ছাত্রদলের সমাবেশে ‘পুলিশি হামলা’র প্রতিবাদে একদিনের কর্মসূচি ঘোষণা করেছে সংগঠনটি। সোমবার সারাদেশের জেলা, মহানগর এবং বিশ্ববিদ্যালয়ের ইউনিটে বিক্ষোভ ও প্রতিবাদ সমাবেশ করবে সংগঠনের নেতাকর্মীরা। রোববার বিকেলে ছাত্রদলের সহ-দফতর সম্পাদক আজিজুল হক সোহেল স্বাক্ষরিত এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, বিদ্যমান অবৈধ অগণতান্ত্রিক সরকারের গাত্রদাহ ‘প্রচার মাধ্যমের স্বাধীনতা’ ভূলুণ্ঠিত করার আরো একটি কলঙ্কজনক উদাহরণ কারাবন্দী সাংবাদিক মুশতাককে হত্যা। এই বর্বর হত্যার প্রতিবাদে ছাত্রদল আহুত বিক্ষোভ সমাবেশে পুলিশ বাহিনী কর্তৃক নগ্ন হামলার প্রতিবাদে এ বিক্ষোভ কর্মসূচি ঘোষণা করা হয়েছে। ছাত্রদলের কেন্দ্রীয় সভাপতি ফজলুর রহমান খোকন ও সাধারণ সম্পাদক ইকবাল হোসেন শ্যামল এই কর্মসূচি পালনের জন্য সংশ্লিষ্ট সবার প্রতি আহ্বান জানান।

বিভিন্ন দল ও সংগঠনের নিন্দা: জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে ছাত্রদলের সমাবেশে পুলিশি বাধা, হামলা, লাঠিচার্জ, টিয়ারসেল ও রাবার বুলেট নিক্ষেপের ঘটনায় বিভিন্ন রাজনৈতিক দল ও সংগঠন নিন্দা জানিয়েছে।

বাংলাদেশ কল্যাণ পার্টির চেয়ারম্যান মেজর জেনারেল (অব.) সৈয়দ মুহাম্মদ ইবরাহিম ছাত্রদলের বিক্ষোভ সমাবেশে ‘পুলিশের হামলা’র নিন্দা জানিয়ে বলেছেন, বিরোধী দল ও মতকে দমন করতে সরকার নির্লজ্জভাবে পুলিশ বাহিনীকে ব্যবহার করছে। কোনো গণতান্ত্রিক দেশের পুলিশের আচরণ এমন হতে পারে না। শান্তিপূর্ণ সমাবেশে এই হামলাই প্রমাণ করে সরকার দেশের গণতান্ত্রিক সব অধিকার কেড়ে নিতে চায়। একইভাবে লিবারেল ডেমোক্রেটিক পার্টি-এলডিপি, বিএনপিপন্থি চিকিৎসকদের সংগঠন ডক্টরস অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ-ড্যাব নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছে।

মন্তব্য করুন