খুলনার আলোচিত আট বিয়ে করা তরুণী সুলতানা পারভীন নীলা ওরফে বৃষ্টিকে জেলহাজতে পাঠিয়েছেন আদালত। প্রতারণা মামলায় সোমবার ঢাকার একটি আদালতে হাজির হয়ে জামিনের জন্য আবেদন করলে শুনানি শেষে তাঁকে জেলহাজতে পাঠানোর নির্দেশ দেন বিচারক। অপর আসামি তাঁর বড় ভাই শফিকুল আলম বিপ্লবকে জামিন দেন আদালত।

নীলার সাবেক স্বামী (সপ্তম) এম রহমানের দায়ের করা মামলার আইনজীবী ওয়াদুদ শাহীন জানান, ঢাকার ১৪ নম্বর আদালতের বিচারক মাইনুল হোসেন শুনানি শেষে এ আদেশ দেন। নীলা খুলনা নগরীর সোনাডাঙ্গা আবাসিক এলাকার সুলতানুল আলম বাদলের মেয়ে।

ঢাকায় সিআইডির এসআই রফিকুল ইসলাম বলেন, নীলা প্রতারণার ফাঁদে ফেলে এ পর্যন্ত আটজনকে বিয়ে করেন। তাঁর সপ্তম স্বামী এম রহমান তাঁর বিরুদ্ধে ঢাকার আদালতে প্রতারণা মামলা করেন। সেই মামলা তদন্তের দায়িত্ব পায় ঢাকার সিআইডি। দীর্ঘ তদন্ত শেষে চার আসামির বিরুদ্ধে চার্জশিট দাখিল করে। আদালত গত ১৩ সেপ্টেম্বর আসামিদের বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করেন।

তিনি বলেন, নীলা একেক সময় একেকজনকে প্রতারণা করে বিয়ে করেন। তাঁকে নিঃস্ব করে আবার অন্যজনকে বিয়ে করেন। নীলার একাধিক সাবেক স্বামী জানান, ধনাঢ্য ও পদস্থ কর্মকর্তা ও চাকরিজীবীদের বিয়ে করে তিনি হাতিয়ে নিয়েছেন অর্থ-সম্পদ। পরে তাঁদের বিরুদ্ধে নারী নির্যাতনসহ যৌতুক দাবি-সংক্রান্ত একাধিক মামলা করে নিঃস্ব করে ছেড়েছেন।