করোনার টিকা আমদানি করতে এখনও চূড়ান্ত কোনো ক্রয়আদেশ দেয়নি পাকিস্তান। ইমরান খান সরকারের এক শীর্ষ কর্মকর্তা একথা জানিয়েছেন। 

তিনি বলেছেন, করোনার টিকা সরবরাহের জন্য টিকা উৎপাদনকারী কোনো প্রতিষ্ঠান এখনও দেশটির অনুরোধে সাড়া দেয়নি। ফলে টিকা আমদানি করতে চূড়ান্ত কোনো আদেশ দেয়নি পাকিস্তান। খবর দ্য ইকোনমিক টাইমসের

দ্য নিউজ ইন্টারন্যাশনালের সঙ্গে টেলিফোনে আলাপচারিতায় প্রধানমন্ত্রীর স্বাস্থ্য বিষয়ক বিশেষ সহকারী ডা. ফয়সাল খান বলেছেন, আমরা আমাদের প্রথম সারির কর্মী এবং অন্যদের জন্য প্রথম করোনার টিকা পেতে চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছি। তবে এখনও কোনো টিকা প্রস্তুতকারী প্রতিষ্ঠান আমাদের সাড়া দেয়নি। ফলে চূড়ান্ত ক্রয়আদেশ এখনও দেওয়া সম্ভব হয়নি।

গত ১৩ জানুয়ারি ডন জানিয়েছিল, করাচিতে করোনা টিকার প্রথম ধাপের ট্রায়াল চূড়ান্ত পর্যায়ে পৌঁছানোর সঙ্গে সঙ্গে চীনা রাষ্ট্রীয় মালিকানাধীন সংস্থা সিনোফর্মের কাছ থেকে টিকা আমদানির একমাত্র বাধা শিগগির অপসারণ করা হবে।

পাকিস্তানে এখন পর্যন্ত মোট ৫ লাখ ১৪ হাজার ৩৩৮ জন্য করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন ও মারা গেছেন ১০ হাজার ৮৬৩ জন। 

দেশটির শীর্ষস্থানীয় স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞ বলেছেন, চীনের সিনোফর্ম যদিও পাকিস্তানের ড্রাগ রেগুলেটরি অথরিটির (ডিআরপি) কাছে তথ্য উপস্থাপন করেছে তবে তা সংগ্রহের বিষয়ে এখনও কোনো চুক্তি হয়নি।

তিনি বলেন, আমরা ক্যানসিনোর টিকা পেতেও কথা বলছি। বর্তমানে এই টিকার পরীক্ষা চলছে। তারা আমাদের কাছে দ্রুত তথ্য জমা দেবে। আমরা রাশিয়ান ভ্যাকসিন স্পুটনিক ভি পেতেও আগ্রহী। তারা ইতোমধ্যে আমাদের কিছু তথ্য জমা দিয়েছে, তবে আমরা আরও তথ্য চেয়েছি। 

তিনি বলেন, আমরা অক্সফোর্ড-অ্যাস্ট্রাজেনেকার টিকা পেতেও চেষ্টা করছি। 

মন্তব্য করুন