মিঠামইনে নিম্নাঞ্চল প্লাবিত, সড়কে পানি

প্রকাশ: ১৯ মে ২২ । ১৬:৩৮ | আপডেট: ১৯ মে ২২ । ১৬:৫৫

মিঠামইন (কিশোরগঞ্জ) প্রতিনিধি

পানির তোড়ে ফেরির সংযোগ সড়ক তলিয়ে গেছে

পাহাড়ি ঢলে কিশোরগঞ্জের ঘোরাউএা ও ধনু নদীসহ বিভিন্ন নদীর পানি বৃদ্ধি অব্যাহত রয়েছে। নদীর তীর উপচে একের পর এক হাওরের সড়ক তলিয়ে যাচ্ছে। ইতোমধ্যে জেলা শহরের সাথে মিঠামইন, ইটনা, অষ্টগ্রামসহ কয়েকটি উপজেলায় সংযোগ স্থাপনকারী সড়কগুলো বন্ধ হয়ে গেছে।

এদিকে, পানির তোড়ে মিঠামইন বালিখলা ২টি ফেরির সংযোগ সড়ক তলিয়ে যাওয়ায় যানচলাচল বিঘ্ন ঘটছে। ফেরি বন্ধ থাকায় জীবনের ঝুঁকি নিয়ে অনেকেই ছোট ছোট ইঞ্জিন চালিত নৌকা নিয়ে ঘোরাউএা ও ধনু নদী পার হচ্ছেন।

বুধবার সকালে মিঠামইন থেকে কিশোরগঞ্জের উদ্দেশ্যে রওয়ানা দিয়ে রাস্তা পানিতে তলিয়ে যাওয়ার কারণে অনেক যাএীই অটোরিকশা নিয়ে ফেরত যান। মিঠামইনের ঘাগড়ার অটোরিকশাচালক রেজাউল জানান, যাএী নিয়ে মিঠামইন ফেরি ঘাট থেকে ফেরত আসছি। গোপদীঘির রাস্তায় নদীর তীর উপচে পানি হাওরে ঢুকে গেছে।

যাত্রীরা জানায়, মিঠামইন থেকে নদী পথে বালিখলা যেতে ৪ ঘন্টা সময় লাগে। অন্যদিকে গাড়ি দিয়ে যেতে সময় লাগত মাত্র ৪৫ মিনিট। এতে তারা পড়েছেন চরম দুর্ভোগে। মালামাল পরিবহনেও সমস্যা হচ্ছে।

ঘাগড়া ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মোখলেছুর রহমান ভুইঁয়া জানান,স্বাভাবিক  বর্ষার পানি আসতে আরও কমপক্ষে ২০/২৫ দিন সময় লাগতো।কিন্তু এ বছর আগাম বন্যা হওয়ার কারণে এলাকার লোকজন চরম দুর্ভোগে পড়েছে। সড়ক পথে যোগাযোগ ব্যস্থা অচল হয়ে পড়েছে। ঘোরাউএা ও ধনু নদীতে ইঞ্জিন চালিত নৌকায় ১০ টাকার ভাড়া ২০ টাকা নিচ্ছে। অথচ নদী পাড় হতে সময় লাগে মাত্র পাঁচ মিনিট।

ইউপি চেয়ারম্যান আরও জানান, সিলেটের সুরমা,কুশিয়ারার পানি নামা অব্যাহত রয়েছে। এ পানি নদী উপচে হাওরে ডুকে নিম্নাঞ্চল প্লাবিত হচ্ছে।

কিশোরগঞ্জ পানি উন্নয়ন বোর্ড, সিলেটের পানি উন্নয়ন বোর্ড বিভাগীয় কার্যালয়ের বরাত দিয়ে তিনি জানান, সুরমা নদীর পানি ১৪৪ সেন্টিমিটার এবং কুশিয়ারার পানি  ১৫৫ সেন্টিমিটার বিপদসীমার উপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। এ পানি আমাদের এলাকায় প্রবেশ করছে।এর জন্য ধনু ও ঘোরাউএা, বৌলাই নদীর পানি বৃদ্ধি পেয়ে -তীর উপচে হাওরে পানি প্রবেশ করছে।

© সমকাল ২০০৫ - ২০২২

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : মোজাম্মেল হোসেন । প্রকাশক : আবুল কালাম আজাদ

টাইমস মিডিয়া ভবন (৫ম তলা) | ৩৮৭ তেজগাঁও শিল্প এলাকা, ঢাকা - ১২০৮ । ফোন : ৫৫০২৯৮৩২-৩৮ | বিজ্ঞাপন : +৮৮০১৭১৪০৮০৩৭৮ | ই-মেইল: samakalad@gmail.com