।

রাশিয়ার সেনাদের বহনকারী একটি নৌকায় আঘাত করেছে ইউক্রেন। দেশটির দখলকৃত অঞ্চল ওডেশার জিমিনেই দ্বীপে এই হামলা চালানো হয়েছে। তবে এতে ঠিক কতজন হতাহত হয়েছে, তা জানা যায়নি। অন্যদিকে, ইউক্রেনের দক্ষিণাঞ্চলীয় নগরী মাইকোলেইভের আবাসিক এলাকায় হামলা চালিয়েছে রুশ সেনারা। এতে সেখানে দু'জন নিহত এবং ২০ জন আহত হয়েছে। এ ছাড়া চলমান সংঘাতে এ পর্যন্ত দুই হাজার ভাড়াটে যোদ্ধা নিহত হয়েছে বলে রুশ প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় জানিয়েছে। এক বিবৃতিতে বলা হয়েছে, রাশিয়ার বিরুদ্ধে লড়তে যুক্তরাজ্য, পোল্যান্ড ও রোমানিয়া প্রায় ৭ হাজার ভাড়াটে যোদ্ধা এবং সমরাস্ত্র বিশেষজ্ঞ পাঠিয়েছিল। তাঁদের মধ্যে ২ হাজারের মতো পালিয়েছে এবং ২ হাজার নিহত হয়েছে।

ইউক্রেনের কয়েকটি এলাকার নিয়ন্ত্রণ নিলেও রাশিয়া আসলে এ যুদ্ধে 'কৌশলগতভাবে পরাজিত' হয়েছে। বর্তমানে দেশটি প্রচুর সৈন্য ও অস্ত্র হারাচ্ছে বলে মন্তব্য করেছেন যুক্তরাজ্যের ডিফেন্স স্টাফের প্রধান টনি রাদাকিন। তিনি বলেন, রাশিয়া ইউক্রেন থেকে যা অর্জন করবে, তার তুলনায় এক-চতুর্থাংশ সামরিক ক্ষমতা হারাবে দেশটি। পুতিন বিশাল শক্তি হারিয়ে সামান্য কিছু পাওয়ার চেষ্টা করছেন। এটি তাঁর 'ভয়াবহ' ভুল। তিনি আসলে পশ্চিমা সামরিক জোট ন্যাটোকেই শক্তিশালী করছেন।

মারিউপোলের মেয়রের উপদেষ্টা পেট্রো আন্ড্রিউশেনকো বলেন, রাশিয়ার দখলকৃত এই নগরীতে 'মধ্যযুগীয়' দুরবস্থা বিরাজ করছে। ৭২ শিশুসহ ইতোমধ্যে ১ হাজার ৩০০ প্রাণ ঝরেছে। বাসিন্দারা নানা সংকটে ভুগছেন; মাত্র দুই থেকে তিন শতাংশ বাড়িতে পানি সরবরাহ আছে। অন্যরা মানবেতর জীবন যাপন করছেন। জামাকাপড় ধোয়ার জন্য রাস্তা বা পার্শ্ববর্তী বিলের নোংরা পানি ব্যবহার করছেন তাঁরা। এতে স্বাস্থ্যগত মারাত্মক বিপর্যয় দেখা দিতে পারে। কলেরার প্রাদুর্ভাবও ঘটতে পারে বলে কয়েক দিন আগে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা আশঙ্কা প্রকাশ করেছিল।

এদিকে, মাদক পাচারের সঙ্গে জড়িত থাকার অভিযোগে মার্কিন এক সাবেক কূটনীতিকে ১৪ বছরের কারাদণ্ড দিয়েছেন রাশিয়ার একটি আদালত। তিনি গাঁজা চোরাকারবারির সঙ্গে জড়িত ছিলেন বলে জানানো হয়েছে।