ইসরায়েলের ঘনিষ্ঠ হচ্ছে পাকিস্তান?

প্রকাশ: ১৬ মে ২২ । ১৩:৪৫ | আপডেট: ১৭ মে ২২ । ০৪:১৫

অনলাইন ডেস্ক

ছবি: দ্য নিউজ ইন্টারন্যাশনাল

মুসলিম দেশগুলোর সঙ্গে সম্পর্ক তৈরির চেষ্টা ইসরায়েলের জন্য নতুন নয়। সাম্প্রতিক সময়ে বেশ কয়েকটি দেশ তেল আবিবের সঙ্গে সম্পর্ক স্বাভাবিক করেছে। যুক্তরাষ্ট্রের সাবেক প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের আমলে ইসরায়েলের সঙ্গে পাকিস্তানের সম্ভাব্য সম্পর্ক প্রতিষ্ঠার বিষয়টিও ছিল আলোচনায়। যদিও সে সময় ইসলামাবাদ এটি নাকচ করে দেয়। তবে চাপা পড়া বিষয়টি আবারও সামনে এসেছে একটি পাকিস্তানি-আমেরিকান প্রতিনিধি দলের ইসরায়েল সফরের পর।

দ্য নিউজ ইন্টারন্যাশনালের বরাতে এ তথ্য জানায় পাকিস্তানের সংবাদমাধ্যম জিউ টিভি।

বিদেশি সংবাদমাধ্যমের খবরের বরাতে বলা হয়, গত সপ্তাহে পাকিস্তানি-আমেরিকান একটি প্রতিনিধি দল ইসরায়েল সফর করেছে পাকিস্তান-ইসরায়েলের মধ্যে সম্পর্কের উন্নয়নের লক্ষ্যে।

এ সফর অনুষ্ঠিত হয় ইসরায়েলপন্থি বেসামরিক দল ‘সারাকা’র (আরবিতে এর অর্থ অংশীদারিত্ব) অর্থায়নে। এটি প্রতিষ্ঠিত হয় ২০২০ সালে, আব্রাহাম চুক্তির পর। যে চুক্তির মাধ্যমে সংযুক্ত আরব আমিরাত ও বাহরাইন ইসরায়েলকে স্বীকৃতি দিয়েছে। 

দলটি ইসরায়েলের সঙ্গে উপসাগরীয় দেশগুলোর সম্পর্ক উন্নয়নে কাজ করে। বর্তমানে ইসরায়েল, বাহরাইন ও সংযুক্ত আরব আমিরাতে এ দলের তিনটি শাখা রয়েছে।

সারাকার পক্ষ থেকে এক টুইটে জানানো হয়, ইসরায়েল সফরে পাকিস্তানের প্রথম অনুমতিপ্রাপ্ত ইহুদিসহ দক্ষিণপূর্ব এশিয়ার মুসলিম ও শিখদের একটি প্রতিনিধি দলকে প্রেসিডেন্ট ইসাক হারজগের সঙ্গে সাক্ষতের জন্য আনতে পেরে সারাকা সম্মানিত বোধ করছে। প্রতিনিধি দলের সদস্যরা ইসরায়েলের সঙ্গে সম্পর্ক উন্নয়নের প্রচেষ্টা নিয়ে আলোচনা করেছেন।

পাকিস্তানি প্রতিনিধি দলের নেতৃত্বে ছিলেন যুক্তরাষ্ট্রে পাকিস্তানি-আমেরিকান লবিস্ট আনেলা আলী। দলে পাকিস্তানিসহ অন্য দেশের মুসলিমরাও অন্তর্ভুক্ত ছিলেন।

বিদেশি এক সংবাদমাধ্যম জানায়, প্রতিনিধি দল ইসরায়েলের প্রেসিডেন্টের সঙ্গে সাক্ষাৎ করেছে। এ প্রতিনিধি দলে পাকিস্তানের সংবাদমাধ্যমের কিছু ‘বিখ্যাত’ মুখ ছিলেন। কেউ কেউ রাষ্ট্রীয় সংবাদমাধ্যমে কাজ করেন।

প্রতিনিধি দলে থাকা আহমেদ কোরাইশি রাষ্ট্রীয় টিভির কর্মী ছিলেন।

এদিকে প্রতিনিধি দলে আহমেদ কোরাইশি থাকায় তার তীব্র সমালোচনা করেছেন মানবাধিকার বিষয়ক সাবেক মন্ত্রী ড. শিরিন মাজারি। 

জবাবে কোরাইশি বলেন, ‘স্ব-নিযুক্ত ইসরায়েল বিরোধী যোদ্ধা ড. শিরিন মাজারি ২০০৫ সালে আইএসএসআইয়ের (ইনস্টিটিউট অব স্ট্রাটেজিক স্টাডিজ ইসলামাবাদ) ডিজি ছিলেন। ওনার ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা পররাষ্ট্রমন্ত্রী কোরাইশির সময় প্রথমবার তুরস্কে পাকিস্তান ও ইসরায়েলের মধ্যে বৈঠক হয়। তখন তিনি আপত্তি জানাননি। ২০০৮ সাল পর্যন্ত তিনি দায়িত্বে বহাল ছিলেন।

২০২১ সালের জুনে ইমরান খানের সাবেক সরকারের উপদেষ্টাদের ইসরায়েল সফর নিয়ে প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়েছিল। সে সময় পিপিপি চেয়ারম্যান বিলওয়াল ভুট্টো বলেছিলেন, পাকিস্তানি কর্মকর্তাদের ইসরায়েল সফর নিয়ে কিছু ধোঁয়াশা রয়েছে। যদিও পরে এ ধরনের সফরের কথা প্রত্যাখ্যান করা হয়েছে উপদেষ্টাদের পক্ষ থেকে। 

ইমরান খানের সাবেক স্ত্রী ইহুদি পরিবারের হওয়ায় পাকিস্তান-ইসরায়েলে সম্পর্ক প্রতিষ্ঠার চেষ্টা নিয়ে সে সময় সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম সরগরম ছিল। দেশটির ভঙ্গুর অর্থনীতি ও রাজনৈতিক সংকটের মধ্যে এ বিষয়টিও ব্যাপক গুরুত্ব পায়।

© সমকাল ২০০৫ - ২০২২

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : মোজাম্মেল হোসেন । প্রকাশক : আবুল কালাম আজাদ

টাইমস মিডিয়া ভবন (৫ম তলা) | ৩৮৭ তেজগাঁও শিল্প এলাকা, ঢাকা - ১২০৮ । ফোন : ৫৫০২৯৮৩২-৩৮ | বিজ্ঞাপন : +৮৮০১৭১৪০৮০৩৭৮ | ই-মেইল: samakalad@gmail.com