সুজেয় শ্যামের শারীরিক অবস্থার উন্নতি

প্রকাশ: ২৭ মে ২০২০   

বিনোদন প্রতিবেদক

শারীরিক অবস্থার উন্নতির দিকে স্বাধীন বাংলা বেতার কেন্দ্রের প্রখ্যাত কণ্ঠযোদ্ধা ও জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারপ্রাপ্ত সংগীত পরিচালক সুজেয় শ্যামের। এর আগে করোনা উপসর্গ নিয়ে হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন তিনি। মঙ্গলবার দিবাগত রাতে শ্বাস প্রশ্বাসের কষ্ট হওয়ায় কলাবাগানের বাসা থেকে কুর্মিটোলা হাসপাতালে নেওয়া হয় তাকে। সেখানেই ভর্তি করা হয়। 

সুজেয় শ্যামের শারীরিক অবস্থা উন্নতির কথা সমকালকে জানান তার মেয়ে লিজা শ্যাম।  তিনি জানান, 'বাবার কয়েকদিন আগে জ্বর হয়েছিল। খুব বেশি না তাপমাত্রা ওঠানামা করছিল। আমরা চিকিৎসকের পরামর্শে ঔষধ দিয়েছিলাম। সেটা কমে যায়। গতরাতে হঠাৎ করেই শ্বাস্কষ্ট দেখা দেওয়ায় আমরা দ্রুত হাসপাতালে নিয়ে আসি। যদিও বাবার পূর্ব থেকেই ফুসফুসে একটু সমস্যা রয়েছে, তবে মঙ্গলবার রাতে শ্বাস কষ্ট বেশি দেখা দেয়। যার কারণে আমরা হাসপাতালে নিয়ে আসি। রাতে অক্সিজেন দেওয়া হয়েছিল। এখন অনেকটাই ভালো রয়েছেন।'

তিনি আরও বলেন, 'যেহেতু চিকিৎসকেরা সাসপেক্ট করছেন যে করোনা, সেহেতু কিছুক্ষণের মধ্যেই নমুনা নেওয়া হবে বাবার শরীর থেকে। এরপর বোঝা যাবে আসলে তিনি কভিড ১৯ এ আক্রান্ত কি না।'

দেশের চলচ্চিত্রের গানে অসাধারণ অবদান রেখে শ্রেষ্ঠ সংগীত পরিচালক হিসেবে এ পর্যন্ত ৩টি জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার অর্জন করেছেন সুজেয় শ্যাম। মুক্তিযুদ্ধের সময়ে স্বাধীন বাংলা বেতারে প্রচারিত তার সুর করা গানগুলোর মধ্যে ‘বিজয় নিশান উড়ছে ঐ’, ‘রক্ত দিয়ে নাম লিখেছি, বাংলাদেশের নাম’, ‘আজ রণ সাজে বাজিয়ে বিষাণ’, ‘মুক্তির একই পথ সংগ্রাম’, ‘ওরে আয়রে তোরা শোন’, ‘আয়রে চাষী মজুর কুলি’, ‘রক্ত চাই, রক্ত চাই’, ‘আহা ধন্য আমার’ উল্লেখযোগ্য।

সুজেয় শ্যাম ১৯৪৬ সালের ১৪ মার্চ তৎকালীন ব্রিটিশ ভারতের সিলেট জেলায় জন্মগ্রহণ করেন। ১৯৬৯ সালে সঙ্গীত পরিচালক রাজা হোসেনের সাথে পরিচিত হন এবং একত্রে রাজা-শ্যাম নামে বাংলাদেশী চলচ্চিত্রের সঙ্গীত পরিচালনা শুরু করেন।