বগুড়ার ধুনটে আদালতে সাক্ষ্য দিতে যাওয়ার পথে মামলার আসামিদের হামলা ও মারধরে আব্দুল খালেক (৬৫) নামে এক ব্যক্তি মারা গেছেন। তিনি উপজেলার কোদলাপাড়া গ্রামের মৃত আজাহার আলীর ছেলে।

মঙ্গলবার সকালে উপজেলার কালেরপাড়া ইউনিয়নের কোদলাপাড়া গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় পুলিশ ৫ জনকে আটক করেছে।

পুলিশ ও নিহতের পারিবারিক সূত্রে জানা যায়, কোদলাপাড়া কেন্দ্রীয় জামে মসজিদের কোষাধ্যক্ষ মোজাম্মেল হকের কাছ থেকে ১ মণ চাল বাকিতে কেনেন একই গ্রামের আব্দুস সাত্তার। কিন্তু টাকা দিতে টালবাহানা করায় ৩ নভেম্বর দু'জনের মধ্যে মারামারি হয়। এ ঘটনায় কোষাধ্যক্ষ, তাঁর ছেলে ফজলুল হকসহ ৭ জনকে আসামি করে বগুড়া আদালতে মামলা করেন সাত্তার।

ওই মামলার সাক্ষী ছিলেন খালেক। তিনি বাদীর ভাই। আজ মঙ্গলবার বগুড়া আদালতে মামলার হাজিরা ছিল তাঁর।

বাদী সাত্তারের সঙ্গে খালেক সকালের দিকে আদালতের উদ্দেশে বাড়ি থেকে বের হন। পথে কোদলাপাড়া এলাকায় পৌঁছলে তাঁদের ওপর হামলা চালান মামলার ১ নম্বর আসামি ফজলুল হক ও তাঁর লোকজন।

এতে সাত্তার ও খালেক গুরুতর আহত হন। পরে খালেককে অচেতন অবস্থায় বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিলে চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন।

পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে বলে জানান ধুনট থানার ওসি রবিউল ইসলাম।