পুজোর শেষে এবার মিষ্টি মুখে প্রতিমা বিদায়ের পালা। দশমীতে মিষ্টির চাহিদা সর্বদা তুঙ্গেই থাকে। মিষ্টি ছাড়া বিজয়ার শুভেচ্ছা বিনিময়ের কথা ভাবাই যায় না। সেক্ষেত্রে দোকান থেকে কিনে নয়, বাড়িতেই তৈরি করতে পারেন মিষ্টি।



চমচম
উপকরণ : দুধ সাড়ে পাঁচ কাপ, চার টেবিল চামচ ভিনেগার,১/৪ কাপ পানি, দুই চা চামচ সুজি, এক চিমটে বেকিং পাউডার, চার কাপ পানি, পাউডার চিনি আড়াই কাপ

চমচম তৈরির পদ্ধতি

১. প্রথমে চুলায় দুধ বসিয়ে বেশ কিছুক্ষণ খুব ভাল করে ফোটান। নাড়তে থাকবেন ঘন ঘন।  ফোটানো হয়ে গেলে চুলা বন্ধ করে দিন।

২. এরপর ভিনেগারের সাথে সামান্য পানি মিশিয়ে দুধে ঢেলে মিশিয়ে নিন। ছানা কেটে গেলে একটি বাটির ওপর পরিষ্কার কাপড় রেখে, তার ওপর ছানা ঢেলে নিন। ছানার ওপরে কিছুটা পানি ঢেলে, কাপড়টা হাতে ধরে ওপর থেকে চেপে চেপে ছানা থেকে ভালভাবে পানি ঝরিয়ে নিন।

৩. এবার একটি প্লেটে ছানাটা ঢেলে খুব ভাল করে মাখুন। তারপর তাতে সুজি দিয়ে আরও ভালভাবে মাখুন।

৪. এরপর তাতে এক চিমটে বেকিং পাউডার দিয়ে আটা-ময়দার মতো করে ঠেসে ঠেসে মাখুন। মাখা হয়ে গেলে, ছোট ছোট আকৃতি করুন।

৫. আবার চুলায় কড়াই বসিয়ে তাতে পানি ও পাউডার চিনি দিয়ে নেড়ে নিয়ে ফোটান।

৬. এবার হাতে ঘি মাখিয়ে ছোট আকৃতির মিশ্রণগুলো লম্বা লম্বা করে চমচমের আকার দিন। তারপর চিনির রসে ছেড়ে দিন সবগুলো। ২০ মিনিট হাই হিটে ঢাকা দিয়ে রান্না করুন।

৭. তারপর তিন ঘণ্টা মাঝারি আঁচে সেগুলি রান্না করুন। প্রতি ঘণ্টায় এক কাপ করে গরম পানি মেশাবেন। অবশ্যই ঢাকা দিয়ে রান্না করবেন। দেখবেন রঙটা পরিবর্তন হয়ে এসেছে।

৮. সবশেষে ওপরে দুই-তিনটে ছোটো এলাচ ছড়িয়ে আরও কিছুক্ষণ ঢাকা দিয়ে রান্না করে নিন। ব্যস, তৈরি হয়ে গেল চমচম।



বালুসাই

উপকরণ: ১৭৫ গ্রাম ময়দা, ১৭৫ গ্রাম চিনি, ১/৪ চামচ বেকিং সোডা, ২ চামচ গলানো ঘি, পৌনে এক চামচ দই, হাফ কাপ পানি, মাখার জন্য ঠান্ডা পানি, ভাজার জন্য ঘি, স্বাদের জন্য পেস্তা কুচি।

প্রস্তুত প্রণালি : ময়দা আর বেকিং সোডা ভাল করে মিশিয়ে নিন। এর পরে ঘি আর দই ভাল ভাবে মাখিয়ে নিন। এখন ঠান্ডা পানি দিয়ে ভালভাবে ময়দা মেখে নিতে হবে। তার পরে ১৫ মিনিটের জন্য ঢেকে রেখে দিতে হবে। অন্যদিকে চিনির সিরা তৈরি করে নিতে হবে।

এবার মাখা ময়দা থেকে ছোট ছোট বলের মত তৈরি করুন। এরপর এক একটি বলকে ভাল করে গোল আকার দিয়ে বুড়ো আঙ্গুলের চাপ দিয়ে মাঝখানে একটা গর্ত তৈরি করুন। এর পরে কড়াইয়ে ঘি গরম করে সেই ঘি হাল্কা ঠান্ডা করে এক একটি বল ছেড়ে দিতে হবে। একসাথে ৪-৫টির বেশি বালুসাই ভাজা যাবে না। এপিঠ-ওপিঠ করে ভাল করে ভেজে নিতে হবে। পুরোটাই মাঝারি তাপমাত্রায় হবে। সম্পূর্ণ ভাজা হলে তুলে নিন এবং ঠাণ্ডা করে চিনির সিরায় ফেলে দিন। সবশেষে  উপরে পেস্তা কুচি দিয়ে সাজিয়ে দিন।


বিষয় : দুর্গাপূজা রেসিপি মিষ্টি

মন্তব্য করুন