করোনা ভাইরাস ও এর টিকা নিয়ে যেসব অ্যাকাউন্ট থেকে ভুল তথ্য ছড়ানো হয়েছে, সেসব অ্যাকাউন্ট স্থায়ীভাবে বাতিল করে দিচ্ছে টুইটার। এরই মধ্যে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমটি এসব অ্যাকাউন্ট চিহ্নিত করার কাজ শুরু করেছে।

মাইক্রোব্লগিং প্ল্যাটফর্মটি সোমবার একটি স্ট্রাইক সিস্টেম চালু করেছে, যা কম পক্ষে পাঁচবার ভুল তথ্য ছড়ানো অ্যাকাউন্টগুলোকে সতর্ক করবে। এরপরও অবস্থার উন্নতি না হলে স্থায়ী নিষেধাজ্ঞার দিকে এগোবে। খবর আল জাজিরার।

সান ফ্রান্সিসকোভিত্তিক সংস্থা একটি ব্লগ পোস্টে বলেছে, আমাদের বিশ্বাস, এর ফলে ব্যবহারকারীরা আমাদের বিধিগুলো বুঝতে পারবে এবং টুইটারে সম্ভাব্য ক্ষতিকারক এবং বিভ্রান্তিকর তথ্য ছড়ানো থেকে বিরত রাখবে।

ব্লগ পোস্টে মোট পাঁচটি ধাপে এই বন্ধকরণ প্রক্রিয়া শুরু হবে বলে জানানো হয়েছে। কোনো টুইটকে বিভ্রান্তিমূলক বা উদ্দেশ্যমূলক মনে হলে কর্তৃপক্ষ ব্যবহারকারীকে তা অবহিত করবে। দ্বিতীয় তৃতীয় স্ট্রাইকে নিয়ম লঙ্ঘনকারীদের অ্যাকাউন্ট ১২ ঘণ্টার জন্য বন্ধ করে দেয়া হবে। চতুর্থবার লঙ্ঘন করলে সাতদিনের জন্য অ্যাকাউন্টটিকে অচল করে রাখা হবে। আর পঞ্চম স্ট্রাইকে তা স্থায়ীভাবে বন্ধ হয়ে যাবে।

যোগাযোগ মাধ্যমটি গত বছরের শেষের দিকে যারা কোভিড ১৯ নিয়ে ভুল তথ্য ছড়িয়েছে, সেগুলো সরিয়ে নিতে বলেছে। এরই মধ্যে টুইটার ৮ হাজার ৪০০ এর বেশি টুইট মুছে ফেলেছে। সারা বিশ্বে করোনা সম্পর্কিত ভুল তথ্য ছড়ানো ১০ কোটির বেশি অ্যাকাউন্টকে অবহিত করেছে।

ইউটিউব এবং ফেসবুকও  করোনা ও  ভ্যাকসিন সম্পর্কিত মিথ্যা তথ্য ছড়ানোর বিরুদ্ধে পদক্ষেপ নিয়েছে।

মন্তব্য করুন