ভারতের তামিলনাড়ুতে হেলিকপ্টার দুর্ঘটনায় দেশটির চিফ অব ডিফেন্স স্টাফ (সিডিএস) বিপিন রাওয়াত, তার স্ত্রী মধুলিকা রাওয়াতসহ মোট ১৩ জন নিহত হয়েছেন। 

মধুলিকা রাওয়ত ভারতীয় সেনা সর্বাধিনায়ক বিপিন রাওয়াতের স্ত্রী হিসেবে তো বটেই, সমাজসেবী হিসেবেও পরিচিত ছিলেন। সেনা বাহিনীর শহিদদের বিধবা স্ত্রী ও সন্তানের জন্য কাজ করেছেন তিনি।

আনন্দবাজার পত্রিকা জানায়, স্বামী সর্বাধিনায়ক হওয়ায় মধুলিকা ছিলেন 'ডিফেন্স ওয়াইভস ওয়েলফেয়ার অ্যাসোসিয়েশন'-এর সঙ্গে যুক্ত। আরও একটি সংগঠনের সঙ্গে যুক্ত ছিলেন তিনি। সেটি ভারতের অন্যতম বড় স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন 'আর্মি ওয়াইভস ওয়েলফেয়ার অ্যাসোসিয়েশন'। 

মৃত জওয়ানদের স্ত্রী তথা বীর-নারী এবং সন্তানদের জন্য বিভিন্ন কল্যাণমূলক কর্মসূচিতে নিয়মিত দেখা যেত মধুলিকাকে। মৃত জওয়ানদের স্ত্রীদের স্বাবলম্বী করে তুলতে এই সংগঠন বিউটিশিয়ান কোর্স চালায়। এছাড়াও কেক ও চকলেট বানানো শেখানো হয়। সেই সব কাজে যুক্ত ছিলেন মধুলিকা। তার পরিচালনায় ওই সংগঠন সেনা পরিবারের স্বাস্থ্য সচেতনতা বাড়াতেও নানা কর্মসূচি নেয়।

সেনা সূত্রে জানা গেছে, মধুলিকা ক্যানসার রোগীদের জন্যও বিভিন্ন কাজে যুক্ত ছিলেন।

দিল্লি বিশ্ববিদ্যালয় থেকে মনস্তত্ত্ব বিষয়ে স্নাতক করেন মধুলিকা। বিপিন রাওয়াতের সঙ্গে বিয়ের পর থেকেই নানা সমাজকল্যাণমূলক কাজে যুক্ত হন। একই সঙ্গে মানুষ করেন তাদের দুই কন্যাকে।