সমকালে সংবাদ প্রকাশের জের

হাটহাজারীতে ইভটিজিং বন্ধে বখাটের তালিকা, আটক ২০

০৭ জুলাই ২০১৯

হাটহাজারী প্রতিনিধি

ইভটিজিংয়ের দায়ে বখাটেদের আটক করে নিয়ে যাচ্ছে পুলিশ -সমকাল

হাটহাজারীর শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে বখাটের উৎপাত বৃদ্ধি পেয়েছে। বখাটেরা শিক্ষার্থীদের বিভিন্নভাবে উত্ত্যক্ত করে। তারা ছাত্রীদের পিছু নিয়ে ছোট কাগজে নিজেদের মোবাইল নম্বর লিখে ছাত্রীদের চলার পথে ছুড়ে মারে, হাসি-ঠাট্টা করে। তারা ছাত্রীদের গতিরোধ করে ফোনালাপের জন্য মোবাইল নম্বর চায়। প্রশাসনের নজরদারি না থাকায় গত ছয় মাস ধরে হাটহাজারী উপজেলায় স্কুল, কলেজ, মাদ্রাসাসহ বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের আশপাশে বখাটেদের দৌরাত্ম্য ব্যাপকভাবে পায়। কখনও এককভাবে আবার কখনও দলবদ্ধভাবে এসব বখাটে স্কুল-কলেজ পড়ূয়া মহিলা শিক্ষার্থীদের চলার পথে উত্ত্যক্ত করে। জানাজানি হলে সামাজিকভাবে পরিবারের ওপর নানা অপবাদ আসতে পারে- এমন ভয়ে ছাত্রীদের অভিভাবকরাও প্রশাসনের কাছে লিখিত অভিযোগ করতে সাহস করেন না। ঝামেলা এড়াতে অনেক ক্ষেত্রে অভিভাবকরা মেয়েদের বাল্যবিয়ে দিতে বাধ্য হন।

এ বিষয়ে গত ২৯ এপ্রিল সমকালের আঞ্চলিক ক্রোড়পত্র প্রিয় চট্টগ্রাম-এ 'হাটহাজারীর শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে বখাটের উৎপাত' শিরোনামে সংবাদ প্রকাশের পর বখাটেদের ধরতে নানা কৌশল অবলম্বন করেছে পুলিশ প্রশাসন। এলাকাভিত্তিক বখাটেদের তালিকাও তৈরি করা হয়। অবশেষে বখাটেদের ধরতে গত সোম, মঙ্গল ও বুধবার সদরের হাটহাজারী পার্বতী মডেল সরকারি উচ্চ বিদ্যালয় এবং হাটহাহাজারী বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় ও কলেজ এবং বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান সংলগ্ন এলাকায় অভিযান পরিচালনা করে পুলিশ। সাদা পোশাকে স্কুল ছুটির আগে ও পরে হাটহাজারী সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আবদুল্লাহ আল মাসুম এবং থানার ওসি বেলাল উদ্দিন জাহাঙ্গীর পুলিশ ফোর্স নিয়ে ওঁৎ পেতে থাকেন। ইভটিজিংয়ের অপরাধে ২০ জনকে আটক করা হয়। এ সংবাদ ছড়িয়ে পড়লে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান সংলগ্ন এলাকায় বখাটেদের দৌরাত্ম্য কমে আসে।

সরেজমিন উপজেলার বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে গিয়ে স্থানীয়দের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, বখাটেদের উৎপাত বন্ধে পুলিশের অভিযানকে সাধুবাদ জানান তারা। কামালপাড়া যুবসংঘের সভাপতি ফিরোজ এবং হাটহাজারী বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় ও কলেজের সভাপতি নাজিম উদ্দিন ও বেশ কয়েকজন অভিভাবক বলেন, 'বখাটের উৎপাত অনেকটা কমে এসেছে। অনেক বখাটে এলাকা ছেড়ে পালিয়েছে।' বখাটেদের দৌরাত্ম্য বন্ধে তারা প্রশাসনের প্রতি নিয়মিত নজরদারি ও অভিযান অব্যাহত রাখার আহ্বান জানান।

এ বিষয়ে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আবদুল্লাহ আল মাসুম সমকালকে বলেন, 'সমকালে সংবাদ প্রকাশের পর আমরা তৎপর রয়েছি। দুই দিনের অভিযানে ২০ জনকে ইভটিজিংয়ের অপরাধে আটক করেছি। তাদের প্রায় সবার বয়স ১৮-এর কম। মুচলেকা নিয়ে তাদের অভিভাবকদের জিম্মায় ছেড়ে দেওয়া হয়েছে। একজনকে ভ্রাম্যমাণ আদালতে সাজা দেওয়া হয়েছে। তিনি আরও বলেন, এলাকাভিত্তিক বখাটের তালিকা তৈরির কাজ চলমান আছে। ইতিমধ্যে ৪০ জন বখাটের তালিকা তৈরি করা হয়েছে।

© সমকাল ২০০৫ - ২০২০

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : মুস্তাফিজ শফি । প্রকাশক : এ কে আজাদ

টাইমস মিডিয়া ভবন (৫ম তলা) | ৩৮৭ তেজগাঁও শিল্প এলাকা, ঢাকা - ১২০৮ । ফোন : ৫৫০২৯৮৩২-৩৮ | বিজ্ঞাপন : +৮৮০১৯১১০৩০৫৫৭, +৮৮০১৯১৫৬০৮৮১২ (প্রিন্ট), +৮৮০১৮১৫৫৫২৯৯৭ (অনলাইন) | ইমেইল: samakalad@gmail.com (প্রিন্ট), ad.samakalonline@outlook.com (অনলাইন)