পাঁচ মাস পর রাশিয়ায় ফেরার পরই ৩০ দিনের জেল দেওয়া হয়েছে বিরোধীদলীয় নেতা অ্যালেক্সেই নাভালনিকে। সোমবার দেশটির একটি আদালত তাকে জেলে দেওয়ার আদেশ দেন। খবর আলজাজিরার।

বিষপ্রয়োগে অসুস্থ হওয়ার পাঁচ মাস পর নাভালনি ও তার স্ত্রী স্থানীয় সময় রোববার রাত ৮টার পরই মস্কোর শেরেমিতিয়েভো বিমানবন্দরে নামেন। নামার সঙ্গে সঙ্গেই আটক হন প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনের কট্টর সমালোচক হিসেবে পরিচিত এই নেতা। তবে তাদের বিমান নামার কথা ছিল নুকোভো বিমানবন্দরে। নির্ধারিত বিমানবন্দরে নাভালনির উড়োজাহাজটি অবতরণের কিছু সময় আগে পাইলট অন্য বন্দরে অবতরণের ঘোষণা দেন। এর পেছনে ‘যান্ত্রিক কারণ’ উল্লেখ করেন তিনি। নাভালনিকে বহনকারী উড়োজাহাজে ছিলেন বেশ কিছু সাংবাদিকও।

বিমানবন্দরে নেমেই নাভালনি জড়ো হওয়া সমর্থকদের উদ্দেশে বলেন, আমি জানি আমি ঠিক, আমি কিছুই ভয় পাই না। এর পরপরই তাকে গ্রেপ্তার করে রুশ পুলিশ।

এর আগে একটি অভ্যন্তরীণ ফ্লাইটে সার্বিয়া থেকে মস্কো ফেরার সময় গত বছরের আগস্টে এককাপ চা পানের পরই অসুস্থ হন ৪৪ বছর বয়সী নাভালনি। পরে তাকে স্থানীয় একটি হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। অবস্থার পরিবর্তন না হলে উন্নত চিকিৎসার জন্য তাকে নিয়ে যাওয়া হয় জার্মানি। বিষাক্ত নার্ভ এজন্টে নোভিচক দিয়ে তাকে হত্যার চেষ্টা করা হয়েছিল বলে অভিযোগ। রাশিয়া সরকারের বিরুদ্ধে তাকে হত্যার চেষ্টার অভিযোগ করে আসছেন নাভালনি। তবে ক্রেমলিন এই অভিযোগ অস্বীকার করে আসছে।

মন্তব্য করুন