নেশার টাকা না পেয়ে স্ত্রীকে জবাই

প্রকাশ: ০৭ মার্চ ২২ । ১৮:০২ | আপডেট: ০৭ মার্চ ২২ । ১৮:০৬

ধামরাই (ঢাকা) প্রতিনিধি

ধামরাইয়ে স্ত্রী হত্যার ঘটনায় আটক স্বামী তামিম হোসেন। ছবি- সমকাল

রাজধানী ঢাকার ধামরাইয়ে নেশার টাকা না পেয়ে ঘরের দরজা আটকে ছয় মাসের সন্তানের সামনেই স্ত্রীকে কুপিয়ে ও জবাই করে হত্যা করেছে স্বামী। এরপর প্রতিবেশীরা ঘরের দরজা ভেঙ্গে ঘাতক স্বামী তামিম হোসেনকে (২৮) আটকের পর গণপিটুনি দিয়ে পুলিশে সোপর্দ করে।

সোমবার দুপুরে ধামরাইয়ের গাংগুটিয়া ইউনিয়নের হাতকোড়া গ্রামে এ ঘটনা ঘটে

আটক তামিম হাতকোড়া গ্রামের আব্দুল বারেকের ছেলে। পুলিশ এসে ঘাতক স্বামীকে আটকের পাশাপাশি নিহত ফাতেমার দ্বিখন্ডিত লাশ উদ্ধার করে।

এলাকাবাসী জানায়, দুই বছর আগে ধামরাইয়ের হাতকোড়া গুচ্ছগ্রামের বাসিন্দা হাইজুল ইসলামের মেয়ে ফাতেমা বেগমকে (২৪) বিয়ে করেন তামিম হোসেন। তাদের সংসারে ছয় মাসের একটি পুত্র  সন্তান রয়েছে। সোমবার দুপুরে শ্বশুড়বাড়ি থেকে স্ত্রীকে নিয়ে নিজ বাড়িতে যায় তামিম।

এরপর স্ত্রীর কাছে নেশার জন্য টাকা চায় তামিম। টাকা না পেয়ে ঘরের দরজা আটকে তার ছয় মাসের সন্তানের সামনেই ধারালো অস্ত্র দিয়ে স্ত্রীকে কুপিয়ে ও জবাই করে হত্যা করে তার স্বামী। এতে ফাতেমার গলা থেকে দেহ দ্বিখন্ডিত হয়ে যায়।

এসময় শব্দ পেয়ে ঘরের দরজা ভেঙ্গে তামিমকে আটকের পর গণপিটুনি দিয়ে গাছের সঙ্গে বেধে ফেলে প্রতিবেশীরা। পরে তাকে পুলিশের কাছে সোপর্দ করা হয়।

ফাতেমার বাবা হাইজুল ইসলাম জানান, তামিম দিনমুজুরি করে সংসার চালাতো এবং প্রায়ই নেশা করতো। নেশার টাকা না পেলে সে প্রায়ই ফাতেমাকে মারধর করতো। আমার ছয় মাসের নাতিকে এতিম করে দিল। আমি তামিমের ফাঁসি চাই।

ধামরাই থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) ওয়াহিদ পারভেজ জানান, ফাতেমার লাশ উদ্ধার ও ঘাতক স্বামীকে আটক করা হয়েছে। এর আগেও তামিমের বিরুদ্ধে ধামরাই থানায় ছিনতাই ও মাদক মামলা রয়েছে। ফাতেমা হত্যার ঘটনায় থানায় মামলা দায়ের করার প্রস্তুতি চলছে।

© সমকাল ২০০৫ - ২০২২

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : মোজাম্মেল হোসেন । প্রকাশক : আবুল কালাম আজাদ

টাইমস মিডিয়া ভবন (৫ম তলা) | ৩৮৭ তেজগাঁও শিল্প এলাকা, ঢাকা - ১২০৮ । ফোন : ৫৫০২৯৮৩২-৩৮ | বিজ্ঞাপন : +৮৮০১৭১৪০৮০৩৭৮ | ই-মেইল: samakalad@gmail.com