করোনাভাইরাস প্রতিরোধে নিজেদের তৈরি টিকা ৯০ শতাংশেরও বেশি কার্যকর বলে দাবি করেছে মার্কিন ওষুধ প্রস্তুতকারী কোম্পানি ফাইজার ও এর জার্মান পার্টনার বায়োএনটেক। বিশ্বজুড়ে এই মহামারি মোকাবিলায় এটি একটি বড় অগ্রগতি উল্লেখ করেছে প্রতিষ্ঠান দুটি।

সোমবার ফাইজারের চেয়ারম্যান ও প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (সিইও) আলবার্ট বৌরলা বলেছেন, আজকের দিনটি বিজ্ঞান ও মানবতার জন্য একটি দুর্দান্ত দিন। আমরা এমন সময় টিকার মাইলফলক অর্জন করেছি, যখন বিশ্বজুড়ে নতুন করে সর্বোচ্চ সংক্রমণের রেকর্ড হচ্ছে। খবর রয়টার্সের

সংবাদমাধ্যম বলছে, প্রতিষ্ঠান দুটি সোমবার যে তথ্য প্রকাশ করেছে, তাতে দেখা গেছে, টিকা ট্রায়ালে অংশ নেওয়া স্বেচ্ছাসেবকদের মধ্যে কেউ গুরুতর অসুস্থ হননি। এছাড়া বড় আকারের ট্রায়ালের পূর্ণাঙ্গ ফল প্রকাশ হয়েছে একমাত্র এই টিকারই। তবে টিকাটির কার্যকারিতা কতদিন স্থায়ী হতে পারে, সে ব্যাপারে এখনও স্পষ্ট কোনো তথ্য পাওয়া যায়নি।

জরুরি ক্ষেত্রে ব্যবহারের জন্য প্রতিষ্ঠান দুটি এ মাসেই মার্কিন সরকারের কাছে অনুমোদন চাইবে। ১৬ থেকে ৮৫ বছর বয়সীদের জন্য টিকাটি ব্যবহার করতে চাইছে ফাইজার। অবশ্য এ জন্যও অনুমতি লাগবে মার্কিন সরকারের।

বিশ্বজুড়ে চলমান মহামারির বিরুদ্ধে লড়াইয়ে অল্প যে কয়েকটি টিকা আশার আলো দেখাচ্ছে, সোমবারের তথ্যে তার সঙ্গে যুক্ত হয়েছে ফাইজারের ভ্যাকসিনটি।

করোনাভাইরাস মহামারিতে আক্রান্ত সংখ্যা বাড়ছেই। এরমধ্যেই এগিয়ে চলছে টিকা উদ্ভাবন ও ট্রায়াল গবেষণা। বিশ্বজুড়ে ১৪০টিরও বেশি গবেষণার কাজ চললেও মাত্র কয়েকটি চূড়ান্ত পরীক্ষার পর্যায়ে রয়েছে।

মন্তব্য করুন