কুমিল্লার ঘটনাকে কেন্দ্র করে দেশের বিভিন্ন এলাকায় ছড়িয়ে পড়া সহিংসতার জন্য সরকারকে দায়ী করেছেন নাগরিক ঐক্যের আহ্বায়ক মাহমুদুর রহমান মান্না। তিনি বলেছেন, সরকার কোনো সহিংসতা ঠেকাতে পারেনি। সহিংসতা নিয়ন্ত্রণে তারা ব্যর্থ।

সোমবার এক বিবৃতিতে তিনি এসব কথা বলেন। ডাকসুর সাবেক ভিপি মান্না বলেন, 'কুমিল্লার ঘটনাকে কেন্দ্র করে অন্যান্য ঘটনায় সরকার দায়িত্বশীল আচরণ করেনি। যারা এসব ঘটনায় জড়িত, পুলিশ তাদের গ্রেপ্তার না করে নিরীহ মানুষকে ধরে নিয়ে অমানবিক নির্যাতন করেছে। মানুষ ভয়ে ঘরে থাকতে পারছে না। গ্রাম খালি হয়ে যাচ্ছে।'

মাহমুদুর রহমান মান্না আরও বলেন, 'সরকার গোয়েন্দা সংস্থাগুলোকে কেবল সরকারের বিরোধিতা ও সমালোচনা দমন করতে এবং নিজেদের ক্ষমতা টিকিয়ে রাখার কাজে ব্যস্ত রেখেছে। তাদের মূল দায়িত্ব জনগণের জানমালের হেফাজত করা। কিন্তু ধর্মীয় সহিষ্ণুতার দেশে সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি বিনষ্টের দায় সম্পূর্ণভাবে এই সরকারের।' 

তিনি বলেন, 'গ্রামের পর গ্রাম পুড়ে ছাই হচ্ছে। নিরীহ নিরপরাধ হিন্দু-মুসলমান নির্যাতন ও হত্যার শিকার হচ্ছেন। সরকারের কাছে জনগণের জীবনের কোনো মূল্য নেই।'

মান্না আরও বলেন, 'এই সরকার জনগণের সরকার নয়। তারা দেশের এই অস্থিতিশীল পরিস্থিতিতে কার্যকর ভূমিকা নিতে ব্যর্থ। দ্রব্যমূল্যের ক্রমাগত ঊর্ধ্বগতি নিয়ন্ত্রণে তাদের কোনো উদ্যোগ নেই; সরকারের মদদপুষ্ট সিন্ডিকেটগুলোই এর পেছনে দায়ী। সরকার মানুষের জীবন ও সম্পদের নিরাপত্তা দিতে পারে না। ধর্মীয় মূল্যবোধকে সমুন্নত রাখতে পারে না। জনগণ এই সরকারকে চায় না। এ মুহূর্তে সরকারের পদত্যাগ করা উচিত।'